শিধলকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
শিধলকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়
Shidhalkura High School
অবস্থান
,
তথ্য
ধরনমাধ্যমিক বিদ্যালয় ।
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৬৯ সাল
প্রধান শিক্ষকমোঃ দেলোয়ার হোসেন[১]
কর্মকর্তা২০ জন
শিক্ষার্থী সংখ্যা৭০০ প্রায়
ক্যাম্পাসগ্রামীণ
অন্তর্ভুক্তিঢাকা বোর্ড

শিধলকুড়া উচ্চ বিদ্যালয় বাংলাদেশের শরীয়তপুর জেলার একটি মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।[১][২]

প্রতিষ্ঠার পটভূমি[সম্পাদনা]

এই স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা আবুল কালাম শামসুদ্দীন; তিনি ডামুড্যা মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক ছিলেন। তখন ১৯৬৮ সাল, একদিন ওই স্কুলের এক মিটিং এ শিধলকুড়াতে স্কুল না থাকাতে কথা উঠে এবং সেদিন আবুল কালাম শামসুদ্দীন স্যার ওই স্কুল থেকে রিজাইন করে। তারপর শিধলকুড়ায় একটি উচ্চ বিদ্যালয় নির্মানের জন্য এলাকাবাসীর সাহায্য এবং নিজ চেষ্টায় ফান্ড তৈরি করে ১৯৬৯ সালে ছোট পরিসরে "শিধলকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়" গড়ে তুলে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

স্কুল ক্যাম্পাস[সম্পাদনা]

শিধলকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের পুর্ব পাশে শরীয়তপুর-গোসাইরহাট হাইওয়ে রোড, দক্ষিণ পাশে শিধলকুড়া বাজার রোড ও শিধলকুড়া ইউনিয়ন পরিষদ, উত্তর পাশে শিধলকুড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং পশ্চিম পাশে শিধলকুড়া নদী অবস্থিত। বর্তমানে এই বিদ্যালয়টি ৪ একর জায়গার উপর অবস্থিত।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

অবকাঠামো[সম্পাদনা]

বর্তমানে এই স্কুলে ৩ টি একাডেমিক ভবন রয়েছে। উত্তর পাশের নতুন ২ তলা ভবনে শ্রেণী পাঠ দান ছাড়াও প্রশাসনিক কাজ করা হয়। এছাড়াও স্কুলে একটি বিজ্ঞান ভবন রয়েছে যেখানে বিজ্ঞান বিভাগের ক্লাশ এবং ল্যাবের কাজ করা হয়। বিজ্ঞান ভবনের পাশের ভবনে রয়েছে ছাত্রী কমনরুম এবং একটি অডিটোরিয়াম রুম ।

শিক্ষকদের আবসনের জন্য রয়েছে ওয়েজ অনার্স বিল্ডিং।

মুল ভবন

লাইব্রেরী[সম্পাদনা]

স্কুলের ওয়েজ অনার্স ভবনের প্রথম রুমে একটি লাইব্রেরী রয়েছে। বর্তমানে এই লাইব্রেরীতে একজন লাইব্রেরিয়ান সহ ৫,০০০-এর বেশি বই রয়েছে। লাইব্রেরী থেকে শিক্ষার্থীরা নিয়মিত বই সংগ্রহের পাশাপাশি দৈনিক পত্রিকাও পড়তে পারে।

স্কুলের সুযোগ সুবিধা[সম্পাদনা]

হোস্টেল[সম্পাদনা]

স্কুলের পূর্ব পাশে একটি টিনসেট বিল্ডিংয়ে "শিধলকুড়া উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্রাবাস" অবস্থিত। এখানে মোট ৫ টি রুমে ২০ জন ছাত্রের থাকার ব্যবস্থা আছে। এখানে নিয়মিত শিক্ষকগন ছাত্রদের পড়াশোনার ব্যাপারে তদারকি করে থাকেন।

খেলার মাঠ[সম্পাদনা]

মূল একাডেমী ভবনের সামনেই সুপ্রস্থ খেলার মাঠ। যেখানে শিক্ষার্থীরা টিফিন পিরিয়ডে বা অবসর সময়ে ফুটবল, ভলিবল, ক্রিকেট, ব্যাটমিন্টন ইত্যাদি খেলে থাকে।

পুকুর[সম্পাদনা]

ছাত্রাবাসের পিছনের দিকে দীর্ঘ একটি পুকুর আছে। এখানে আবাসিক ছাত্রসহ বাজারের ব্যবসায়ীগন গোসল করে থাকে।

এই পুকুরটি লিজ প্রধানের মাধ্যমে স্কুল কর্তৃপক্ষ ভালো একটি ফান্ড গঠন করে যা দিয়ে বিদ্যালয়ের উন্নয়ন মুলক কাজ করা হয়।

সহশিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

শিধলকুড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের সহশিক্ষা কার্যক্রম চালু রয়েছে:

  • স্কাউট - বাংলাদেশ স্কাউটস-এর অধীনে এই স্কুলে একটি স্কাউট ইউনিট রয়েছে।
  • রেড ক্রিসেন্ট - বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি-এর অধীনে এই স্কুলে একটি রেড ক্রিসেন্ট ইউনিট রয়েছে।

প্রতি বছর এই স্কুলে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও বাংলা নববর্ষের অনুষ্ঠান উদযাপিত হয়। এছাড়াও বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডও এখানে দেখা যায়। ২১শে ফেব্রুয়ারি, ৭ই মার্চ, ২৫মার্চ,১৬ ডিসেম্বরের প্রোগ্রাম করা হয় প্রতি বছর।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]