মাকু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

মাকু কথাটির ব্যুৎপত্তিগত উৎপত্তি, ‘যারা মার্ক্সবাদকে সমর্থন করে’। শ্লেষাত্মকভাবে মার্ক্সবাদী বিরোধীরা কথাটি বলে থাকে, পরিভাষাটি বাংলা ভার্চুয়াল জগতের অন্যতম বহুল ব্যবহৃত শব্দ। (যদিও মাকু[১] কথাটির আভিধানিক অর্থ তাঁত-বোনার কাজে ব্যবহৃত যন্ত্রবিশেষ, তবে এই অর্থে প্রাত্যহিক জীবনে কথাটি খুব একটা ব্যবহার হয় না বর্তমানে) কথাটির উৎপত্তি মার্ক্সবাদ থেকে হলেও, মাকু বলতে সব কমিউনিস্ট ও বামপন্থীদের বোঝানো হয়। মূলত কলকাতাকেন্দ্রিক প্রত্যাবর্তী (রিগ্রেসিভ) বামেদের উদ্দেশ্যে শ্লেষাত্মক ভাবে ব্যবহার করা হয়।

মাকু কথাটি ঠিক প্রথম কবে ব্যবহৃত হয়েছিল তা নিয়ে বিতর্ক আছে। সাহিত্যিক নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়ের সৃষ্ট চরিত্র টেনিদার[২] একটি গল্প “হনুলুলুর মাকুদা”য় মাকু কথাটি প্রথম ব্যবহার হয়[৩], (যদিও সেটা মার্ক্সবাদকে ব্যঙ্গ করে লেখা হয়নি), তবে একুশ শতকের প্রথম দশকের শেষের দিকে ইন্টারনেটের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলিতে ‘মাকু'[৪] শব্দটির ব্যবহার শুরু হয়, মূলত পশ্চিমবঙ্গের অর্থনৈতিকভাবে[৫] পিছিয়ে থাকার জন্য দীর্ঘ ৩৪[৬] বছর বামেদের(মূলত সিপিআই(এম)) শাসনকে দায়ী করে, বিক্ষুব্ধ বাম-বিরোধীরা এর প্রচলন শুরু করে, ২০১১ এর বিধানসভা নির্বাচনের (পশ্চিমবঙ্গ) পর এর ব্যবহার বহুগুণ বেড়ে যায়। রাজনৈতিক অবস্থান বোঝাতে এমন আরও কিছু শব্দ ব্যবহার হয়, যেমন: চাড্ডি, ঘেসো, তরমুজ, লাল কমল, নকু, হনু প্রভৃতি।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]