হেলওয়ান

স্থানাঙ্ক: ২৯°৫১′ উত্তর ৩১°২০′ পূর্ব / ২৯.৮৫০° উত্তর ৩১.৩৩৩° পূর্ব / 29.850; 31.333
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে


হেলওয়ান
حلوان
ϩⲁⲗⲟⲩⲁⲛ
শহর
ফারুকের প্রাসাদ
ফারুকের প্রাসাদ
হেলওয়ান মিশর-এ অবস্থিত
হেলওয়ান
হেলওয়ান
মিশরে অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৯°৫১′ উত্তর ৩১°২০′ পূর্ব / ২৯.৮৫০° উত্তর ৩১.৩৩৩° পূর্ব / 29.850; 31.333
দেশ মিশর
Governorateকায়রো
আয়তন
 • মোট৬৫ বর্গকিমি (২৫ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০০৬)
 • মোট৬,৪৩,৩২৭
সময় অঞ্চলমিশর মান সময় (ইউটিসি+২)

হেলওয়ান (আরবি: حلوان‎‎ Ḥelwān, মিশরীয় আরবি: ħelˈwæːn, কপটিক: ϩⲁⲗⲟⲩⲁⲛ (Halouan)[১]) মিশরের একটি শহর এবং বৃহত্তর কায়রোর অংশ। এটি মেম্পিসের ধ্বংসাবশেষের বিপরীতে নীল নদের তীরে অবস্থিত। মূলত কায়রোর একটি দক্ষিণ শহরতলী, এটি এপ্রিল ২০০৮ থেকে এপ্রিল ২০১১ পর্যন্ত বিলুপ্ত হেলওয়ান গভর্নরেটের রাজধানী হিসেবে কাজ করে, এরপর এটিকে কায়রো প্রদেশে পুনরায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়। হেলওয়ানের কিসমে ২০০৬ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী জনসংখ্যা ছিল ৬৪৩,৩২৭ জন।[২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

প্রয়াত এপিপ্যালিওলিথিকের হেলওয়ান এবং ইসনিয়ান সংস্কৃতি, এবং তাদের আউচাটা মাইক্রোলিথিক সরঞ্জাম তৈরির পদ্ধতি সিনাইয়ের হরিফিয়ান সাংস্কৃতিক সম্মিলনের উন্নয়নে অবদান রাখতে পারে। যা হয়তো মধ্যপ্রাচ্যে প্রত্ন-ইহুদি ভাষা চালু করেছে। প্রায় ৩০০০ থেকে ২৬০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দের কাছাকাছি সময়ে হেলওয়ানের কাছে মেম্পিস শহরের অধিবাসীদের একটি কবরস্থান ছিল।

হেলওয়ান শহরটি ৬৮৯ সালে উমাইয়া গভর্নর আবদ আল আজিজ ইবনে মারওয়ান, মিশরের রাজধানী হিসেবে ফুস্তার -এর অস্থায়ী প্রতিস্থাপন (রিপ্লেসমেন্ট) হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেন।[৩]

এখানে ১৯০৩-১৯০৪ সালে খেডিভিয়াল অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল অবজারভেটরি নির্মিত হয়েছিল, এবং হ্যালির ধূমকেতু পর্যবেক্ষণ করতে তা ব্যবহৃত হত। মিশরের প্রাচীনতম এবং বৃহত্তম প্রাইভেট সাইকিয়াট্রিক ক্লিনিক, বেহমান হাসপাতাল, ১৯৩৯ সালে এখানে নির্মিত হয়।

বিংশ শতাব্দীর প্রথম দিকে, শহর ছিল আরএএফ হেলওয়ানের (একটি প্রধান ব্রিটিশ বিমানক্ষেত্র) অংশ, যা পরে মিশরীয় বিমান বাহিনী দ্বারা ব্যবহৃত হয়।

১৯৫৯ সালে হেলওয়ানকে প্রেসিডেন্ট গামাল আব্দেল নাসেরের মিশর শিল্পায়নের প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে একটি প্রধান শিল্প শহরের স্থান হিসেবে নির্বাচিত করা হয়। ১৯৬০-এর দশকে, এটি একটি বিশাল ইস্পাত নির্মাণ শিল্প অঞ্চলে পরিণত হয় এবং অসংখ্য অটোমোবাইল কারখানা নির্মিত হয়। সাইটটি আসওয়ান বাঁধ থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে এবং মিশরের পশ্চিম মরুভূমি থেকে লোহা আকরিক উৎপাদনে ব্যবহৃত হচ্ছে। হেলওয়ান ধীরে ধীরে শ্রমিক শ্রেণীর জন্য কায়রোর একটি গণ শহরতলীতে রূপান্তরিত হয়েছে।[৪]

এপ্রিল ২০০৮ সালে, হেলওয়ান প্রদেশকে কায়রো প্রদেশ থেকে বিভক্ত করা হয়। এটি কায়রোর দক্ষিণাঞ্চলে অবস্থিত অধিকাংশ শহরতলী, নতুন এলাকা এবং গ্রামকে ঘিরে রেখেছে। হেলওয়ান শহর নতুন প্রদেশের রাজধানী হয়ে উঠেছিল। এপ্রিল ২০১১ সালে হেলওয়ান প্রদেশ ভেঙ্গে ফেলার পর, হেলওয়ান শহর কায়রো প্রদেশে পুনরায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

যাজকীয় ইতিহাস[সম্পাদনা]

আলফোক্রান তার মহানগর আর্চবিশপ অক্সিরিনচুসের এক জন সুফ্রাগান হিসেবে আর্কাডিয়া ইজিপ্টির প্রয়াত রোমান প্রদেশে যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ছিল।

এর বিশপ, হারপোসেশন, ৩২৫ সালে নিকাইয়া প্রথম কাউন্সিলে অংশগ্রহণ করেন। বিশপ পদকে দুটি নোটিয়া এপিস্কোপাটুয়ামে উল্লেখ করা হয়েছে।[৫][৬]

টাইটুলার সি[সম্পাদনা]

এখন আর কোন আবাসিক বিশপের এলাকা হিসেবে নয়, আলফোক্রানন এখন একটি ল্যাটিন ক্যাথলিক টাইটুলার বিশপরিক হিসেবে ক্যাথলিক চার্চের তালিকাভুক্ত।[৭] ১৯৩৩ সালে ডায়োসিস (বিশপের এলাকা) পুনরুদ্ধার হয়, কিন্তু কোন ক্ষমতা গ্রহণের দলিল পাওয়া যায় নি।

প্রশাসনিক বিভাগ[সম্পাদনা]

বর্তমানে বিলুপ্ত হেলওয়ান প্রদেশ নিম্নলিখিত শহর বা জেলাগুলো ঘিরে রেখেছে: মাদি, হেলওয়ান, ১৫ই মে, এল শোরুক, নিউ কায়রো, মদিনাটি।

হেলওয়ান শহর নিজেই ওয়াদি হফ, হাদায়েক হেলওয়ান, এবং মাসারার মত জেলা হিসেবে অন্তর্ভুক্ত।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

১৯৬৩ সালে রাষ্ট্রপতি গামাল আব্দেল নাসের হেলওয়ানে অটোমোবাইল কারখানা উদ্বোধন করছেন।

স্থানীয় শিল্পের মধ্যে লোহা, ইস্পাত, টেক্সটাইল এবং সিমেন্ট অন্তর্ভুক্ত। এ এলাকায় গরম সালফার স্প্রিং, একটি জ্যোতির্বৈজ্ঞানিক মানমন্দির, হেলওয়ান বিশ্ববিদ্যালয় এবং একটি সমাধি কক্ষ (১৯৪৬ সালে আবিষ্কৃত) আছে। এটি কায়রোর হালকা রেল মেট্রো লাইন ১ এর টার্মিনাস। এছাড়াও হেলওয়ানের ট্রাম জনগণের সেবা করছে।

জলবায়ু[সম্পাদনা]

কোপেন-গেইগার জলবায়ু শ্রেণীবিভাগ পদ্ধতি এর জলবায়ুকে উষ্ণ মরুভূমি (বিডব্লিউএইচ) হিসেবে শ্রেণীবদ্ধ করে। কায়রোর নৈকট্যের কারণে, এর গড় মাসিক তাপমাত্রা বেশ একই রকম, কিন্তু এর আর্দ্রতার একটি সম্পূর্ণ ভিন্ন মাত্রায় থাকে এবং এর গড় তাপমাত্রার তারতম্য সামান্য বড়।

Helwan-এর আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য
মাস জানু ফেব্রু মার্চ এপ্রিল মে জুন জুলাই আগস্ট সেপ্টে অক্টো নভে ডিসে বছর
সর্বোচ্চ রেকর্ড °সে (°ফা) ৩০.৪
(৮৬.৭)
৩৩.২
(৯১.৮)
৩৭.২
(৯৯.০)
৪২.৪
(১০৮.৩)
৪৬.৬
(১১৫.৯)
৪৬.৭
(১১৬.১)
৪৪.১
(১১১.৪)
৪৩.৮
(১১০.৮)
৪৪.০
(১১১.২)
৪০.২
(১০৪.৪)
৩৫.৯
(৯৬.৬)
২৯.৮
(৮৫.৬)
৪৬.৭
(১১৬.১)
সর্বোচ্চ গড় °সে (°ফা) ১৮.৫
(৬৫.৩)
২০.৪
(৬৮.৭)
২৩.৪
(৭৪.১)
২৮.৫
(৮৩.৩)
৩২.২
(৯০.০)
৩৪.৩
(৯৩.৭)
৩৫.০
(৯৫.০)
৩৪.৬
(৯৪.৩)
৩২.৬
(৯০.৭)
২৯.৩
(৮৪.৭)
২৪.৫
(৭৬.১)
১৯.৫
(৬৭.১)
২৭.৭
(৮১.৯)
দৈনিক গড় °সে (°ফা) ১৩.০
(৫৫.৪)
১৪.৫
(৫৮.১)
১৬.৯
(৬২.৪)
২১.৪
(৭০.৫)
২৪.৭
(৭৬.৫)
২৭.৩
(৮১.১)
২৭.৭
(৮১.৯)
২৭.৬
(৮১.৭)
২৫.৮
(৭৮.৪)
২৩.৩
(৭৩.৯)
১৮.৮
(৬৫.৮)
১৪.৪
(৫৭.৯)
২১.৩
(৭০.৩)
সর্বনিম্ন গড় °সে (°ফা) ৭.৯
(৪৬.২)
৮.৯
(৪৮.০)
১০.৯
(৫১.৬)
১৪.৩
(৫৭.৭)
১৭.৩
(৬৩.১)
২০.০
(৬৮.০)
২০.৯
(৬৯.৬)
২১.১
(৭০.০)
১৯.৮
(৬৭.৬)
১৭.৬
(৬৩.৭)
১৩.৭
(৫৬.৭)
৯.৮
(৪৯.৬)
১৫.২
(৫৯.৪)
সর্বনিম্ন রেকর্ড °সে (°ফা) −৩.৪
(২৫.৯)
২.২
(৩৬.০)
১.২
(৩৪.২)
৬.৬
(৪৩.৯)
১০.৬
(৫১.১)
১৪.৮
(৫৮.৬)
১৫.০
(৫৯.০)
১১.২
(৫২.২)
১৪.৪
(৫৭.৯)
১০.৮
(৫১.৪)
৩.৭
(৩৮.৭)
২.৮
(৩৭.০)
−৩.৪
(২৫.৯)
অধঃক্ষেপণের গড় মিমি (ইঞ্চি)
(০.২)

(০.১)

(০.১)

(০.০)

(০)

(০)

(০)

(০)

(০)

(০)

(০.১)

(০.২)
১৮
(০.৭)
অধঃক্ষেপণ দিনগুলির গড় (≥ ১.০ mm) ১.০ ০.৩ ০.৩ ০.২ ০.০ ০.০ ০.০ ০.০ ০.০ ০.০ ০.২ ০.৫ ২.৫
আপেক্ষিক আদ্রতার গড় (%) ৬২ ৫৭ ৫৪ ৪৩ ৪১ ৪৫ ৫২ ৫৬ ৫৬ ৫৫ ৫৮ ৬১ ৫৩
মাসিক সূর্যালোক ঘণ্টার গড় ২২০.৮ ২১১.৭ ২৬৬.৩ ২৭৫.৮ ৩১৪.৬ ৩৫৭.৫ ৩৫০.২ ৩৩৭.৮ ২৮২.৭ ২৮৯.৬ ২৪৪.১ ১৯৭.১ ৩,৩৪৮.২
উৎস: NOAA[৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Emile, Amélineau (১৮৯৩)। La géographie de l’Egypte à l'époque copte.। Paris: Imprimerie nationale। পৃষ্ঠা 584। 
  2. Central Agency for Public Mobilisation and Statistics, Population and Housing Census 2006, Population distribution by sex, gov: Cairo ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২০০৮-১২-১১ তারিখে Retrieved on 2008-04-01.
  3. Kennedy, Hugh (১৯৯৮)। "Egypt as a Province in the Islamic Caliphate, 641–868"। Petry, Carl F.। Cambridge History of Egypt, Volume One: Islamic Egypt, 640–1517। Cambridge: Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 71। আইএসবিএন 0-521-47137-0 
  4. Beattie, Andrew. (2005) Cairo: A Cultural and Literary History. Signal Books. p. 196. আইএসবিএন ৯৭৮১৯০২৬৬৯৭৭৯
  5. Siméon Vailhé, v. Alphocranon, in Dictionnaire d'Histoire et de Géographie ecclésiastiques, vol. XII, Paris 1953, col. 677
  6. Klaas A. Worp, A Checklist of Bishops in Byzantine Egypt (A.D. 325 - c. 750), in Zeitschrift für Papyrologie und Epigraphik 100 (1994) 283-318
  7. Annuario Pontificio 2013 (Libreria Editrice Vaticana 2013 আইএসবিএন ৯৭৮-৮৮-২০৯-৯০৭০-১), p. 829
  8. "Helwan Climate Normals 1961–1990"National Oceanic and Atmospheric Administration। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৫, ২০১৫ 

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]