মানবজিত সিং সন্ধু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মানবজিত সিং সন্ধু
The Gold Medalist, Shooting Trap Event, Shri Manavjit Singh Sandhu meeting the Union Minister of Youth Affairs and Sports, Dr. M.S. Gill, in New Delhi on October 09, 2009 (cropped).jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
জাতীয়তাভারতীয়
নাগরিকত্বভারতীয়
জন্ম (1976-11-03) ৩ নভেম্বর ১৯৭৬ (বয়স ৪৫)
অমৃতসর, পাঞ্জাব, ভারত
ক্রীড়া
ক্রীড়াশ্যুটার

মানবজিত সিং সন্ধু(ইংরেজি: Manavjit Singh Sandhu), (জন্ম ৩ নভেম্বর, ১৯৭৬)[১]) একজন ভারতীয় পেশাদার শ্যুটার। ২০০৬ সালে রাজীব গান্ধী ক্রীড়া রত্ন পুরস্কার এবং ১৯৯৮ সালে অর্জুন পুরস্কার পেয়েছিলেন। তিনি ভারতবর্ষকে ৩ টে অলিম্পিক গেমসে প্রতিনিধিত্ব করেন, ২০০৪ এথেনস অলিম্পিক গেমস, ২০০৮ বেইজিং অলিম্পিক গেমস এবং ২০১২ লন্ডন অলিম্পিক গেমস। তিনি বিশ্বের প্রাক্তন ১ নম্বর স্থানযুক্ত ট্র্যাপ শ্যুটার।

প্রাথমিক জীবন এবং সামরিক কর্মজীবন[সম্পাদনা]

মানবজিত অমৃতসর পাঞ্জাবের জন্মগ্রহণ করেন। তিনি পাঞ্জাবের ফিরোজপুর জেলায় রত খারা পাঞ্জাব সিংহের গ্রামের অধিবাসী।[২] তার পিতা গুরুবীর সিংহ এবং তার কাকা রণবির সিং এবং পরামবির সিং।[৩] তার পিতামহ, কর্ণী সিং, বিকানারের মহারাজা ছিলেন, ভারতে শুটিংয়ে সুপরিচিত একজন। তার পিতা, গার্নার সিং এবং কাকা রণধীর সিং এবং গর্নম সিং, তার পদচিহ্ন অনুসরণ করে, শুটিং-এ তারা অনেক পদক জিতেছেন।[৩] শুটিং-এ তার আগ্রহ মূলত হয় তার পিতা গুরুবীর সিং সন্ধুকে দেখে, যিনি নিজে অলিম্পিয়ান এবং অর্জুন পুরস্কারপ্রাপ্ত ছিলেন। মানবজিত সন্ধু লরেন্স স্কুল, সানওয়ার থেকে শিক্ষা লাভ করেন।[২] পরে তিনি ওয়াইপিএস চণ্ডীগড়, ডিপিএস নিউ দিল্লি এবং দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় ভেঙ্কটেশ্বরা কলেজ থেকে স্নাতক হন। তিনি পাঞ্জাব রাইফেল এসোসিয়েশন ক্লাবে প্রশিক্ষণ করতেন।[৪] পরবর্তী সময়ে তার কোচ ছিলেন মার্সেলো ড্রডি।[৩]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৯৮ - ২০০৬[সম্পাদনা]

১৯৯৮ সালে এশিয়ান গেমসে, মানবজিত শুটিং এর ট্র্যাপ দলগত ইভেন্টে একটি রৌপ্য পদক জিতেছিলেন এবং যদিও সেই বছরে কুয়ালা লামপুরে কমনওয়েলথ গেমসে শুটিং এর ট্র্যাপ দলগত ইভেন্টে স্বর্ণ পদক জিতেছিলেন। ২০০২ সালে, বুসানে আয়োজিত এশিয়ান গেমসে মানবজিত শুটিং এর ট্র্যাপ দলগত ইভেন্টে একটি রৌপ্য পদক জিতেছিলেন। ২০০৪ সালের অলিম্পিকে তিনি ১৯ তম স্থান পান।[৪] ২০০৬ সালে, দোহায় অনুষ্ঠিত এশীয় গেমসে তিনি একক ট্র্যাপ ইভেন্টে একটি রৌপ্য পদক জিতেছেন। ২০০৬ সালে, কেরভিল কের কাউন্টি, টেক্সাস, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেে অনুষ্ঠিত আইএসএসএফ ওয়ার্ল্ড শুটিং চ্যাম্পিয়নশীপে তিনি একক ট্র্যাপ ইভেন্টে স্বর্ণ পদক জিতে নেন, তিনি প্রথম ভারতীয় শটগান শ্যুটার যিনি বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হন।[৫] ২০০৬-২০০৭ ভারত সরকার তাকে রাজীব গান্ধী খেলে রত্ন পুরস্কার দিয়ে সন্মানিত করেন, তার ক্রীড়াবিষয়ক কৃতিত্বের জন্য ভারতের সর্বোচ্চ সম্মান।[৬] ২০০৬ সালে, মেলবোর্ন অনুষ্ঠিত কমনওয়েলথ গেমসে তিনি একক ট্র্যাপ ইভেন্টে ব্রোঞ্জ পদক জিতেছিলেন এবং একই বছরে তিনি তার সর্বোচ্চ র্যাংকিং বিশ্বের ১ নম্বর স্থান পান।

২০০৮ - ২০১৬[সম্পাদনা]

২০০৮ সালের অলিম্পিকে মানবজিত ১২ তম স্থান পান।[৪] ২০১০ সালে, তিনি কমনওয়েলথ শুটিং চ্যাম্পিয়নশিপে দলগত ট্র্যাপ ইভেন্টে স্বর্ণ পদক লাভ করেন এবং পরের সপ্তাহে মেক্সিকোতে ২০১০ বিশ্বকাপে একক ট্র্যাপ ইভেন্টে স্বর্ণ পদক জিতে নেন।[৫] ২ এপ্রিল ২০১০ পর্যন্ত, তিনি বিশ্বের তৃতীয় স্থানে ছিলেন। ২০১৪ সালের ১১ এপ্রিল টোকসন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বকাপে তিনি একক ট্র্যাপ ইভেন্টে স্বর্ণ পদক জিতেছিলেন।[৫] তিনি ২০১৬ সালের রিও অলিম্পিকের জন্য যোগ্যতা অর্জন করেন, যেখানে তিনি পুরুষের ট্র্যাপ ইভেন্টে ১৬ তম স্থানে পান।[৭] মানবজিতের ট্র্যাপ ইভেন্টে ১২৪/ ১২৫ লক্ষ্যের স্কোরের এশিয়ান রেকর্ড আছে।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Yahoo!"। ২৪ মে ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ জুন ২০১৮ 
  2. "Manavjit Singh Sandhu: 10 things to know about India's shooting medal contender at Rio Olympics 2016"। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুন ২০১৮ 
  3. London Olympics 2012 Profile
  4. "Manavjit Singh Sandhu at Sports Reference.com"www.sports-reference.com। ১৪ আগস্ট ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৪ 
  5. "Historical Results"www.issf-sports.org। ISSF। সংগ্রহের তারিখ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৪ 
  6. "Khel Ratna award"। ২৫ ডিসেম্বর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ জুন ২০১৮ 
  7. "Rio Olympics 2016: Manavjit Singh Sandhu, Kynan Chenai fail to qualify for men's trap semi-final"। First Post। ৯ আগস্ট ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৯ আগস্ট ২০১৬