ব্লু অরিজিন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ব্লু অরিজিন, এলএলসি
ধরনলিমিটেড লিয়াবিলিটি কোম্পানি
শিল্পমহাকাশ শিল্প
প্রতিষ্ঠাকাল৮ সেপ্টেম্বর ২০০০ (2000-09-08)
প্রতিষ্ঠাতাজেফ বেজোস
সদরদপ্তর,
যুক্তরাষ্ট্র
প্রধান ব্যক্তি
মালিকজেফ বেজোস
কর্মীসংখ্যা
৩,৫০০[২][৩] (২০২১)
ওয়েবসাইটBlueOrigin.com

ব্লু অরিজিন, এলএলসি হল আমেরিকান বেসরকারীভাবে অর্থায়িত এ্যারোস্পেস প্রস্তুতকারক ও উপ-কক্ষপথীয় মহাকাশ উড্ডয়ন পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা, যার সদর দফতর ওয়াশিংটনের কেন্টে অবস্থিত।[৪][৫] জেফ বেজোস দ্বারা ২০০০ সালে প্রতিষ্ঠিত সংস্থাটির নেতৃত্বে রয়েছেন সিইও বব স্মিথ। পুনরায় ব্যবহারযোগ্য উৎক্ষেপণ যানগুলির মাধ্যমে মহাকাশ ভ্রমণ সুলভ ও আরও নির্ভরযোগ্য করে তোলাই এর অন্যতম লক্ষ্য।[৬][৭]

ব্লু অরিজিন তার পূর্ববর্তী কাজগুলির প্রতিটি উন্নয়নমূলক ধাপ নির্মাণের সাথে উপ-কক্ষপথীয় থেকে কক্ষপথীয় উড়ানে একটি ক্রমবর্ধমান পদ্ধতিতে সহকর্মী নিয়োগ করছে।[৮] সংস্থার মূল উদ্দেশ্য হ'ল গ্রেডাতিম ফিরোসিটার, ল্যাটিনে "স্টেপ বাই স্টেপ, ফিরোসিওলি"।[৯]

রেল চালিত উল্লম্ব উড্ডয়ন ও উল্লম্ব অবতরণ (ভিটিভিএল) যানবাহনসমূহকে উপ-কক্ষপথ ও কক্ষপথে পৌঁছে দেওয়ার জন্য ব্লু অরিজিন বিভিন্ন প্রযুক্তির উদ্ভাবন করছে।[১০] সংস্থার নামটি নীল গ্রহ, পৃথিবীকে উৎস বিন্দু হিসাবে উল্লেখ করে।[৯]

প্রাথমিকভাবে উপ-কক্ষপথীয় মহাকাশ উড়ানকে কেন্দ্র করে, সংস্থাটি টেক্সাসের কালবারসন কাউন্টিতে তার সুবিধার্থে নিউ শেপার্ড যানের একাধিক টেস্টবেডসমূহ নকশা, নির্মাণ ও উড্ডয়ন করিয়েছে। নিউ শেপার্ডের উন্নয়নের পরীক্ষামূলক উড়ান,[১১] মহাকাশে প্রথম মার্কিন নভোচারী অ্যালান শেপার্ডের নাম অনুসারে ২০১৫ সালের এপ্রিল মাসে শুরু হয় এবং উড়ানের পরীক্ষা চলমান রয়েছে।[১২][১৩] ব্লু অরিজিন প্রথম যাত্রীদের জন্য সময়সূচী বেশ কয়েকবার পরিবর্তন করেছে, ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরের হিসাবে সাম্প্রতিক পরিকল্পনার সময়সীমা হিসাবে ২০১৯ সাল নির্ধারিত হয়েছে।[১৪] অনুষ্ঠানটিতে, এটি এখনও বাণিজ্যিক যাত্রীবাহী উড়ান ফ্লাইট শুরু করেনি, বা কখন তাদের যাত্রা শুরু করবে তার তারিখ ঘোষণা করেনি। ২০১৫ সাল থেকে প্রায় প্রতিটি পরীক্ষামূলক উড়ানে অনাবৃত যানটি ১০০ কিলোমিটার (৩৩০,০০০ ফুট) উচ্চতায় পৌঁছেছে এবং কার্মানের উপরে স্থান পৌঁছেছে, ম্যাক ৩ (৩,৬৭৫ কিমি / ঘণ্টা) এরও বেশি উচ্চ গতি অর্জন করেছে। লাইন, স্পেস ক্যাপসুল ও এর রকেট বুস্টার উভয়ই সাফল্যের সাথে নরম অবতরণ করেছে।[১৫]

ব্লু অরিজিন ২০১৪ সালে কক্ষপথীয় উড়ান প্রযুক্তি ব্যবসায় নিয়োজিত হয়, প্রথম দিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান উৎক্ষেপণ ব্যবস্থা পরিচালনাকারী ইউনাইটেড লঞ্চ অ্যালায়েন্স (ইউএলএ) এর জন্য একটি নতুন বৃহৎ রকেট ইঞ্জিন, বিই-৪ তৈরির চুক্তির মাধ্যমে অন্যদের জন্য রকেট ইঞ্জিন সরবরাহকারী হিসাবে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করে। ২০১৫ সালের মধ্যে ব্লু অরিজিন ফ্লোরিডা স্পেস কোস্ট থেকে নিউ গ্লেন নামে পরিচিত নিজস্ব কক্ষপথীয় উৎক্ষেপণ যানবাহনটি তৈরি এবং উড়ানোর পরিকল্পনাও ঘোষণা করে। বিই-৪ ২০১৮ সালের শেষের দিকে ইঞ্জিনের যোগ্যতা পরীক্ষা শেষ করার আশা করে,[১৬] তবে পরীক্ষার কর্মসূচীটি ২০১৯ সালে অব্যাহত ছিল।

জেফ বেজোস ২০১২ সালের মে মাসে মহাকাশের জন্য ব্লু অরিজিনের দৃষ্টিভঙ্গি উন্মোচন করেন এবং ২০২৪ সালের মধ্যে সম্পূর্ণ প্রস্তুত "ব্লু মুন"[১৭] নামে পরিচিত একটি চন্দ্র অবতরণকারীর জন্যও পরিকল্পনা করেন।[১৮] ২০২০ সালের ৩০ এপ্রিল, লকহিড মার্টিন, নর্থরোপ গ্রুমম্যান ড্রাগার সহ ব্লু অরিজিনের জাতীয় দলকে নাসার আর্টেমিস প্রোগ্রামের অংশ হিসাবে মানুষকে চাঁদ থেকে ফিরিয়ে আনতে একটি সংহত মানব অবতরণ ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য $৫৭৯ মিলিয়ন ডলার চুক্তি প্রদান করা হয়।[১৯][২০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Sheetz, Michael (১৮ এপ্রিল ২০১৮)। "Blue Origin's new rocket engine will be able to launch '100 full missions,' CEO says"Cnbc.com। ২৭ মে ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ অক্টোবর ২০১৮ 
  2. https://www.reuters.com/article/space-exploration-bezos/focus-an-unleashed-jeff-bezos-will-seek-to-shift-space-venture-blue-origin-into-hyperdrive-idUSL1N2K908X
  3. Alan Boyle"Blue Origin's expansion plans rush ahead at its Seattle-area HQ – and in Los Angeles"GeekWireYahoo! News-এর মাধ্যমে। 
  4. "Blue Origin LLC | Financial Times"www.ft.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-০৬ 
  5. "Blue Origin LLC - Company Profile and News"Bloomberg.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-০৬ 
  6. Staff Reporter (২০১৯-০১-২৪)। "Kent's Blue Origin racks up another successful New Shepard launch into space"Kent Reporter (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-০৩ 
  7. Berger, Eric (২০১৬-০৪-০২)। "Why Blue Origin's latest launch is a huge deal for cheap space access"Ars Technica (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-০৩ 
  8. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; ars20210301 নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  9. "Gradatim Ferociter! Jeff Bezos explains Blue Origin's motto, logo … and the boots"GeekWire (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৬-১০-২৫। ২১ জানুয়ারি ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-২৫ 
  10. "Blue Origin"। Blue Origin। ৬ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ ডিসেম্বর ২০১৩ 
  11. "Blue Origin Engineer Talks Next Steps for New Shepard, New Glenn"Space.com। ২৬ জানুয়ারি ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-২৫ 
  12. Grush, Loren (২০১৯-১২-১০)। "Blue Origin successfully launches and lands its New Shepard rocket during 12th overall test flight"The Verge (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৮-০৭ 
  13. "Blue Origin moves closer to human spaceflight with 12th New Shepard launch"TechCrunch (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৮-০৭ 
  14. "Jeff Bezos Says Blue Origin Will Put People in Space in 2019"Fortune। ২৩ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০১-২৩ 
  15. Palmer, Katie। "Jeff Bezos' Blue Origin Rocket Took Off and Landed—Again"Wired। Wired.com। ২৩ জানুয়ারি ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ জানুয়ারি ২০১৬ 
  16. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; sn20180419 নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  17. Chang, Kenneth (২০১৯-০৫-০৯)। "Jeff Bezos Unveils Blue Origin's Vision for Space, and a Moon Lander"The New York Times (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0362-4331। ১০ মে ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-১০ 
  18. "Jeff Bezos aims Blue Origin at the Moon"TechCrunch (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২৯ 
  19. Sheetz, Michael (২০২০-০৪-৩০)। "NASA awards contracts to Jeff Bezos and Elon Musk to land astronauts on the moon"CNBC (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-১২ 
  20. Christian, Davenport (২০২০-০৪-৩০)। "Jeff Bezos and Elon Musk win contracts for spacecraft to land NASA astronauts on the moon"The Washington Post। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-১২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]