রাতসাসান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
রাতসাসান
বঙ্গ বিডি প্লাটফর্মে মুক্তির পোস্টার
পরিচালকরাম কুমার
প্রযোজকজি. দিল্লি বাবু
আর. শ্রী ধর
রচয়িতারাম কুমার
কাহিনিকাররাম কুমার
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারঘিব্রান
চিত্রগ্রাহকপিভি শঙ্কর
সম্পাদকস্যাম লোকেশ
প্রযোজনা
কোম্পানি
অ্যাক্সেস ফিল্ম ফ্যাক্টরি
পরিবেশকট্রাইডেন্ট আর্টস
স্কাইলার্ক এন্টারটেইনমেন্ট
মুক্তি৫ অক্টোবর, ২০১৮
স্থিতিকাল১৪৫ মিনিট
দেশভারত
ভাষাতামিল
আয়₹ ১০০ কোটি[১]

রাতসাসান (তামিল: ராட்சசன்; বাংলা: রাক্ষস) ২০১৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত তামিল ভাষার সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার চলচ্চিত্র । ছবিটি পরিচালনা করেছেন রাম কুমার। প্রধান চরিত্রে বিষ্ণু বিশাল এবং অমলা পাল ছাড়াও রয়েছে সারাভানান, কালি ভেঙ্কট, রাম দোস প্রমুখ অভিনেতারা। গল্পের নায়ক চলচ্চিত্র নির্মাতা হওয়ার স্বপ্নে বিভোর এক যুবক, বাবার মৃত্যুর পর সে পুলিশে যোগ দেয়। এমন সময় শহরে পাওয়া যেতে থাকে একের পর এক স্কুলপড়ুয়া কিশোরীদের লাশ। এই সিরিয়াল কিলারকে থামাতে মাঠে নামে সে।

ছবিটির ফিচার সঙ্গীত এবং আবহ সঙ্গীত আয়োজন করেছেন ঘ্রিবান, দৃশ্যায়ন করেছেন পিভি শঙ্কর এবং সম্পাদনা করেছেন স্যাম লোকেশ।নির্মাণ শুরু হয় ২০১৮ এর নভেম্বরে ছবিটি ৫ই অক্টোবর, ২০১৮ তে। মূল দৃশ্যায়ন শুরু হয় ২০১৭ এর জুনে। মুক্তি পায়, দর্শকমন্ডলী সাদরে গ্রহণ করে। ছবিটি বাণিজ্যিক সফলতা পায়, বিশ্বব্যাপী প্রায় ১০০ কোটি রুপি আয় করে। আইএমডিবিতে ২০১৮ এর সেরা ভারতীয় চলচ্চিত্রের তালিকায় ছবিটি #২ এ স্থানলাভ করে।[২]

ব্যাপক সফলতার ফলে রাতসাসান তেলুগু ভাষাতে রাক্ষাসুদু (২০১৯) নামে পুনর্নির্মিত হয়। রমেশ ভর্মার পরিচালনায় বেল্লামকোনডা শ্রীনিবাসন এবং অনুপমা পরমেশ্বরন ছবিটিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন।

নাম ভূমিকায়[সম্পাদনা]

  • সাব ইন্সপেক্টর অরুণ কুমার - বিষ্ণু বিশাল
  • বিজয়লক্ষ্মী - অমলা পাল
  • ক্রিস্টোফার এবং মেরি ফার্নান্দেজ/ অ্যানাবেলা জর্জ - সারাভানান
  • ভেঙ্কট - কালি ভেঙ্কট
  • আম্মু - আম্মু অভিরামী
  • দোস; অরুণের ভগ্নিপতি এবং আম্মুর বাবা - রাম দোস
  • কোকিলা; অরুণের বোন এবং আম্মুর মা - বিনোদিনী বৈদ্যনাথান
  • অরুণের মা - ইউশা এলিজাবেথ
  • এসিপি লক্ষ্মী - সুজ্যান জর্জ
  • ড. নাথান - নিঝালগল রবি
  • অরুণদের বাড়িওয়ালা - সাঙ্গিলি মুরুগান
  • সানজানা ও সঙ্গীতা - ত্রিশালা
  • মীরা - প্রিয়া
  • সোফি - রাঘবি রেণু
  • গজারাজ; সিনিয়র পুলিশ অফিসার - গজরাজ
  • অনবরেষু, পুলিশ অফিসার - জয় আনন্দ
  • সাইমন; পুলিশ অফিসার - থাঙ্গাম পরমন্থম
  • পুষ্পপতি; পুলিশ অফিসার - পুষ্পপতি
  • আমুধার বাবা - রবিশঙ্কির
  • আমুধার মা - রেখা পদ্মানাবন
  • ইন্সপেক্টর ধ্রুব রাজ - সঞ্জয়
  • শর্মি; আম্মুর ক্লাসমেট - রবিনা দাহ
  • ইন্সপেক্টর রাজমনিক্কম (ক্যামেরা অ্যাপেয়ার‍্যান্স) - রাধা রবি
  • মুহাম্মদ ঘ্রিবানের ক্যামিও

কাহিনী[সম্পাদনা]

সিনেমার শুরুতে অরুন কুমার নামের একজন তরুণকে দেখা যায় যারা স্বপ্ন সাইকোপ্যাথ নিয়ে সিনেমা নির্মাণ করবেন। কিন্তু স্ক্রিপ্ট নিয়ে অনেক প্রযোজক-পরিচালকের কাছে গেলেও কোথাও সাড়া মেলেনি সেভাবে তাই অনেকটা বাধ্য হয়েই নিজের স্বপ্নকে বিসর্জন দিয়ে পুলিশে জয়েন করেন অরুণ। ঠিক সেই সময় শহরে একের পর এক স্কুলছাত্রীর নিশংস মরদেহ উদ্ধার হতে থাকে। মরদেহের পাশে আবার একটি করে গিফট বক্স পাওয়া যায় এসব কিসের তদন্তে যুক্ত হন অরুণ কুমার। কিন্তু তিনি কি পারবেন সেই সাইকো কিলারকে থামাতে? তার সিনেমার স্ক্রিপ্ট লেখার অভিজ্ঞতা কি কোনো কাজে আসবে এখানে? কেনই বা সেই সাইকো কিলার বেছে বেছে স্কুল পড়ুয়া ছাত্রীদের হত্যা করছেন কিংবা তার গিফট বক্স পাঠানোর উদ্দেশ্যই বা কি? এসব প্রশ্নের উত্তর মিলবে সিনেমার একদম শেষে রক্ত হিম করা টানটান থ্রিলার সিনেমাটি আপনার হৃদযন্ত্রের যে বড় একটি পরীক্ষা নেবে সে ব্যাপারে কোন সন্দেহ নেই।

পুননির্মাণ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Nithiin to reprise Vishnu Vishal in the Telugu remake of 'Ratsasan'? - Times of India"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  2. "Andhadhun beat Tamil psycho-thriller Ratsasan to top the list of IMDb's top 10 Indian movies of 2018!"www.timesnownews.com। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]