মল্লিকা সারাভাই

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মল্লিকা সারাভাই

মল্লিকা সারাভাই (জন্ম ৯ মে ১৯৫৪) একজন সক্রিয় কর্মী এবং ভারতের গুজরাটের আহমেদাবাদ থেকে আসা একজন ভারতীয় শাস্ত্রীয় নৃত্যশিল্পী । শাস্ত্রীয় নৃত্যশিল্পী মৃণালিনী সারাভাই এবং প্রখ্যাত মহাকাশ বিজ্ঞানী বিক্রম সারাভাই এর কন্যা মল্লিকা সারাভাই কুচিপুরি এবং ভরতনাট্যমের একজন সুদক্ষ নৃত্যশিল্পী [১] এবং এমন একজন শিল্পী যারা তাদের জীবনে ইতিবাচক সামাজিক পরিবর্তন এবং রূপান্তরের জন্য তাদের পেশা কে ব্যবহার করেছেন ।

শুরুর জীবন[সম্পাদনা]

মল্লিকা সারাভাই ভারতের গুজরাটের আহমেদাবাদে বিক্রম সারাভাই এবং মৃণালিনী সারাভাই এর পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন । মল্লিকা সারাভাই ১৯৭৪ সালে আহমেদাবাদের আইআইএম থেকে তার এমবিএ সম্পন্ন করেন এবং ১৯৭৬ সালে গুজরাট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্গানাইজেশনাল বিহেভিয়ার এ ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন ।[২] তিনি একজন বিশিষ্ট কোরিওগ্রাফার ও নৃত্যশিল্পী এবং কয়েকটি হিন্দি, মালায়ালম, গুজরাটি ও আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন ।[৩]

পেশা[সম্পাদনা]

মল্লিকা সারাভাই খুব অল্প বয়স থেকেই নাচ শিখতে শুরু করেন, এবং মাত্র ১৫ বছর বয়সে সিনেমায় অভিনয়ের মাধ্যমে তার অভিনয় জীবন শুরু করেন । মল্লিকা পিটার ব্রুক এর নাটক দ্যা মহাভারত এর দ্রৌপদী চরিত্রে অভিনয় করেন । মল্লিকা তার দীর্ঘ কর্মজীবনে অনেক সুনাম অর্জন করেছেন, গোল্ডেন স্টার পুরস্কার তার মধ্যে অন্যতম, যা তিনি ১৯৭৭ সালে প্যারিসের চ্যাম্প এলিসিস থিয়েটারে শ্রেষ্ঠ একক নৃত্য প্রদর্শনের কারনে জিতেছেন । একজন নৃত্যশিল্পী হওয়ার পাশাপাশি মল্লিকা সারাভাই একজন সমাজ কর্মী । তিনি তার মায়ের সঙ্গে আহমেদাবাদে অবস্থিত দর্পন একাডেমী অব পারফর্মিং আর্টস পরিচালনা করে থাকেন ।

কর্মসাফল্য[সম্পাদনা]

১৯৮৯ সালে তিনি থিয়েটারে শক্তি নামক নাটকে অভিনয় করেন, যা ছিল নারী শক্তি বিষয়ে একটি অনন্য উপস্থাপন । তার অভিনীত সীতা কন্যা সারা পৃথিবীতে পরিচিতি এবং জনপ্রিয়তা লাভ করে এবং তিনটি ভাষায় ৫০০ বারের অধিক অভিনীত হয় ।

মল্লিকা সারাভাই এছাড়াও হার্শ মানডার রচিত বই 'আনহেয়ারড ভয়েস' এর ওপর ভিত্তি করে 'আনসুনি' নামক নাটকের জন্য স্ক্রিপ্ট লিখেছিলেন যার উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য ছিলো ভারতের প্রান্তিক পর্যায়ে বাস্তব সমস্যাগুলো সম্পর্কে স্কুল ও কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করা ।

লেখালেখি[সম্পাদনা]

মল্লিকা সারাভাই সর্বপ্রথম লেখালেখি শুরু করেন যখন তিনি শক্তি:নারী শক্তির ক্ষমতা রচনা করেন । এরপর হতে তিনি তার নিজের অনুষ্ঠান, টেলিভিশন সিরিয়াল, ফিল্ম, গান ইত্যাদির জন্য স্ক্রিপ্ট রচনা করেছেন । তিনি ভরতনাট্যমের জন্যও সমসাময়িক নতুন গীতি রচনা করেন । এছাড়াও তিনি বিভিন্ন সময়ে টাইমস অব ইন্ডিয়া, দ্যা উইক, দিব্যা ভাস্কর, হান্স এন্ড ডিএনএ এর কলামিস্ট হিসেবে কাজ করেছেন ।

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

২০০৯ সালের ১৯ মার্চ, মল্লিকা সারাভাই একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে গান্ধীনগর লোকসভা আসন এর জন্য বিজেপির প্রধান পদপ্রার্থী এল. কে. আদভানীর বিপক্ষে নির্বাচনে আসীন হন । কংগ্রেসের একজণ মুখপাত্র এটা স্পষ্ট করেন যে তিনি কংগ্রেস প্রার্থী ছিলেন না, তা সত্ত্বেও সেখানে জল্পনা ছিল যে কংগ্রেস হাইকমান্ড গুজরাট রাজ্য ইউনিটকে তার প্রার্থিতা সমর্থনের জন্য অনুরোধ করেন । এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন যে, ২০০৯ সালে নির্বাচনে প্রার্থিতার ব্যাপারে তিনি ব্যক্তিগতভাবে যেমন কংগ্রেসের শরণাপন্ন হননি, তেমনি কংগ্রেসও এ ব্যাপারে তাকে কোনো প্রস্তাব দেয়নি । যদিও পূর্বে তিনি কংগ্রেসের পক্ষ হতে মনোনয়ন পেয়েছিলেন ।

তিনি ২০১৪ সালের ৮ জানুয়ারি ভারতের আম আদমি পার্টিতে যোগদান করেন । তিনি নিজেকে দলের “পথ সৈনিক” বলে উল্লেখ করতেন ।[৪]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

মল্লিকা ১৯৮২ সালে বিপিন শাহ এর সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন । তারা ৭ বছর পরে পৃথক হয়ে যান এবং পরে ডিভোর্সপ্রাপ্ত হন । তাদের বিবাহিত জীবনে, একটি পুত্র ও একটি কন্যা সন্তান রয়েছে ।[৫] বিপিন এবং মল্লিকা সারাভাই ১৯৮৪ সালে একত্রে মাপিন প্রকাশনা প্রতিষ্ঠিত করেন এবং পরবর্তীতে একসঙ্গে এটি পরিচালনা করেন ।[৬]

রেফারেন্স[সম্পাদনা]

  1. "International encyclopedia of dance: a project of Dance Perspectives Foundation, Inc"। google.co.in। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুন ২০১৬ 
  2. "indobase Dances of India - Mallika Sarabhai"। indobase.com। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জুন ২০১৬ 
  3. "Mallika Sarabhai to contest against Advani"। thehindu.com। ২০ মার্চ ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুন ২০১৬ 
  4. "Mallika Sarabhai joins AAP"। thehindu.com। ৮ জানুয়ারি ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুন ২০১৬ 
  5. "Mallika Sarabhai stands for Lok Sabha election as an independent candidate"। narthaki.com। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুন ২০১৬ 
  6. "Mallika on a mission"। tribuneindia.com। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুন ২০১৬