বালিকা বধূ (১৯৬৭-এর চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(বালিকা বঁধু (১৯৬৭ চলচ্চিত্র) থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বালিকা বধূ
পরিচালকতরুণ মজুমদার
শ্রেষ্ঠাংশেমৌসুমী চট্টোপাধ্যায়
মুক্তি১৯৬৭
দেশভারত
ভাষাবাংলা, হিন্দি

বালিকা বধূ ১৯৬৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত মৌসুমী চট্টোপাধ্যায় (বালিকা বধূ চরিত্রে) অভিনীত এবং তরুণ মজুমদার পরিচালিত বাংলা চলচ্চিত্র।

কাহিনী[সম্পাদনা]

প্রাচীন ভারতে একটা সময়ে বাল্যবিবাহ হত এবং সাবালক হওয়ার পরে তারা একসাথে থাকার অনুমতি পেত। এই ছবিতে বিয়ের এই গল্পটি সুন্দর ও সাবলীলভাবে উপস্থাপিত হয়েছে।

ভারতে ব্রিটিশ শাসনামলে একটি গ্রামে, অমল নামে একজন স্কুলগামী যুবক বাস করত, যার অল্প বয়সে রজনী নামের একটি মেয়ের সঙ্গে বিয়ে হয়। বিয়ের প্রথাগত অনুষ্ঠান শেষে, তরুণ দম্পতি কয়েক দিনের জন্য থাকতে দেয়া হয় এবং তাদের মধ্যে প্রেম এবং বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। এরপর, রজনী তার বাবার বাড়িতে ফিরে যায় এবং অমল তার স্কুলে যাওয়া শুরু করে এবং এক শিক্ষকের অধীনে বাড়িতে পড়াশুনা করতে থাকে। মাঝেমধ্যে রজনী বেড়াতে আসলে অমলের মন উদ্দীপ্ত হয়।

রজনীর দুর্গাপূজাতে আসার কথা ছিল কিন্তু বিজয়া দশমীতে বেড়াতে আসে কিছুদিনের জন্য। এরপর তীর্থযাত্রার উদ্দেশ্যে ভারতের বিভিন্ন স্থান যেমন, বেনারস, গয়া, মথুরা, বৃন্দাবন, পুরী এবং কোনারক ইত্যাদি। তাদের ছোট পৃথিবী ধ্বংস হয়ে যায়, যখন অমলের নিরীহ গৃহশিক্ষককে পুলিশ স্বাধীনতা আন্দোলনকারী, আশ্রয়, প্রশিক্ষণ ও বোমা তৈরির দায়ে গ্রেপ্তার করে। এই ঘটনা অমল এবং রজনীর জীবনে প্রভাব নিয়ে এগিয়ে গেছে।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]