মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ
মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চের লোগো.png
মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চের লোগো
গঠিত২৪ ডিসেম্বর ২০০২ (২০ বছর আগে) (2002-12-24)
যে অঞ্চলে
ভারত
মূল ব্যক্তিত্ব
ইন্দ্রেশ কুমার
প্রধান প্রতিষ্ঠান
রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ
স্বেচ্ছাকর্মী
১০,০০০[১]
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট

মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ (ইংরেজি: Muslim Rashtriya Manch, সংক্ষেপে MRM; বঙ্গানুবাদ: মুসলিম জাতীয় ফোরাম) ভারতের একটি মুসলিম সংগঠন। সংগঠনটি হিন্দু জাতীয়তাবাদী রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ (আরএসএস) দ্বারা অনুপ্রাণিত। এটি ২০০২ সালে তৎকালীন আরএসএস প্রধান কে এস এর উপস্থিতিতে গঠিত হয়। ভারতের মুসলিম সম্প্রদায়ের সাথে সংলাপ বাড়াতে সংগঠনটি অভাবনীয় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।[১]

মতাদর্শ এবং সক্রিয়তা[সম্পাদনা]

ভারতে মুসলিম সম্প্রদায়কে হিন্দুদের কাছাকাছি আনার উদ্দেশ্য নিয়ে এমআরএম (MRM) প্রতিষ্ঠিত হয়। এটি বলে যে আরএসএস এবং এর সহযোগীদের মুসলিমদের সম্পর্কে ভুল ধারণা রয়েছে এবং ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস মুসলিম ও হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যকার সম্প্রীতি ভাঙনের জন্য দায়ী।[১] গো-হত্যা নিষিদ্ধসহ আরএসএস (RSS) দ্বারা সমর্থন করা অনেক কার্যকলাপের প্রতিও এমআরএম (MRM) সমর্থন প্রকাশ করেছে।[১] এর জাতীয় আহ্বায়ক, মোহাম্মদ আফজাল বলেন যে "আরএসএস গোধরা ট্রেন পোড়ানো এবং ২০০২ সালের গুজরাত দাঙ্গার পরের দিনগুলোতে উল্লেখযোগ্য প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিল।"[২]

২০০৯ সালের নভেম্বরে জমিয়ত উলেমা-ই-হিন্দ, ভারতের বৃহত্তম ইসলামী সংগঠনগুলির মধ্যে একটি, বন্দে মাতরমকে একটি অনৈসলামিক স্লোগান হিসাবে বর্ণনা করে একটি প্রস্তাব পাস করে। এমআরএম এর বিরোধিতা করে। আফজাল বলেন "আমাদের মুসলিম ভাইদের ফতোয়া অনুসরণ করা উচিত নয় কারণ বন্দে মাতরম দেশের জাতীয় স্লোগান এবং প্রতিটি ভারতীয় নাগরিকের এটিকে সম্মান করা এবং পাঠ করা উচিত।" এমআরএম আরও বলেছে যে মুসলমানরা যারা এটি পাঠ করতে অস্বীকৃতি জানায় তারা ইসলাম এবং ভারত উভয়েরই শত্রু।[৩][৪] আগস্ট ২০০৮ সালে, এমআরএম অমরনাথ তীর্থযাত্রার জন্য জমি বরাদ্দের সমর্থনে দিল্লির লাল কেল্লা থেকে কাশ্মীর পর্যন্ত একটি পয়ঘম-ই-আমান (শান্তি বার্তা) যাত্রার আয়োজন করে। ঝাড়খণ্ড শাহী-ইমাম মাওলানা হিজব রেহমান মের্থির নেতৃত্বে, যাত্রার ৫০ কর্মীকে প্রথমে জম্মু ও কাশ্মীরের সীমান্তে থামানো হয়ে। পরে তাদের জম্মু যেতে দেওয়া হয় এবং সেখানে তারা "শ্রী অমরনাথ সংগ্রাম সমিতি" এর সাথে বৈঠক করে। [৫][৬][৭] ২০০৯ সালের নভেম্বরে, এমআরএম সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে মুম্বাইয়ের গেটওয়ে অফ ইন্ডিয়ার দিকে নিয়ে যাওয়ার জন্য একটি তিরাঙ্গা যাত্রার (জাতীয় পতাকার সম্মানে পদযাত্রা) আয়োজন করে। এক হাজার স্বেচ্ছাসেবক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে শপথ নেয় এবং তারা নিজ জেলায় এর বিরুদ্ধে অভিযান চালানোর অঙ্গীকার করে।[৭] ২০১২ সালের সেপ্টেম্বরে, এমআরএম ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ প্রত্যাহার করার জন্য একটি স্বাক্ষর প্রস্তাবের আয়োজন করে। এই প্রস্তাবে ৭০০,০০০ স্বাক্ষর সংগ্রহ করেছে বলে দাবি করে।[৮]

২০১৪ সালের সাধারণ নির্বাচনে, এমআরএম ভারতীয় জনতা পার্টির প্রার্থী নরেন্দ্র মোদির পক্ষে প্রচারণা চালায়। আফজাল বলেন যে এমআরএম নির্বাচনের আগে ৫ কোটি মুসলমানদের কাছে বিজেপির পক্ষে বার্তক পৌঁছানোর চেষ্টা করবে।[২] গুজরাতের দাঙ্গায় মোদির জড়িত থাকার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে আফজাল বলেন:

সংগঠনটি তাদের মতামত প্রকাশ করেছে যে ধর্মের সাথে 'যোগ আসন'-এর কোনো সম্পর্ক নেই। তারা আরও বলে যে "নামাজ হলো এক ধরনের যোগ আসন"। এই পদক্ষেপটি ভারতের কেন্দ্রীয় আয়ুর্বেদ, যোগ এবং প্রাকৃতিক চিকিৎসা, ইউনানি, সিদ্ধ এবং হোমিওপ্যাথি (আয়ুষ) মন্ত্রণালয় দ্বারা সমর্থিত ছিল তবে হিন্দু গোষ্ঠীগুলো এ মতবাদে সংহতি প্রকাশ করে॥[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Raza, Danish (১৮ জানুয়ারি ২০১৪)। "The saffron Muslim"Hindustan Times। ১৯ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০১৪ 
  2. Dahat, Pavan (৩ মার্চ ২০১৪)। "Follow your conscience: RSS to appeal to Muslims"The Hindu। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১৪ 
  3. Sat D. Sharma (১ মে ২০১২)। India Marching: Reflections from a Nationalistic Perspective। iUniverse। পৃষ্ঠা 199। আইএসবিএন 978-1-4759-1423-8 
  4. "Muslim organisation slams Vande Mataram fatwa"The Indian Express। নভে ৯, ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ১৬ এপ্রিল ২০১৪ 
  5. "Welcome to MRM"। ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০১৪ 
  6. "Curfew lifted in Poonch, Kathua, relaxed in 4 districts"Outlook। ১০ আগস্ট ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-১০-০৫ 
  7. "Pro-RSS Muslims take anti-terror vow"Hindustan Times। ১৯ নভেম্বর ২০০৯। ৬ অক্টোবর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-১০-০৫ 
  8. "7 lakh Muslims have signed up for revoking Art 370: RSS outfit"Indian Express। ২৯ ডিসেম্বর ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-১০-০৫ 
  9. Govt. pushes yoga’s universal appeal, Ministry releases book, The Hindu, 18 June 2015.

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • অ্যান্ডারসেন, ওয়াল্টার; দামলে, শ্রীধর ডি. (২০১৯), "মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ", হিন্দু জাতীয়তাবাদের বার্তাবাহক: কীভাবে আরএসএস ভারতকে তথাকথিত নতুন রূপ দিয়েছে, হার্স্ট, পৃষ্ঠা ৯২–, আইএসবিএন 978-1-78738-289-3