সবুজঠোঁট মালকোআ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
সবুজঠোঁট মালকোআ
Green-billed Malkoha (Phaenicophaeus tristis).jpg
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: কর্ডাটা
শ্রেণী: পক্ষী
বর্গ: Cuculiformes
পরিবার: Cuculidae
গণ: Phaenicophaeus
প্রজাতি: P. tristis
দ্বিপদী নাম
Phaenicophaeus tristis
(Lesson, 1830)

সবুজঠোঁট মালকোআ বা বন কোকিল (বৈজ্ঞানিক নাম: phaenicophaeus tristis) কোকিল প্রজাতির লম্বা লেজের পাখি। পাহাড়ি বন ও প্রাকৃতিক বনগুলোতেই বেশি দেখা যায় এদের।[২]

আকার[সম্পাদনা]

ফ্রেসারস পাহাড়, মালয়শিয়া, সেপ্টেম্বর ১৯৯৭
সবুজঠোঁট মালকোআ

স্বভাবে কুকোর মতো—দেখতেও অনেকটা একই ধরন-গড়নের, লেজটা তুলনামূলকভাবে বেশি লম্বা। লেজ-পিঠ নীলচে ধূসর, চওড়া লেজের ডগা ও প্রান্তদেশে সাদা রং মাখানো। বুক-পেট-ঘাড়-গলা ধূসর ছাই। কালচে পা, সবুজাভ ঠোঁট। চোখের ওপরে যেন লাল কাজল লেপটানো। মাপ ৫১ সেন্টিমিটার।[২]

বাসা[সম্পাদনা]

কোকিল গোত্রীয় পাখি হয়েও এরা বাসা বানায় গাছের ডালে কাঠি ও ডালপালা দিয়ে। ডিম পাড়ে দু-তিনটি। নিজেদের বাসার ত্রিসীমানায় ঘেঁষতে দেয় না অন্য কোনো পাখিকে। [২]

খাদ্য[সম্পাদনা]

পোকা মাকড়, পতঙ্গ, ছোট পাখি ও পাখির ডিম-ছানাও খায় এরা।[২]

স্বভাব[সম্পাদনা]

বুদ্ধিমান, সাহসী এবং লড়াকু স্বভাবের পাখি এরা। গিরগিটি, নির্বিষ সাপ, ব্যাঙ, তক্ষক ইত্যাদি যথেষ্ট কৌশল খাঁটিয়ে শিকার করে এরা। পায়ের ব্যবহার এরা ভালো জানে।[২]

গ্যালারি[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. BirdLife International (২০১২)। "Phaenicophaeus tristis"বিপদগ্রস্ত প্রজাতির আইইউসিএন লাল তালিকা। সংস্করণ 2012.1প্রকৃতি সংরক্ষণের জন্য আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন। সংগৃহীত ১৬ জুলাই ২০১২ 
  2. বন কোকিলের কথা, শরীফ খান, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: আগস্ট ১৪, ২০১৩ খ্রিস্টাব্দ।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]