ভিভিয়ান বালাকৃষ্ণান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

ভিভিয়ান বালাকৃষ্ণান
விவியன் பாலகிருஷ்ணன்
Vivian Balakrishnan - 2010.jpg
২০১০ এ বালাকৃষ্ণান
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় (সিঙ্গাপুর)
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
১ অক্টোবর ২০১৫
প্রধানমন্ত্রীলি সিয়েন লুং
Second Ministerজোসেফিন তেও (২০১৭)
মালিকি ওসমান
(২০২০–বর্তমান)
পূর্বসূরীকে. শানমুগাম
ভারপ্রাপ্ত পরিবহন মন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ – ৫ এপ্রিল ২০১৯
প্রধানমন্ত্রীলি সিয়েন লুং
পূর্বসূরীখাও বুন ওয়ান
উত্তরসূরীখাও বুন ওয়ান
স্মার্ট নেশন উদ্যোগের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
২০১৪ – ২০১৭
প্রধানমন্ত্রীLee Hsien Loong
পূর্বসূরীPosition established
উত্তরসূরীজোসেফিন তেও
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১৯৬১ (বয়স ৬০–৬১)[১]
সিঙ্গাপুর কলোনি
রাজনৈতিক দলপিপলস অ্যাকশন পার্টি
দাম্পত্য সঙ্গীজয় বালাকৃষ্ণান
সন্তান৪ জন
শিক্ষাঅ্যাংলো-চাইনিজ স্কুল
ন্যাশনাল জুনিয়র কলেজ
প্রাক্তন শিক্ষার্থীন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অফ সিঙ্গাপুর (এমবিবিএস)
পেশা
  • রাজনীতিবিদ
  • কূটনীতিক
জীবিকাচক্ষু বিশেষজ্ঞ

ভিভিয়ান বালাকৃষ্ণান ( তামিল: விவியன் பாலகிருஷ்ணன்; জন্ম ১৯৬১) সিঙ্গাপুরের একজন রাজনীতিবিদ এবং প্রাক্তন চক্ষু বিশেষজ্ঞ। তিনি ২০১৫ সাল থেকে পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গভর্নিং পিপলস অ্যাকশন পার্টির (পিএপি) একজন সদস্য। তিনি ২০০৬ সাল থেকে হল্যান্ড-বুকিত তিমাহ জিআরসি এর ক্যাশু ওয়ার্ডের প্রতিনিধিত্বকারী সংসদ সদস্য (এমপি)। এর পূর্বে ২০০১ থিক ২০০৬ সাল পর্যন্ত হল্যান্ড-বুকিত তিমাহ জিআরসি এর উলু পান্ডান ওয়ার্ডের দায়িত্ব নিয়েছিলেন।

তিনি এর আগে ২০০৫ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বাণিজ্য ও শিল্পের দ্বিতীয় মন্ত্রী, ২০০৫ থেকে ২০১১ সালের মধ্যে কমিউনিটি, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী, ২০০৬ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত তথ্য, যোগাযোগ ও কলা বিভাগের দ্বিতীয় মন্ত্রী, ২০১১ থেকে ২০১৫ সাল অবধি পরিবেশ ও জলসম্পদ মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৪ থেকে ২০১৭ সালে তিনি ছিলেন স্মার্ট নেশন ইনিশিয়েটিভের মন্ত্রী-ইনচার্জ।

জীবনের প্রথমার্ধ[সম্পাদনা]

বালাকৃষ্ণান ১৯৬১ সালে একজন ভারতীয় তামিল পিতা এবং একজন চীনা মায়ের কাছে জন্মগ্রহণ করেন। [২] [৩] ন্যাশনাল জুনিয়র কলেজে যাওয়ার আগে অ্যাংলো-চাইনিজ স্কুলে তার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা হয়েছিল। ১৯৮০ সালে জুনিয়র কলেজ থেকে পাশ করার পর, তিনি সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (NUS) এ মেডিসিন পড়ার জন্য রাষ্ট্রপতির বৃত্তি লাভ করেন। তিনি NUS ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি হিসেবে দুই মেয়াদে দায়িত্ব পালন করেন এবং পরবর্তীতে ইউনিয়ন কাউন্সিলের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি চক্ষুবিদ্যায় স্নাতকোত্তর শিক্ষা লাভ করেন এবং ১৯৯১ সালে এডিনবার্গের রয়্যাল কলেজ অফ সার্জনসের ফেলো হন।

চিকিৎসা পেশা[সম্পাদনা]

বালাকৃষ্ণান ১৯৯৯ থেকে ২০০২ সাল পর্যন্ত সিঙ্গাপুর সশস্ত্র বাহিনীর দ্বিতীয় কমব্যাট সাপোর্ট হাসপাতালের কমান্ডিং অফিসার ছিলেন।

১৯৯০ এর দশকে, তিনি সিঙ্গাপুর টেলিভিশনে হেলথ ম্যাটারস সিরিজটি উপস্থাপনা করেছিলেন। [৪]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

তিনি জয় বালাকৃষ্ণানকে বিয়ে করেছেন, এবং তাদের একটি কন্যা এবং তিন পুত্র রয়েছে। [৫] তিনি একজন খ্রিস্টান[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Dr Vivian Balakrishnan"Parliament of Singapore। সংগ্রহের তারিখ ১৫ নভেম্বর ২০২১ 
  2. "Coming to India is like coming home"Rediff। ৩০ মার্চ ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৯ 
  3. "Biography of Dr. Vivian Balakrishnan for Appearances, Speaking Engagements"allamericanspeakers.com। ৩০ মার্চ ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৯ 
  4. "Dr Vivian BALAKRISHNAN"Prime Minister‘s Office Singapore (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৪-১০-২০। ২৮ মার্চ ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৪-০৩ 
  5. Chew, Hui Min (২০১৬-০১-০১)। "Foreign Minister Vivian Balakrishnan is now a grandpa, possibly the youngest in Cabinet"The Straits Times (ইংরেজি ভাষায়)। ৯ আগস্ট ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-০৯ 
  6. "Two former First Ladies attend Girl Guides event"AsiaOne। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-০৯