মারি-ক্রিস্তিন বারো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মারি-ক্রিস্তিন বারো
Marie-Christine Barrault
Marie-Christine Barrault July 2013.jpg
২০১৩ সালের জুলাইয়ে বারো
জন্ম (1944-03-21) ২১ মার্চ ১৯৪৪ (বয়স ৭৭)
পেশাঅভিনেত্রী
কর্মজীবন১৯৬৭-বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীদানিয়েল তোসকাঁ দ্যু প্লঁতিয়ে
(বি. ১৯৬৫; বিচ্ছেদ. ?)
রজার ভাদিম
(বি. ১৯৯০; বিচ্ছেদ. ২০০০)
সঙ্গীমিশেল বোইস্রোঁ
সন্তান

মারি-ক্রিস্তিন বারো (জন ২১ মার্চ ১৯৪৪) হলেন একজন ফরাসি অভিনেত্রী। তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র এরিক রোমেরের মা ন্যুই শে মোদ (১৯৬৯)। তিনি কুসাঁ কুসাঁ (১৯৭৫) চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য সর্বাধিক পরিচিত এবং এই কাজের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তার অভিনীত অন্যান্য চলচ্চিত্র হল ল্য দিস্ত্রে, পার্সেভাল ল্য গালোলামুর লাপ্রে-মিদি। ২০১০ সালে তার আত্মজীবনী দিস লং ওয়ে টু গেট টু ইউ প্রকাশিত হয়।[১]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

মারি-ক্রিস্তিন বারো ১৯৪৪ সালের ২১শে মার্চ ফ্রান্সের প্যারিসে এক ক্যাথলিক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার মাতা মার্থা (বিবাহপূর্ব ভালমিয়ে) এবং পিতা মাক্স-অঁরি বারো।[২] তার পিতামাত্র বিবাহবিচ্ছেদ হয় এবং তার পিতা তার কিশোর বয়সে মারা যান। তার মাতা তার সন্তানদের লালনপালন করতে সমর্থ ছিলেন না। মারি ও তার ভি অল্যাঁকে তার পিতামহী ফেলিসিত লালন পালন করেন। তার মাতা পরবর্তীকালে পুনরায় বিয়ে করেন এবং তার আরও সন্তান জন্মগ্রহণ করে। মারি তার চাচা জঁ-লুই বারো ও চাচী মাদেলিন র‍্যনোর নিকট অভিনয় শিখেন, যদিও তারা শুরুতে তাকে তার অভিনেত্রী হওয়ার স্বপ্ন পূরণে সমর্থন দেননি। তিনি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মঞ্চনাটকে অভিনয় করতেন এবং পরে অভিনয়ের শিক্ষালয়ে ভর্তি হন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

বারো লোভ্র (১৯৬৭) দিয়ে টেলিভিশনে অভিনয় শুরু করেন। এরিক রোমেরের মা ন্যুই শে মোদ (১৯৬৯) দিয়ে তার চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে। চলচ্চিত্রটি কান চলচ্চিত্র উৎসবে পাল্ম দরের জন্য মনোনীত হয়েছিল।[৩] ১৯৭০ সালে বারো পিয়ের রিশারের সাথে হাস্যরসাত্মক ল্য দিস্ত্রে চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। ১৯৭৫ সালে তিনি কুসাঁ কুসাঁ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।[৪] তিনি রোমেরের পরিচালনায় লামুর লাপ্রে-মিদি (১৯৭২)-এ ক্ষণিক চরিত্রে এবং প্যর্সেভাল ল্য গালোয়া (১৯৭৮) চলচ্চিত্রে গিনেভের চরিত্রে অভিনয় করেন।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

বারোর প্রথম স্বামী প্রযোজক দানিয়েল তোসকান দ্যু প্লঁতিয়ে। তারা ১৯৬৫ সালে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এই দম্পতির দুই সন্তান - দাভিদ ও আরিয়ান। বারো ১৯৯০ সালে পরিচালক রজার ভাদিমের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। ভাদিম ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ২০০০ সালে মৃত্যুবরণ করেন। বারো নিজেও স্তন ক্যান্সার উত্তরজীবী।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Ce long chemin pour arriver jusqu'à toi"www.xoeditions.com (ফরাসি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুলাই ২০২০ 
  2. স্লিম্যান, এলিজাবেথ (২০০১)। The International Who's Who of Women 2002 (ইংরেজি ভাষায়)। সাইকোলজি প্রেস। আইএসবিএন 978-1-85743-122-3। সংগ্রহের তারিখ ২১ জুলাই ২০২০ 
  3. "MA NUIT CHEZ MAUD"কান চলচ্চিত্র উৎসব (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  4. "The 49th Academy Awards (1977) Nominees and Winners"অস্কার (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  5. "Marie-Christine Barrault raconte sa carrière, son cancer et son dernier amour..."পিওর পিপল (ফরাসি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]