সত্য প্রসাদ মজুমদার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সত্য প্রসাদ মজুমদার
উপাচার্য, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২৫ জুন ২০১৬
পূর্বসূরীসাইফুল ইসলাম
ব্যক্তিগত বিবরণ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
শিক্ষাপিএইচডি (ইইসি)
প্রাক্তন শিক্ষার্থীবাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়
ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি, খড়গপুর
পেশাউপাচার্য

সত্য প্রসাদ মজুমদার বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এর বর্তমান এবং বিশ্ববিদ্যালয়টির চতুর্দশ উপাচার্য[১][২][৩]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

সত্য প্রসাদ মজুমদার বুয়েট থেকে তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক কৌশল (ইইই) বিভাগে ১৯৮১ সালে স্নাতক ও ১৯৮৫ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৮১ সালে তিনি এই বিভাগে প্রভাষক পদে যোগদান করেন। ১৯৯১ সালে ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজি (আইআইটি), খাড়্গপুর থেকে ইলেকট্রিক অ্যান্ড ইলেকট্রনিক কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন।[১]

ছাত্র হিসেবে অসাধারণ কৃতিত্বের জন্য ৪ বছরের স্নাতককালীন তিনি মেধাবৃত্তি লাভ করেন।[৪] তিনি ১৯৮৫ সালে বুয়েট থেকে স্নাতকোত্তরে তার গবেষণার বিষয় ছিল মূলত মাইক্রোপ্রসেসর-নিয়ন্ত্রিত টেলিফোন শাখা এক্সচেঞ্জ।[৫] ১৯৮৭ সালে ভারত সরকার তাকে খড়গপুরের ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজিতে (আইআইটি) পিএইচডি শিক্ষার্থী হিসেবে ভর্তি হওয়ার জন্য বৃত্তি প্রদান করে এবং সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ট্রেনিং ইন রাডার অ্যান্ড কমিউনিকেশনস-এ ফাইবার অপটিক্স নিয়ে তার গবেষণা কাজ তিনি চালিয়ে যান। তিনি পারমা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক ইতালির জাতীয় গবেষণা পরিষদ (সিএনআর) থেকে টেলিযোগাযোগ প্রকল্পে পিএইচডি করার জন্য গবেষণা সহায়তা পেয়েছিলেন।[৬]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

উপাচার্যের দায়িত্ব পালনের পূর্বে তিনি প্রশাসনিক বিভিন্ন দায়িত্বে নিযুক্ত ছিলেন। তিনি বুয়েটের ছাত্রকল্যাণ পরিচালক ও ইইই বিভাগের বিভাগীয় প্রধানসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পর্যায়ে দায়িত্বপালন করেছেন।[১] ২৫ জুন ২০২০ তারিখে পূর্বের উপাচার্য সাইফুল ইসলামের স্থলে তাকে উপাচার্যের দায়িত্বে নিযুক্ত করা হয়।[৭] ছাত্রকল্যাণ পরিচালকের পদে তার দায়িত্বকাল সমাপ্তির পরে নতুন পরিচালক নিযুক্ত করলে এর বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করে।[৮]

বিতর্ক[সম্পাদনা]

বুয়েটে আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের পরে তৎকালীন উপাচার্য সাইফুল ইসলাম সাক্ষাৎকারে হলগুলোতে চলা র‍্যাগিং প্রসঙ্গে সত্য প্রসাদকে অত্যধিক নমনীয় বলে অভিহিত করেন, যে কারণে হলগুলোতে তিনি পরিচালক থাকা কালেও র‍্যাগিং সংক্রান্ত ঘটনা থামানো যায়নি।[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "বুয়েটের নতুন ভিসি অধ্যাপক সত্য প্রসাদ মজুমদার"যুগান্তর। ২৫ জুন ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০২০ 
  2. "বুয়েটে নতুন ভিসি সত্য প্রসাদ মজুমদার"ইত্তেফাক। ২৫ জুন ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০২০ 
  3. "বুয়েটের নতুন ভিসি অধ্যাপক সত্য প্রসাদ মজুমদার"সমকাল। ২৫ জুন ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০২০ 
  4. Directorate (ict.mist.ac.bd), MIST ICT (২০১৬-০১-২৭)। "Dr. Satya Prasad Majumder"Department of Electrical, Electronic and Communication Engineering (EECE)। ২০২০-০৬-২৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৬-২৫ 
  5. Majumder, S. P.; Rahman, S. M. (১৯৮৫)। "Microprocessor controlled telephone branch exchange"। Journal of the Bangladesh Computer Society 
  6. Majumder, Satya Prasad; Gangopadhyay, R. (১৯৯১)। "Performance of heterodyne optical OOK systems with coding"European Transactions on Telecommunications (ইংরেজি ভাষায়)। 2 (4): 453–457। আইএসএসএন 1541-8251ডিওআই:10.1002/ett.4460020412 
  7. "বুয়েটের নতুন ভিসি সত্য প্রসাদ মজুমদার"বাংলানিউজ২৪। ২৫ জুন ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০২০ 
  8. "বুয়েটে চতুর্থ দিন আন্দোলন চললেও আশ্বাস মেলেনি"প্রথম আলো। ১৯ জুন ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০২০ 
  9. "আমার ব্যর্থতা কোথায়: বুয়েট উপাচার্য"ডেইলি স্টার। ১৬ অক্টোবর ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০২০