সীমা জয়েন্ডা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সীমা জয়েন্ডা
سیما جوینده
ঘোর প্রদেশের গভর্নর
কাজের মেয়াদ
২৮ জুন ২০১৫ – ৭ নভেম্বর ২০১৫
পূর্বসূরীসাঈদ আনোয়ার রহমতী
উত্তরসূরীগোলাম নাসির খাজা
কাবুলের ডেপুটি গভর্নর
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
ডিসেম্বর ২০১৫
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১৯৭১ (বয়স ৪৭–৪৮)
ঘোর প্রদেশ, আফগানিস্তান রাজ্য
জাতীয়তাআফগানিস্তান
ধর্মইসলাম, সুন্নীi
আদিবাসীআইমাক

সীমা জয়েন্ডা (দারিঃ سیما جوینده) একজন আফগান নারী রাজনীতিবিদ। তিনি কাবুল প্রদেশের ডেপুটি গভর্নর এবং পূর্বে ঘোর প্রদেশের গভর্নর ছিলেন। ২০১৫ সালের নভেম্বর পর্যন্ত, আফগানিস্তানের প্রাদেশিক গভর্নর পদে অধিষ্ঠিত দুই নারীর একজন তিনি।[১] সীমা চাকরিতে সাঈদ আনোয়ার রহমতির স্থলাভিষিক্ত হন।

প্রথম জীবন[সম্পাদনা]

মির্জা গুল আকা খানের মেয়ে সীমা জয়েন্ডা ১৯৭১ সালে আফগানিস্তানের ঘোর প্রদেশের ফিরোজ কোহে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বিবাহিত এবং নয় সন্তানের জননী।[২] জয়েন্ডা দারি, পশতু এবং ইংরেজিতে কথা বলতে পারেন। জয়েন্ডা ২০০৫ সালে ঘোর প্রদেশের টেগা টেমর উচ্চ বিদ্যালয়ে তার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা শেষ করে ২০০৯ সালে টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউট অফ ঘোর থেকে ১৪তম শ্রেণীর সার্টিফিকেট অর্জন করেন।[৩]

ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

জয়েন্ডা মহিলা সংস্থা বিশেষ করে নারীর ক্ষমতায়নের জন্য অবদান রাখার প্রোগ্রামগুলির সাথে কাজ করেছে। তিনি তালিবান শাসনের অধীনে একজন শিক্ষক হিসেবে কাজ করেছিলেন এবং মেয়েদের নিম্নশ্রেণির পাঠক্রম দিতেন। তালিবানদের পতনের পর তিনি ঘোর প্রদেশের উচ্চ বিদ্যালয়গুলিতে শিক্ষক হিসেবে কাজ করতে থাকেন। ঘোরের গভর্নর অফিস ও গ্রামীণ উন্নয়ন বিভাগ সহ সরকারি অফিসগুলিতে তিনি কাজ করেছেন। আফগানিস্তানে নারীর ক্ষমতায়নের জন্য কাজ করতে গিয়ে তিনি দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে আধা-সরকারী বিশেষ করে গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার প্রাদেশিক প্রশিক্ষক হিসেবে বেসরকারি অফিসগুলিতেও কাজ করেছেন। ২০০২ সালে তিনি লয়া জিরগার জরুরী নির্বাচন এবং ২০০৩ সালে লয়া জিরগার নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছিলেন।[৪]

জয়েন্ডা ২০১৫ সালের জুন মাসে ঘোর প্রদেশের গভর্নর নিযুক্ত হন।[৫][৬] হুমকি ও চাপের মুখে তাকে ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে পদ থেকে অপসারণ করা হয় এবং ডিসেম্বর ২০১৫ সালে কাবুল প্রদেশের ডেপুটি গভর্নর নিযুক্ত হন।[৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Tomlinson, Hugh (৪ নভেম্বর ২০১৫)। "Woman stoned to death for fleeing a forced marriage"The Times। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৬ 
  2. Mashal, Mujib; Shakib, Ahmad (২৮ জুন ২০১৫)। "Afghan President Appoints a Second Female Governor"New York Times। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৬ 
  3. Latifi, Ali M. (১ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "Struggling to pave the way for future female leaders in Afghanistan"Los Angeles Times। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৬ 
  4. "زندگينامۀ نمايندگان مردم غور در ولسى جرگه"Pazhwak (Arabic ভাষায়)। 
  5. Moosakhail, Zabihullah (২৮ জুন ২০১৫)। "Seema Jowenda appointed Ghor's new governor"Khaama Press। সংগ্রহের তারিখ ৭ নভেম্বর ২০১৫ 
  6. Moylan, Danielle (৩ নভেম্বর ২০১৫)। "Afghan woman was stoned to death after 'attempting to flee a forced marriage'"The Daily Telegraph। সংগ্রহের তারিখ ৭ নভেম্বর ২০১৫ 
  7. "After Threats, Afghan Woman Governor Reappointed to New Post"VOA News। Associated Press। ১৭ ডিসেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:AfghanGov