বস্তুবাদ ও অভিজ্ঞতাবাদী সমালোচনা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বস্তুবাদ ও অভিজ্ঞতাবাদী সমালোচনা
বস্তুবাদ ও অভিজ্ঞতাবাদী সমালোচনা.jpg
লেখকভ্লাদিমির লেনিন
মূল শিরোনামМатериализм и эмпириокритицизм
দেশরুশ প্রজাতন্ত্র
ভাষারুশ
ধরনদার্শনিক সমালোচনা
প্রকাশনার তারিখ
১৯০৯

বস্তুবাদ ও অভিজ্ঞতাবাদী সমালোচনা (রুশ: Материализм и эмпириокритицизм, Materializm i empiriokrititsizm) হচ্ছে ১৯০৯ সালের ফেব্রুয়ারি-অক্টোবর মাসে ভ্লাদিমির লেনিন লিখিত বই যেখানে তিনি মার্কসবাদী দর্শনের বিরোধীদের স্বরূপ উদ্‌ঘাটন করেন। তিনি এই গ্রন্থে আরো দেখান যে দর্শন ও রাজনীতির মধ্যে ঘনিষ্ঠ সংযোগ বর্তমান।[১]

রচনার ইতিহাস ও প্রেক্ষিত[সম্পাদনা]

এই গ্রন্থটির পুরো নাম বস্তুবাদ ও অভিজ্ঞতাবাদী সমালোচনা: এক প্রতিক্রিয়াশীল দার্শনিক মত প্রসঙ্গে বিচারমূলক মন্তব্য। লেনিনের জীবদ্দশায় গ্রন্থটির দুটি সংস্করণ প্রকাশিত হয়, প্রথম সংস্করণ প্রকাশিত হয় ১৯০৯ সালে এবং দ্বিতীয় সংস্করণ প্রকাশিত হয় ১৯২০ সালে। ১৯০৮ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে অক্টোবরের মধ্যে নয় মাস সময়ে লেনিন এই গ্রন্থ রচনা করেন। এই বইটি লেখার জন্য প্রচুর গবেষণার প্রয়োজন হয়েছিল। প্রধানত জেনেভা শহরের গ্রন্থাগারে লেনিন এই গবেষণার কাজ সমাধা করেন, যদিও আরো কিছু বই পঠন-পাঠনের জন্য ১৯০৮ সালের মে মাসে তিনি কিছুদিন লন্ডনের ব্রিটিশ মিউজিয়ামে কাজ করতে যান। এই গ্রন্থে মোট দুশোর বেশি বইয়ের উল্লেখ দেখা যায়।[২]

বইটি লেখার প্রাথমিক উদ্দেশ্য ছিলো রুশ সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনে কয়েকজন তথাকথিত মার্কসবাদীরা যে বিভ্রান্তি ও ব্যাঘাত সৃষ্টি করেছিলেন তার সমাধান করা।

অতিরিক্ত পাঠ[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. অবিচকিন, গ. দ.; অস্ত্রউখভা, ক. আ.; পানক্রাতভা, ম. ইয়ে.; স্মিনর্ভা, আ. প. (১৯৭১)। ভ্লাদিমির ইলিচ লেনিন সংক্ষিপ্ত জীবনী (১ সংস্করণ)। মস্কো: প্রগতি প্রকাশন। পৃষ্ঠা ৯৩। 
  2. দেবীপ্রসাদ চট্টোপাধ্যায়, দার্শনিক লেনিন, মনীষা কলকাতা, আগস্ট ১৯৮০, পৃষ্ঠা ২২-২৪