কিম জং উন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কিম জং উন
김정은
কিম জং উন
উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা
দায়িত্ব
অধিকৃত অফিস
১৭ ডিসেম্বর ২০১১
প্রিমিয়ার চেয়ে ইয়ং রিম
পাক পং-জু
পূর্বসূরী কিম জং ইল
কোরিয়ার ওয়ার্কার্স পার্টির প্রথম সম্পাদক
দায়িত্ব
অধিকৃত অফিস
১১ এপ্রিল ২০১২
Deputy কিম ইয়ং নাম
চেয়ে ইয়ং রিম
চে রুং এ
রি ইয়ং হো
পূর্বসূরী কিম জং ইল (সাধারণ সম্পাদক)
জাতীয় প্রতিরক্ষা সংস্থার প্রথম সভাপতি
দায়িত্ব
অধিকৃত অফিস
১৩ এপ্রিল ২০১২
Deputy কিম ইয়ং চুন
রি ইয়ং মু
অগেন্নিয়ায়
পূর্বসূরী কিম জং ইল (সভাপতি)
কোরিয়ান পিপলস আর্মির সর্বোচ্চ অধিনায়ক
দায়িত্ব
অধিকৃত অফিস
৩০ ডিসেম্বর ২০১১ [১]
পূর্বসূরী কিম জং ইল
কেন্দ্রীয় সামরিক সংস্থার সভাপতি
দায়িত্ব
অধিকৃত অফিস
১১ এপ্রিল ২০১২
Acting: ১৭ ডিসেম্বর ২০১১ – ১১ এপ্রিল ২০১২
Deputy চেয়ে ইয়ং রিম
রি ইয়ং-হো
পূর্বসূরী কিম জং ইল
কেন্দ্রীয় সামরিক সংস্থার উপসভাপতি
কার্যালয়ে
২৮ সেপ্টেম্বর ২০১১ – ১১ এপ্রিল ২০১২
Serving with রি ইয়ং হো
নেতা কিম জং ইল
পূর্বসূরী অবস্থান প্রতিষ্ঠা
উত্তরসূরী চেয়ে ইয়ং রিম
রি ইয়ং হো
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম ৮ জানুয়ারি ১৯৮৩(age 31)[২]
পিয়ং ইয়াং, গণতান্ত্রিক গণপ্রজাতন্ত্রী কোরিয়া
রাজনৈতিক দল ওয়ার্কার্স পার্টি
দাম্পত্য সঙ্গী রি সোল জু
সন্তান কিম জু এ
অধ্যয়নকৃত শিক্ষা
প্রতিষ্ঠান
কিম ইল-সাং বিশ্ববিদ্যালয়
কিম ইল-সাং সামরিক বিশ্ববিদ্যালয়
ধর্ম নেই (নাস্তিক)
স্বাক্ষর
সামরিক পরিষেবা
আনুগত্য উত্তর কোরিয়া গণতান্ত্রিক গণপ্রজাতন্ত্রী কোরিয়া
চাকুরির বছর ২০১০–বর্তমান
পদ Marshal of the DPRK rank insignia.svg প্রজাতন্ত্রের সেনাপতি (공화국원수, কুংআঘুআংসো)
নেতৃত্ব সর্বোচ্চ অধিনায়ক
কিম জং উন
Chosŏn'gŭl
হাঞ্চা [৩]
McCune–Reischauer Kim Chŏngŭn
কোরীয় রোমানীকরণ Gim Jeong(-)eun

কিম জং উন [৪] (কোরীয়: 김정은?, 金正恩? জন্ম ৮ জানুয়ারি ১৯৮৪[২] হচ্ছেন গণতান্ত্রিক গণপ্রজাতন্ত্রী কোরিয়া অর্থাৎ উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা। তিনি হচ্ছেন কিম জং ইলের (১৯৪১-২০১১) চতুর্থ সন্তান ও কিম ইল-সাং-এর (১৯১২-১৯২৪) নাতি। তিনি বর্তমানে উত্তর কোরিয়ার ওয়ার্কার্স পার্টির প্রথম সম্পাদক, উত্তর কোরিয়ার কেন্দ্রীয় সামরিক সংস্থার সভাপতি, উত্তর কোরিয়ার জাতীয় প্রতিরক্ষা সংস্থার সভাপতি, কোরিয়ান পিপলস আর্মির সর্বোচ্চ অধিনায়ককোরিয়ার ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতিমণ্ডলীয় নিয়ন্ত্রণ কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তার বাবা অর্থাৎ কিম জং ইলের রাজ্য অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার পর তিনি ২৮ ডিসেম্বর ২০১১ নিজেকে উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা হিসেবে ঘোষণা করেন।[৫] তিনি তার বাবা কিম জং ইল ও মা কো ইয়ং হীর তৃতীয় ও সর্বকনিষ্ঠ পুত্র।[৬]

২০১০ সালের শেষ দিক থেকেই কিম জং উন রাষ্ট্রের পরবর্তী উত্তরাধীকারের মতো আচরণ শুরু করেন, এবং তার বাবার মৃত্যুর পর কিমকে উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন “মহান উত্তরাধেকারি” হিসেবে ঘোষণা করেন। [৭] কিম জং ইলের একটি স্মরণ সভায় উত্তর কোরিয়ার সুপ্রিম পিপলস এস্যাম্বলির সভাপতি কিম ইয়ং নাম ঘোষণা করেন; “সম্মানিত কমরেড কিম জং উন, আমাদের দল, সামরিক বাহিনী ও দেশের সর্বোচ্চ নেতা, যিনি মহান কমরেড কিম জং ইলের আদর্শ, নেতৃত্ব, চরিত্র, গুণাবলী, সাহসিকতা ও বীরত্বের উত্তরাধিকারী লাভ করেছেন।” [৮] ২০১১ সালের ৩০শে ডিসেম্বর ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতিমণ্ডলীয় নিয়ন্ত্রণ কমিটি আনুষ্ঠানিকভাবে, কিম জং উনকে কোরিয়ান পিপলস আর্মির সর্বোচ্চ অধিনায়ক পদে নিযুক্ত করেন।[১] ২০১২ সালের ১১ই এপ্রিল চতুর্থ দলীয় সম্মেলনে তাকে সদ্য সৃষ্ট পদ কোরিয়ার ওয়ার্কার্স পার্টির প্রথম সম্পাদকে দায়িত্ব দেয়া হয়।

তাকে ২০১২ সালের ১৮ জুলাই কোরিয়ান পিপলস আর্মিতে সেনাপতি পদে উন্নীত করা হয় এর ফলে তার তার সর্বোচ্চ অধিনায়ক পদটি আরও দৃঢ় হয়। [৯] তার দুটি ডিগ্রি রয়েছে, একটি থেকে কিম ইল সাং বিশ্ববিদ্যালয় পদার্থবিজ্ঞানের ওপর আরেকটি সেনা কর্মকর্তা হিসেবে কিম ইল সাং সামরিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। ৩১ বছর বয়সে, বর্তমানে তিনি পৃথিবীর সর্বকনিষ্ঠ রাষ্ট্রপ্রধান।

২০১২ সালের ২৫শে জুলাই উত্তর কোরীয় রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম প্রথম বারের মতো কিম জং ইলের বৈবাহিক সম্পর্ক প্রকাশ করেন। এতে বলা হয় কিম রি সোল জু-র (কোরীয়: 리설주) সাথে বিবাহিত। [১০][১১] কিছু সূত্র বলে তারা ২০০৯ সালে বিয়ে করেন এবং ২০১০ সালে কন্যা সন্তান জন্ম দেন।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ "N.Korea declares Kim Jong-Un commander of military" (ইংরেজি ভাষায়)। এজেন্সি অফ ফ্রান্স প্রেস। ৩০ ডিসেম্বর ২০১১। সংগৃহীত ৩০ ডিসেম্বর ২০১১ 
  2. ২.০ ২.১ "Rodman Gives Details on Trip to North Korea" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস। ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৩। সংগৃহীত ২০ জানুয়ারি ২০১৪ 
  3. (কোরীয়)"[北 막오른 김정은 시대]조선중앙통신 보도, 金正銀(X) 金正恩"Naver। 2 October 2010। সংগৃহীত 2 December 2010 
  4. (কোরীয়)""청년대장 김정은"... 북 후계자 시사 벽보 찍혔다"Kyunghyang Shinmun। ২৫ সেপ্টেম্বর ২০০৯। সংগৃহীত ২ ডিসেম্বর ২০১০ 
  5. North Korea tells rival SKorea and other nations not to expect any change, despite new leader. The Associated Press (via Yahoo! News). 29 December 2011. Retrieved 1 January 2012.
  6. Kim Jong-un: a profile of North Korea's next leader. দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফ. ০২ জুন ২০০৯ ইংরেজি ভাষায়
  7. Alastair Gale (১৮ ডিসেম্বর ২০১১)। "Kim Jong Il Has Died"The Wall Street Journal Asia। সংগৃহীত ১৯ ডিসেম্বর ২০১১ 
  8. "Kim Jong Il son declared 'supreme leader' of North Korea's people, party and military"দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট। ২৮ ডিসেম্বর ২০১১। সংগৃহীত ২৯ ডিসেম্বর ২০১১ 
  9. "North Korea's Kim Jong-un named 'marshal'" (ইংরেজি ভাষায়)। বিবিসি। ২৮ জুলাই ২০১২। সংগৃহীত ১৮ জুলাই ২০১২ 
  10. "North Korea leader Kim Jong-un married to Ri Sol-ju" (ইংরেজি ভাষায়)। বিবিসি। ২৫ জুলাই ২০১২। সংগৃহীত ২৫ জুলাই ২০১২ 
  11. "North Korea leader Kim Jong Un projects new image by showing off wife" (ইংরেজি ভাষায়)। ফক্স নিউজ চ্যানেল। Associated Press। ২৬ জুলাই ২০১২। সংগৃহীত ২৬ জুলাই ২০১২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]