মুসলিম নারী (বিবাহ সংক্রান্ত অধিকার সুরক্ষা) বিল, ২০১৮

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মুসলিম নারী (বিবাহ সংক্রান্ত অধিকার সুরক্ষা) বিল, ২০১৮
Emblem of India.svg
বিবাহিত মুসলিম নারীর অধিকার রক্ষার জন্য এবং তাদের স্বামীদের দ্বারা মৌখিক তালাক দেওয়ার মাধ্যমে তালাককে নিষেধাজ্ঞা নিষিদ্ধ করা এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলির সাথে সম্পর্কিত বা আনুষঙ্গিক বিষয়গুলি সরবরাহ করার জন্য বিল
সূত্র১৮১ নং বিল, ২০১৮ "Bill as passed in lok sabha" (PDF) 
বিবেচনাকারীভারতীয় সংসদ
Date passed২৭ ডিসেম্বর ২০১৮
আইনের দৃষ্টান্তরূপ উল্লেখ১৮১ নং বিল, ২০১৮
উপস্থাপনকারীরবি শংকর প্রসাদ, আইন ও বিচার মন্ত্রণালয় (ভারত)
সাংকেতিক লিপি
ভারতে তিন তালাক
অবস্থা: অজানা

অগ্রদূত[সম্পাদনা]

সুপ্রিম কোর্টের রায়[সম্পাদনা]

ভারতের সুপ্রীম কোর্ট, "তিন তালাক"কে অসাংবিধানিক ঘোষণা করেছেন। ভারত মোদির সরকারকে মুসলমান সম্প্রদায়ের বিয়ে ও বিবাহবিচ্ছেদ পরিচালনার আইন প্রণয়ন করতে বলেছে। ২২ আগস্ট ২০১৭ তারিখে ভারতে এই তথ্য প্রকাশিত হয়েছিল।[১]

মুসলিম নারী (বিয়ে সংক্রান্ত অধিকার সুরক্ষা) বিল, ২০১৭[সম্পাদনা]

২8 ডিসেম্বার ২০১৭-এ, সুপ্রিম কোর্ট এই আদেশ দেয় এবং ভারতে তাৎক্ষনিক তিন তালাকের একাধিক মামলা উদ্ধৃত করে।[২] মোদির সরকার মুসলিম নারী (বিয়ে সংক্রান্ত অধিকার সুরক্ষা) বিল, ২০১৭ বিল প্রণয়ন করে।[৩] এই বিলটি কথিত, লিখিতভাবে বা ইমেল, এসএমএস এবং ইনস্ট্যান্ট ম্যাসেঞ্জারগুলির মতো ইলেকট্রনিক উপায়ে তাৎক্ষনিক তিন তালাক (তালাক-ই-বিদাত) অবৈধ এবং অকার্যকর করে। স্বামীর জন্য তিন বছরের কারাদণ্ডের শাস্তি রয়েছে।এই বিলটি লোকসভায় পাস করা হয়েছিল[৪], কিন্তু বিরোধী দলীয় বিরোধীরা রাজ্যসভায় বাধা দেয়।[৫]

মুসলিম নারী (বিয়ে সংক্রান্ত অধিকার সুরক্ষা) অধ্যাদেশ, ২০১৮[সম্পাদনা]

২০১৮ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর, এসসি সত্ত্বেও তৎকালীন তিন তালাকের অভ্যাস অব্যাহত ছিল উদ্ধৃত করে, তাই সরকার এই আইনটি অবৈধ এবং বাতিল করার জন্য একটি অধ্যাদেশ জারি করে।[৬].

মুসলিম নারী (বিবাহ সংক্রান্ত অধিকার সুরক্ষা) বিল, ২০১৮[সম্পাদনা]

আইনত, পুনর্বিবেচনার ছয় সপ্তাহের মধ্যে সংসদ যদি তাদের অনুমোদন না দেয় বা উভয় কক্ষ দ্বারা গৃহীত সিদ্ধান্ত বাতিল না করেও একটি অধ্যাদেশ পরিচালনা করতে পারে।মুসলিম নারী (বিয়ে সংক্রান্ত অধিকার সুরক্ষা) বিল, ২০১৭ কে প্রতিস্থাপিত করার জন্য লোকসভায় আইন মন্ত্রী রবি শংকর প্রসাদ কর্তৃক মুসলিম নারী (বিবাহ সংক্রান্ত অধিকার সুরক্ষা) বিল, ২০১৮ প্রণয়ন করা হয়।[৭]

ধারাসমূহ[সম্পাদনা]

ধারাগুলো হচ্ছে[৭][৮]:

  • কথিত, লিখিতভাবে বা ইমেল, এসএমএস এবং ইনস্ট্যান্ট ম্যাসেঞ্জারগুলির মতো ইলেকট্রনিক উপায়ে তাৎক্ষনিক তিন তালাক (তালাক-ই-বিদাত) অবৈধ এবং অকার্যকর হবে।
  • তাৎক্ষনিক তিন তালাকের জন্য অপরাধ হিসেবে অনূর্ধ ৩ বছরের জেল এবং জরিমানা করা হবে। জরিমানা ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক নির্ধারিত হবে।
  • অপরাধটি তখনই বিবেচনা করা হবে যখন কেবলমাত্র স্ত্রী বা তার রক্ত সম্পর্কিত আত্মীয় দ্বারা তথ্যটি স্বীকারযোগ্য হবে।
  • অপরধাটি জামিনযোগ্য নয়। কিন্তু এমন একটি ধারা আছে যাতে ম্যাজিস্ট্রেট জামিন দিতে পারবেন। তবে সেটি অবশ্যই স্ত্রীর শুনানির পরে হতে হবে এবং ম্যাজিস্ট্রেকে আশ্বস্ত করতে হবে জামিনের যথাযথ কারণ রয়েছে।
  • স্ত্রীকে একটি অস্তিত্ব ভাতা দিতে হবে। এর পরিমাণ ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক নির্ধারিত হবে।
  • অপ্রাপ্তবয়স্ক সন্তানদের হেফাজত চাইতে পারেন। সেটি কিভাবে হবে তা ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক নির্ধারিত হবে।
  • নারীর অনুরোধে (যার বিরুদ্ধে তালাক ঘোষণা করা হয়েছে) ম্যাজিস্ট্রেট দ্বারা সংহত করা যেতে পারে(অর্থাৎ আইনী মামলা বন্ধ করণ এবং বিরোধ নিষ্পত্তি করুণ)।

অবস্থা[সম্পাদনা]

বিলটি লোকসভায় ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮ তে পাস হয়।[৯] কিন্তু বিলটি রাজ্যসভায় আটকে যায় বিরোধীদের একটি নির্ধারিত কমিটির কাছে পাঠানোর প্রসঙ্গে।[১০][১১]

যেহেতু বিলটি পাস হয়নি সংসদীয় অধিবেশনে এবং ২০১৮ অধ্যাদেশটি ২২ জানুয়ারি ২০১৯ এ মেয়াদোত্তীর্ণ হয়, সরকার ১০ জানুয়ারী ২০১৯ এ অধ্যাদেশটি পুনর্বহাল করে।[১২][১৩] বাজেট অধিবেশনের সময় লোকসভায় পাস হলেও আবারো রাজ্যসভায় আটকে যায়। ফলস্বরূপ, সংসদ অধিবেশন বন্ধ হয়ে গেলে বিল আবার বিলুপ্ত হয়।[১৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Supreme court bars triple talaq"The Times of India (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-১৭ 
  2. "'100 cases of instant triple talaq in the country since the SC judgement'"The Times of India (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-১৭ 
  3. "'Government introduces triple talaq bill in lok sabha" 
  4. "'Landmark "Triple Talaq" Bill Clears Lok Sabha, In Rajya Sabha Next.'"NDTV। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-১৭ 
  5. "'No Triple Talaq Bill As Parliament's Winter Session Ends'"NDTV। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-১৭ 
  6. "Instant triple talaq ordinance"Indian Express। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-১৭ 
  7. "THE MUSLIM WOMEN (PROTECTION OF RIGHTS ON MARRIAGE)BILL, 2018" (PDF)Lok Sabha India Website। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-১৭ 
  8. "2018 Bill Provisions"PRS India Website। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  9. "Lok Sabha debates bill 'criminalising' instant triple talaq: Who said what - Times of India"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  10. "triple talaq bill in Rajya Sabha - Times of India"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  11. "triple talaq bill stuck in Rajya Sabha - Times of India"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  12. "Cabinet approves re-promulgation of triple talaq Ordinance- Economic Times"The Economic Times। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  13. "Cabinet approves re-promulgation of triple talaq Ordinance- News18"The News18। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  14. "Citizenship and triple talaq Bills lapse as budget session comes to an end"https://www.livemint.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-১৭  |ওয়েবসাইট= এ বহিঃসংযোগ দেয়া (সাহায্য)