ব্রুনাইয়ের জাতীয় প্রতীক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ব্রুনাই দারুসালামের জাতীয় প্রতীক
Panji-Panji Negara Brunei Darussalam
Emblem of Brunei.svg
ব্রুনাইয়ের জাতীয় প্রতীক
আর্মিজারহাসসানাল বলকিয়াহ, ব্রুনাইয়ের সুলতান
গৃহীত১৯৪০
নীতিবাক্যসর্বদা ঈশ্বরের নির্দেশিকা অনুযায়ী মানবজাতির সেবা করা
الدائمون المحسنون بالهدى
Sentiasa membuat kebajikan dengan petunjuk Allah
‘Always in service, with God's guidance’

ব্রুনাইয়ের জাতীয় প্রতীক ব্রুনাইয়ের জাতীয় পতাকার আদলে তৈরি করা হয়েছে। প্রতীকটি ১৯৪০ সালে গৃহীত হয়েছিল। জাতীয় প্রতীকটিতে পাঁচটি প্রধান উপাদান রয়েছে: জাতীয় পতাকা, রাজকীয় ছাতা (প্যারাসোল), ডানা, হাত এবং অর্ধচন্দ্র (ক্রিসেন্ট)।

বিবরণ[সম্পাদনা]

অর্ধচন্দ্রটির নিচে একটি লাল ফিতা (ব্যানার) রয়েছে এবং তাতে আরবি ভাষায় হলুদ রঙে কিছু বাণী খোদাই করা আছে। এগুলো হল-

  • অর্ধচন্দ্রে ব্রুনাইয়ের জাতীয় নীতিবাক্য লেখা আছে। তা হল- الدائمون المحسنون بالهدى (বাংলা অনুবাদ: সর্বদা ঈশ্বরের নির্দেশিকা অনুযায়ী মানবজাতির সেবা করা)
  • ব্যানারে বা স্ক্রোলে রাজ্যের নাম লেখা আছে- ব্রুনাই দারুসসালাম (Brunei Darussalamبروني دارالسلام)। এর বাংলা অর্থ ব্রুনাই, শান্তির বাসস্থান

নকশা[সম্পাদনা]

প্রতীক বা ক্রেস্টের সব উপাদানই লাল রঙের। কিছু সংস্করণে তাদের কালো সীমারেখা বা আউটলাইন ব্যবহার করা হয় কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বর্ণহীন রূপরেখা ব্যবহার করা হয়।

উপাদান[সম্পাদনা]

  1. প্রতীকটিতে ছোট দোয়েলের লেজের মতো পতাকা (payung ubor-ubor) রাজছত্র (payung ubor-ubor) এবং সুলতানের রাজমুকুট রয়েছে।[১] প্রতীকটি তৈরির পর থেকে রাজপ্রতীক হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। (আরও দেখুন: ছত্র)
  2. প্রতীকে ডানার উপস্থিতি ব্রুনাইয়ে ন্যায়বিচার, প্রশান্তি, সমৃদ্ধি এবং শান্তির নির্দেশ করে।
  3. প্রতীকের নিচে অবস্থিত অর্ধচন্দ্র ব্রুনাইয়ে ইসলাম ধর্মের প্রতীক। ব্রুনাইয়ের রাষ্ট্রধর্ম হল ইসলাম।
  4. দুই পাশে উপরের দিকে উত্থিত হাত সরকারের আরোপিত দায়িত্ব পালন এবং নাগরিকদের কল্যাণ ও দেশের উন্নয়ন ও দেশরক্ষায় ভূমিকা রাখাকে নির্দেশ করে।

সুলতানের ব্যক্তিগত প্রতীক[সম্পাদনা]

সুলতানের ব্যক্তিগত প্রতীক

১৯৫৯ সালে ব্রুনাইয়ে সংবিধান প্রণীত হলে ব্রুনাই সুলতান রাষ্ট্র প্রতীক থেকে আলাদা একটি ব্যক্তিগত প্রতীক ব্যবহার করেন।

বিবরণ[সম্পাদনা]

প্রতীকটিতে দুইটি হাত সুবর্ণ সেজান্ট বিড়ালের (কুচিং এমাস) নিচে অবনমিত অবস্থায় আছে। ১৯৬৮ সালে তাঁর রাজ্যাভিষেকের সময় সুলতান হাসসান আল-বলকিয়াহ প্রতীকটির মূল নকশা সংবলিত একটি মুকুট (মাহকোটা) ব্যবহার করেছিলেন। মুকুটটি পূর্ববর্তী সুলতানদের ব্যবহৃত ব্রোকেড (পাগড়ির) উপর ভিত্তি করে নির্মিত হলেও নতুন এই মুকুটটি মূল্যবান ধাতু দিয়ে তৈরি এবং এটি পেন্ডিলিয়া দিয়ে সজ্জিত ছিল। অলঙ্কার স্বরূপ এই মুকুটে ছিল একটি অর্ধচন্দ্র এবং তার শীর্ষে দশটি তারা বিদ্যমান। যার সাতটি বাহ্যিকভাবে দৃশ্যমান হত।

১৯৯৯ সালে প্রতীকটির বিস্তর পরিবর্তন সাধিত হয়। নতুন প্রতীকে পূর্ববর্তী প্রতীকের খোদাইকৃত অর্ধচন্দ্র (ক্রিসেন্ট) বজায় রাখা হয় তবে প্রধান উপাদান হিসাবে রাজকীয় ছত্র এবংং উপরের দিকে সুলতানের মুকুট যোগ করা হয়েছিল। নতুন এই প্রতীকটি ধানের বক্রমালা দ্বারা বেষ্টিত। তার ভেতরে একটি সবুজ ব্যানার রয়েছে যাতে আরবি হরফে আল্লাহু আকবার (আল্লাহ মহান) লেখা থাকে।

রাষ্ট্রীয় সকল কাজে প্রতীকটি লাল বর্ণের ব্যবহার করা হলেও সুলতানের ব্যক্তিগত ক্ষেত্রে তা হলুদ বর্ণে ব্যবহৃত হবে।[২]

পূর্ববর্তী প্রতীকসমূহ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Sidhu, Jatswan S. (২০০৯)। Historical Dictionary of Brunei Darussalam। Scarecrow Press। পৃষ্ঠা 87। আইএসবিএন 978-0-8108-7078-9 
  2. Vries, Hubert de. National Arms and Emblems, Past and Present. Brunei. Retrieved 27 July 2016.