বিষয়বস্তুতে চলুন

মজুদ মুদ্রা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
একশত মার্কিন ডলার নোট, বিশ্বের সবচেয়ে পরিচিত মজুদ মুদ্রার ভৌত রূপ
সবচেয়ে বেশি মজুদকৃত চারটি মজুদ মুদ্রার মুদ্রাপ্রতীক, বাম থেকে ডানে: মার্কিন ডলার, ইউরো, জাপানি ইয়েন, পাউন্ড স্টার্লিং

মজুদ মুদ্রা বা নোঙর মুদ্রা বলতে এমন একটি বৈদেশিক মুদ্রাকে বোঝায় যেটি কোনও দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক বা অনুরূপ কোনও আর্থিক কর্তৃপক্ষ সেটির বৈদেশিক মুদ্রার মজুদের অংশ হিসেবে তাৎপর্যপূর্ণ পরিমাণে জমা করে রাখে। এই মজুদ মুদ্রাটিকে আন্তর্জাতিক লেনদেন, আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ ও বৈশ্বিক অর্থনীতির সমস্ত দিকে ব্যবহার করা যায়। এটিকে প্রায়শই একটি শক্তিশালী মুদ্রা (বা অনমনীয় মুদ্রা) কিংবা একটি নিরাপদ মুদ্রা (safe-haven currency) হিসেবে গণ্য করা হয়।

১৯শ শতকের প্রায় পুরোটা জুড়ে ও ২০শ শতকের প্রথমার্ধে যুক্তরাজ্যের পাউন্ড স্টার্লিং বিশ্বের প্রধান মজুদ মুদ্রা ছিল।[১] তবে ২০শ শতকের মাঝামাঝি এসে মার্কিন ডলার বিশ্বের আধিপত্য বিস্তারকারী মজুদ মুদ্রায় পরিণত হয়।[২] মার্কিন ডলারের জন্য বিশ্বের প্রয়োজন মার্কিন সরকারকে কম ব্যয়ে অর্থ ঋণ নেবার সুযোগ করে দিয়েছে, এবং এর ফলে প্রতি বছর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১০ হাজার কোটি ডলারের বেশি সুবিধা পায়।[৩][৪][৫]

তথ্যসূত্র

[সম্পাদনা]
  1. "The Retirement of Sterling as a Reserve Currency after 1945: Lessons for the US Dollar?", Catherine R. Schenk, Canadian Network for Economic History conference, October 2009.
  2. "The Federal Reserve in the International Sphere", The Federal Reserve System: Purposes & Functions, a publication of the Board of Governors of the Federal Reserve System, 9th Edition, June 2005
  3. Rogoff, Kenneth (অক্টোবর ২০১৩)। "America's Endless Budget Battle"। Project Syndicate। 
  4. "Quantitative Easing vs. Currency Manipulation"Investopedia। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-১৫ 
  5. "What Is a Reserve Currency?"Investopedia। ২০২০-০৯-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-১৫