মৃণালিনী দত্ত মহাবিদ্যাপীঠ

স্থানাঙ্ক: ২২°৩৯′৫৫″ উত্তর ৮৮°২৫′১৭″ পূর্ব / ২২.৬৬৫৩৮৩২° উত্তর ৮৮.৪২১২৭৮৪° পূর্ব / 22.6653832; 88.4212784
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মৃণালিনী দত্ত মহাবিদ্যাপীঠ
Mdmbirati.jpg
মৃণালিনী দত্ত মহাবিদ্যাপীঠ, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১
ধরনস্নাতক ও স্নাতকোত্তর কলেজ
স্থাপিত৫ মার্চ ১৯৬৪; ৫৮ বছর আগে (5 March 1964)
অধ্যক্ষড. অপূর্ব বন্দ্যোপাধ্যায়
অবস্থান, ,
৭০০০৫১
,
২২°৩৯′৫৫″ উত্তর ৮৮°২৫′১৭″ পূর্ব / ২২.৬৬৫৩৮৩২° উত্তর ৮৮.৪২১২৭৮৪° পূর্ব / 22.6653832; 88.4212784
শিক্ষাঙ্গনবিরাটি শহর
অধিভুক্তিপশ্চিমবঙ্গ রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়, বারাসাত
ওয়েবসাইটwww.mdmbirati.org

মৃণালিনী দত্ত মহাবিদ্যাপীঠ ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগণা জেলার বিরাটি শহরের একটি উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এই কলেজটি পশ্চিমবঙ্গ রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীর্ভূক্ত।[১] কলেজটি ১৯৬৪ সালের ৫ মার্চ প্রতিষ্ঠিত[২] এবং বহুদিন পূর্বেই কলেজটি তার যাত্রাপথের ৫০ বছর পূর্ণ করেছে।[৩]

অবস্থান[সম্পাদনা]

মৃণালিনী দত্ত মহাবিদ্যাপীঠ ভারতের পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যের উত্তর ২৪ পরগণা জেলার বিরাটী অঞ্চলে অবস্থিত।

পাঠদান স্তর[সম্পাদনা]

এই মহাবিদ্যালয়ে কলা, বিজ্ঞান এবং বাণিজ্য - এই তিনটি বিভাগেই পড়ানো হয়। এই কলেজে "বাংলা ভাষা ও সাহিত্য" বিভাগে স্নাতকোত্তর স্তরে পড়ানোর ব্যবস্থা চালু রয়েছে।

কলা বিভাগ[সম্পাদনা]

বাংলা বিভাগ (স্নাতক ও স্নাতকোত্তর)[সম্পাদনা]

বাংলা বিভাগের পাঁচ অধ্যাপক, মৃণালিনী দত্ত মহাবিদ্যাপীঠ

বাংলা বিভাগ হল মৃণালিনী দত্ত মহাবিদ্যাপীঠের প্রাচীনতম বিভাগগুলির মধ্যে একটি, যেটি শুধুমাত্র ১৯৬৪ সালে কলেজ প্রতিষ্ঠার দিন থেকে পাস কোর্সের মাধ্যমে যাত্রা শুরু করেছিল। অনার্স কোর্সটি ১৯৬৮ সালে চালু করা হয়েছিল, তারপর ২০১৪ সালে স্নাতকোত্তর কোর্স চালু হয়।

এই বিভাগটি মৃণালিনী দত্ত মহাবিদ্যাপীঠের প্রথম বিভাগ যা ২০১৪-১৫ সেশন থেকে বাংলায় স্নাতকোত্তর কোর্স অর্থাৎ M. A. চালু করে। বিশিষ্ট শিক্ষাবিদদের নিয়মিত পরিদর্শন যেমন

  • প্রাবন্ধিক কানাইলাল দত্ত (একাডেমি পুরস্কারে

পুরস্কৃত)

  • ড. বিশ্ববন্ধু ভট্টাচার্য - B.U.
  • ড. পিনাকেশ সরকার - J.U.
  • ড. জ্যোতির্ময় ঘোষ - C.U.
  • সাইফুল্লাহ আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়
  • শ্রী সুশোভন অধিকারী - বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় (শান্তিনিকেতন)
  • প্রচেত গুপ্ত - কথাসাহিত্যিক ও প্রাবন্ধিক

প্রমুখ বিশেষজ্ঞদের সাথে নিয়মিত ছাত্র সমৃদ্ধি অনুষ্ঠান ও সেমিনারের আয়োজন করা হয়। বিভাগীয় অধ্যাপক ড. সুব্রত রায়চৌধুরী খবর ৩৬৫' থেকে কবি হিসেবে পুরস্কার পেয়েছেন; 'অহর্নিশ' এবং 'নগরের কথা' থেকে 'দ্য ব্রেভ' এবং অসংখ্য স্বীকৃতি পেয়েছেন।[৪] লাইব্রেরিতে এই বিভাগের সংগ্রহে রয়েছে ৭০০০ টিরও বেশি বই।

ইংরেজি বিভাগ[সম্পাদনা]

ইংরেজি বিভাগ, মৃণালিনী দত্ত মহাবিদ্যাপীঠ

১৯৬৪ সালের ৫ মার্চ কলেজের সূচনার সাথে সাথে ইংরেজি বিভাগের যাত্রা শুরু হয়। ১৯৯৮ সালে অনার্স কোর্স চালু হওয়ায় বিভাগে একটি নতুন অধ্যায় যুক্ত হয়।

সংস্কৃত বিভাগ[সম্পাদনা]

বিভাগীয় অনুষ্ঠান ও পরীক্ষাকেন্দ্র, সংস্কৃত বিভাগ, মৃণালিনী দত্ত মহাবিদ্যাপীঠ

সংস্কৃত বিভাগটি ১৯৭১ সালে শুরু হয় এবং পরবর্তীকালে ২০০২ সালে অনার্স কোর্স চালু করা হয়। শিক্ষার্থীদের শেখার উন্নতির জন্য বিশিষ্ট শিক্ষাবিদদের বক্তৃতা ও সেমিনারের আয়োজন করা হয়। কলেজের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার এবং বিভাগীয় গ্রন্থাগারে সংস্কৃত বিষয়ক প্রায় ১০০০ এর বেশি পাঠ্য ও সহায়ক বই রয়েছে। সংস্কৃত আবৃত্তি শেখানো হয় যাতে শিক্ষার্থীরা স্লোক ও মন্ত্রের প্রতি আগ্রহ পায়।

  • ভূগোল
  • ইতিহাস
  • রাষ্ট্রবিজ্ঞান
  • শিক্ষাবিজ্ঞান
  • দর্শন
  • সমাজবিদ্যা
  • সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ

বিজ্ঞান বিভাগ[সম্পাদনা]

  • নৃবিদ্যা
  • রসায়ন
  • পদার্থবিদ্যা
  • গণিত
  • উদ্ভিদবিদ্যা
  • প্রাণীবিদ্যা
  • কম্পিউটার বিজ্ঞান[৫]

সুযোগ-সুবিধাসমূহ[সম্পাদনা]

কলেজটিতে প্রায় ৫০,০০০ বইয়ের একটি লাইব্রেরি রয়েছে। ছাত্রছাত্রীদের সুবিধার জন্য এখানে রয়েছে এনএসএস ইউনিট।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Affiliated College of West Bengal State University"। ২৯ অক্টোবর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ আগস্ট ২০১৫ 
  2. "Mrinalini Datta Mahavidyapith"www.mdmbirati.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৭-০২ 
  3. "Colleges in West Bengal, University Grants Commission"। ১৬ নভেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ আগস্ট ২০১৫ 
  4. "সুব্রত রায়চৌধুরী"উইকিপিডিয়া। ২০২২-০৭-০২। 
  5. "Mrinalini Datta Mahavidyapith"www.mdmbirati.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০৭-০২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]