যদুনাথ বসু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
যদুনাথ বসু
জন্ম(১৮৩৬-১০-১৩)১৩ অক্টোবর ১৮৩৬
মৃত্যু২ মে ১৯০২(1902-05-02) (বয়স ৬৫)
পিতা-মাতানন্দদুলাল বসু (পিতা)
স্বরূপমণি বসু (মাতা)

যদুনাথ বসু (ইংরেজি: Jadunath Bose ) (১৩ অক্টোবর, ১৮৩৬ - ২ মে, ১৯০২) ছিলেন বৃটিশ ভারতে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম দুজন গ্র্যাজুয়েটের অন্যতম। অপরজন বঙ্কিমচন্দ্র [১]

জন্ম ও শিক্ষা জীবন[সম্পাদনা]

যদুনাথ বসুর জন্ম বৃটিশ ভারতের অধুনা পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার শুকদেবপুর গ্রামে। পিতা নন্দদুলাল ও মাতা স্বরূপমণি। শৈশবেই তার পিতৃবিয়োগ ঘটে। পড়াশোনা শুরু গ্রামে মায়ের কাছে। প্রাথমিক পাঠ লাভের পর কলকাতার গুরুপ্রসাদ চৌধুরী লেনে পৈতৃক বাড়িতে আসেন এবং হিন্দু কলেজ ব্রাঞ্চ স্কুলে ভরতি হন। পড়াশোনায় মেধাবী ছিলেন যদুনাথ। প্রতি বছর বৃত্তি পেয়ে জুনিয়র পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। ১৮৫৭ খ্রিস্টাব্দে জানুয়ারি মাসে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা হয় এবং ওই বছরেই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এন্ট্রান্স বা প্রবেশিকা পরীক্ষা প্রবর্তন করেন। যদুনাথ প্রথম বিভাগে এন্ট্রান্স পাশ করেন। পরের বছর ১৮৫৮ খ্রিস্টাব্দে প্রথমবারের মতো বি.এ. পরীক্ষা নেওয়া হয়। মোট দশজন ছাত্র প্রথমবারে পরীক্ষা দিয়েছিলেন। উত্তীর্ণ হয়েছিলেন কেবলমাত্র বঙ্কিমচন্দ্র ও যদুনাথ বসু।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

বঙ্গীয় সরকারের সেক্রেটারি মি ইয়ং দেশের প্রথম দুই গ্র্যাজুয়েটকে ডেপুটি ম্যাজিসেট্রটের পদে চাকরি দেন। যদুনাথ দীর্ঘ চৌত্রিশ বৎসর যোগ্যতার সাথে কাজ করে ১৮৯২ খ্রিস্টাব্দে কৃষ্ণনগরের ডেপুটি ম্যাজিসেট্রটরূপে অবসর গ্রহণ করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. সুবোধ সেনগুপ্ত ও অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান, প্রথম খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, আগস্ট ২০১৬, পৃষ্ঠা ৫৯৯, আইএসবিএন ৯৭৮-৮১-৭৯৫৫-১৩৫-৬