বিষয়বস্তুতে চলুন

রোজি ইউনুস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
রোজি ইউনুস
সারাওয়াক রাজ্যের নারী, পরিবার ও শৈশব উন্নয়ন বিষয়ক উপমন্ত্রী
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২৮ সেপ্টেম্বর ২০১১
মন্ত্রীফাতিমাহ আব্দুল্লাহ
গভর্নরআবাং মুহাম্মাদ সালাহউদ্দিন
আব্দুল তাইব মাহমুদ
মুখ্যমন্ত্রীআব্দুল তাইব মাহমুদ
আদেনান সাতেম
আভাং আব্দুল রহমান জোহরি আবাং ওপেং
পূর্বসূরীপদ প্রতিষ্ঠিত
সংসদীয় এলাকাবেকেনু
মিরি বন্দর কর্তৃপক্ষ প্রধান
কাজের মেয়াদ
২০০৮ – ২০১১
উত্তরসূরীপালু
বেকেনু আসনের
সারাওয়াক বিধানসভা পরিষদ সদস্য
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২০ মে ২০০৬
পূর্বসূরীআসন প্রতিষ্ঠিত
সংখ্যাগরিষ্ঠ৩,০৭২ (২০০৬)
৩,৭১৪ (২০১১)
৪,৭৮৯(২০১৬)
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1956-01-16) ১৬ জানুয়ারি ১৯৫৬ (বয়স ৬৮)
নাগরিকত্বমালয়েশীয়
রাজনৈতিক দলপ্রগ্রেসিভ ডেমোক্রেটিক পার্টি
ইউনাইটেড বুমিপুতেরা হেরিটেজ পার্টি
অন্যান্য
রাজনৈতিক দল
বারিসান ন্যাশিওনাল
সারাওয়াক পার্টিজ অ্যালায়েন্স
বাসস্থানবেকেনু, সিবুতি, মিরি, সারাওয়াক, মালয়েশিয়া
প্রাক্তন শিক্ষার্থীমালয়া বিশ্ববিদ্যালয়
পেশারাজনীতিবিদ
জীবিকাশিক্ষক

রোজি বিনতি হাজি ইউনুস হলেন একজন মালয়েশীয় রাজনীতিবিদ, যিনি ইউনাইটেড বুমিপুতেরা হেরিটেজ পার্টির রাজনীতির সাথে যুক্ত আছেন। তিনি সারাওয়াক বিধানসভার বেকেনু আসনের বিধায়ক। তিনি বর্তমানে সারাওয়াক রাজ্যের নারী, পরিবার ও শৈশব উন্নয়ন বিষয়ক উপমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

জীবনী[সম্পাদনা]

রোজি ইউনুস মালয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেছেন। তাছাড়া, তিনি ১৯৮০ সালে শিক্ষায় ডিপ্লোমা করেছেন।[১]

২০০৬ সালে সারাওয়াত রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে বেকেনু আসন থেকে তিনি বিধায়ক নির্বাচিত হন। ২০১১ সালে তিনি আবারো বেকেনু আসন থেকে সারাওয়াত রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে দাঁড়ান। এবারো তিনি বিধায়ক হিসেবে নির্বাচিত হন।[২] এবার তিনি সারাওয়াক রাজ্যের মন্ত্রিসভায় নারী, পরিবার ও শৈশব উন্নয়ন বিষয়ক উপমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত হন। ২০১৪ সালে তিনি দল পরিবর্তন করেন। তিনি প্রগ্রেসিভ ডেমোক্রেটিক পার্টি থেকে ইউনাইটেড বুমিপুতেরা হেরিটেজ পার্টিতে যোগ দেন।[৩] ২০১৬ সালের সারাওয়াকের রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে টানা তৃতীয়বারের মত তিনি বেকেনু থেকে নির্বাচিত হন।[৪]

সম্মাননা[সম্পাদনা]

  • বেসামরিক প্রশাসন রৌপ্যপদক সারাওয়াক[১]
  • অর্ডার অব দ্য স্টার অব হর্নবিল সারাওয়াক[১][৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "LAMAN WEB PERKHIDMATAN"। PEJABAT PUSAT KHIDMAT WAKIL RAKYAT BARISAN NASIONAL N.71 BEKENU। ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  2. "Federal Government Gazette - Results of Contested Election and Statements of the Poll after the Official Addition of Votes Sarawak [P.U. (B) 245/2011]" (পিডিএফ)। Attorney General's Chambers of Malaysia। ২৯ এপ্রিল ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৪-৩০ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. "Sarawak: Sembilan ADUN, dua ahli Parlimen tinggalkan parti" (Malay ভাষায়)। Astro Awani। ১৫ মে ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  4. "Senarai Calon yang Disahkan Layak Bertanding Pilihan Raya Dewan Undangan Negeri ke-11"। Election Commission of Malaysia। ২৫ এপ্রিল ২০১৬। ২০১৬-০৪-২৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৪-৩০ 
  5. "Sarawak Yang DiPertua Negeri's Birthday Honours list 2010"The Star (Malaysia)। ১৯ অক্টোবর ২০১০। ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯