সবরমতি নদী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
সবরমতি নদী
নদী
দেশ ভারত
রাজ্যসমূহ গুজরাট, রাজস্থান
উপনদী
 - বাঁদিকে য়াকাল নদী, সুই নদী, হারনাভ নদী, হাথমতী নদী, য়াট্রাক নদী, মধুমতী নদী
নগরসমূহ আহমেদাবাদ, গান্ধীনগর
উত্স ধেবার হ্রদ, রাজস্থান
 - অবস্থান আরাবল্লি পাহাড়, উদয়পুর জেলা, রাজস্থান, ভারত
 - উচ্চতা ৭৮২ মিটার (২,৫৬৬ ফিট)
মোহনা
 - অবস্থান খাম্বাত উপসাগর, গুজরাট, ভারত
দৈর্ঘ্য ৩৭১ কিলোমিটার (২৩১ মাইল)
প্রবাহ
 - গড়  /s ft³/s) [১]
Discharge elsewhere (average)
 - আহমেদাবাদ  /s ft³/s) [২]
১৭৫২ খ্রিস্টাব্দে আহমেদাবাদ ও সাবরাটি নদীকে চিত্রিত করে হিমবাহ ফিলিপ বেলদাসের লিথোগ্রাফ
১৮৯০ সালে সবরমতি নদী
১৮৯০ খ্রিস্টাব্দে আহমেদাবাদের নিকটবর্তী সবরমতিতে ওয়াটারকার্ট
হারনভ দেখুন, সবরমতি নদীর উপনদী

সাবরমতী নদী [৩] ভারতের প্রধান প্রধান নদীগুলির একটি। [৩] এটি রাজস্থান এবং গুজরাটে দক্ষিণ-পশ্চিম দিকের দিক দিয়ে ৩৭১ কিলোমিটার প্রাবহিত হয়। নদীটি রাজস্থানের উদয়পুর জেলার আরাবল্লি পর্বত থেকে উৎপন্ন হয় এবং আরব সাগরের খাম্বাত উপসাগরের উপদ্বীপের সাথে মিলিত হয়। নদী দৈর্ঘ্যের ৪৮ কি.মি. রাজস্থান এবং ৩২৩ কি.মি. গুজরাটের মধ্যে প্রবাহীত ।

অববাহিকা[সম্পাদনা]

নদী উপত্যকাযটি বা অববাহীকাটির সর্বাধিক দৈর্ঘ্য ৩০০ কিমি এবং সর্বোচ্চ প্রস্থ ১০৫ কিলোমিটার । অববাহিকার মোট এলাকাটির পরিমান ২১৬৭৪ বর্গ কিমি , এর মধ্যে ৪১২৪ বর্গ কিলোমিটার রাজস্থান রাজ্যে অবস্থিত এবং বাকি ১৮৫৫০ বর্গ কিমি গুজরাট রাজ্যে অবস্থিত।[৪]

রাজস্থানের মধ্য-দক্ষিণ অংশে সবরমতি নদীর অববাহিকা অবস্থিত। পূর্বদিকে বানস ও মাহী নদী উপত্যকা, এর উত্তরটিতে লুনি নদী উপত্যকা এবং পশ্চিমে পশ্চিম বানজ উপত্যকা। এর দক্ষিণ সীমানা গুজরাটের রাজ্য সীমানা। উদ্যানপুর, সিরোহী, পালি এবং দুঙ্গারপুর জেলার অংশে সবরমতি নদী অববাহিকা বিস্তৃত। বেসিনের পশ্চিম অংশটি আরাবলী রেঞ্জের অন্তর্গত পাহাড়ের ভূমি দ্বারা চিহ্নিত। পাহাড়ের পূর্ব একটি মৃদু পূর্ব দিকে ঢালু সঙ্গে একটি সংকীর্ণ পলল সমতল ভূমি রয়েছে।[৪]

প্রধান উপনদীগুলি হলো সে, ওয়াকাল, ওয়াটারক, শেশী, হারনভ, গুহী, হাথমতী খারী, মেশু, মাজাম ও মোড়। সবরমতি উপত্যকায় গড় বার্ষিক জল পাওয়া ৩০৮ কিউবিক মিটার/ মাথাপিছু, যা ১৫৪৫ কিউবিক মিটার/ মাথা পিছু জাতীয় গড়ের চেয়ে উল্লেখযোগ্যভাবে কম। [৫]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

উৎপত্তিটি সম্পর্কে লৌক কথায় মূলতঃ বলা হয় শিব গঙ্গাকে গুজরাটে নিয়ে আসেন এবং এর ফলে সবরমতি আসেন।[৬]

গুজরাটের বাণিজ্যিক ও রাজনৈতিক রাজধানী আহমেদাবাদ এবং গান্ধীনগর সবরমতি নদীর তীরে অবস্থিত হয়। কিংবদন্তিটি হল গুজরাটের সুলতান আহমেদ শাহ, যে সবরমতি নদীর তীরে বিশ্রামে ছিল, তখন ১৪১১ সালে আহমেদাবাদ প্রতিষ্ঠা করার জন্য একটি কুকুরের পেছনে একটি খরগোশের সাহসিকতার দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন। নদীর তীরে সবরমতি এলাকার মৃত্তিকা হল সমৃদ্ধ।

ভারত স্বাধীনতা সংগ্রামের সময়, মহাত্মা গান্ধী এই নদীর তীরে বাসা করতেন। [৭]

সেন্ট্রাল পলিউশন কন্ট্রোল বোর্ড (সিপিবি) পদের অধীনে ন্যাশনাল ওয়াটার কোয়ালিটি প্রোগ্রামকে ভারতের সর্ববৃহৎ দূষিত নদীগুলির একটি হিসাবে সবরমতি নদী চিহ্নিত হয়েছে।[৮]

সবরমতি রিভারফ্রন্ট[সম্পাদনা]

বাঁধ[সম্পাদনা]

সবরমতি ও তার উপনদীতে বেশ কয়েকটি জলাধার রয়েছে। প্রধান নদীতে ধর্নোয় বাঁধ অবস্থিত। হাথমতী বাঁধ, হার্নান বাঁধ এবং গুহাই বাঁধ সৌরাষ্ট্র উপদ্বীপে অবস্থিত, প্রধান নদী উপকূলীয় অঞ্চলে অবস্থিত, মেশোভো জলাধার, মেশোভো পিক-আপ ওয়াইর, মাজাম বাঁধ এবং ওয়াটারক বাঁধ উপকূলবর্তী অঞ্চলে অবস্থিত। কল্পসর প্রকল্প খাম্বাখ উপসাগরে একটি পরিকল্পিত বাঁধ প্রকল্প।

ধারোই বাঁধ[সম্পাদনা]

ঊর্ধ্ব উপত্যকায় আচ্ছাদিত এলাকা এবং প্রধান নদী অবধি । ধারোই বাঁধের অববাহিকাটি ধারীই ঊর্ধ্ব-বেসিন নামে পরিচিত। ধারোই বাঁধ ১৯৭৮ সালে নির্মিত হয়। আহমেদাবাদ থেকে ১৬৫ কিমি উজানে মেহোসনক জেলায়র ধারোই ধারোই বাঁধ অবস্থিত। এই বাঁধের উজানে প্রধান নদীর সম্পূর্ন অংশ বাঁধটির বেসিন। বেসিনের ক্যাচমেন্ট এলাকাটি ৫৫৪০ বর্গ কিমি, যার মধওযে গুজরাটে ২৬৪০ বর্গ কিলোমিটারে অবস্থিত।

ছবি[সম্পাদনা]

সবরমতি নদীমুখ উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় নদীর কাছাকাছি নির্মাণ কাজ 
সবরমতি নদী আহমেদাবাদে, গুজরাট 

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Kumar, Rakesh; Singh, R.D.; Sharma, K.D. (১০ সেপ্টেম্বর ২০০৫)। "Water Resources of India"Current Science (Bangalore: Current Science Association) ৮৯ (৫): ৭৯৪–৮১১। সংগৃহীত ১৩ অক্টোবর ২০১৩ 
  2. "Sabarmati Basin Station: Ahmedabad"। UNH/GRDC। ৪ অক্টোবর ২০১৩-এ মূল থেকে আর্কাইভ 
  3. Water Year Book 2011-12: Mahi, Sabarmati & Other West Flowing Rivers। Gandhinagar: Central Water Commission। ২০১২। পৃ: 14। 
  4. "Sabarmati River, INDIA"। National River Conservation Directorate। 
  5. Integrated Hydrological Data Book। New Delhi: Central Water Commission। ২০১৬। পৃ: 1। 
  6. "The sacrificial maiden river"The Times of India। ২ সেপ্টেম্বর ২০০২। ১৯ এপ্রিল ২০১৫-এ মূল থেকে আর্কাইভ 
  7. "Sabarmati Ashram History" 
  8. River pollution plaguing Gujarat