বড়তলা বিধানসভা কেন্দ্র

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

বড়তলা বিধানসভা কেন্দ্র ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের একটি অধুনালুপ্ত বিধানসভা কেন্দ্র।

সীমানা পুনর্নির্ধারণ কমিশনের নির্দেশ অনুসারে, বড়তলা পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্রটি ২০১১ সালে অবলুপ্ত হয়েছে। [১]

এই বিধানসভা কেন্দ্রটি দমদম লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত ছিল।[২]

ফলাফল[সম্পাদনা]

১৯৭৭-২০০৯[সম্পাদনা]

২০০৬ ও ২০০১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের সাধন পাণ্ডে ১৫৮ নং বড়তলা বিধানসভা কেন্দ্র থেকে আরএসপি-র কল্যাণ মুখোপাধ্যায়কে পরাজিত করে নির্বাচিত হন। জাতীয় কংগ্রেসের ১৯৯৬ ও ১৯৯১ সালে সাধন পাণ্ডে আরএসপি-র পরিমল রাউতকে এবং ১৯৮৭ সালে আরএসপি-র সুনীল সেনগুপ্তকে পরাজিত করেন। ১৯৮২ সালে আরএসপি-র নিখিল দাসকে পরাজিত করে এই কেন্দ্রের বিধায়ক হন কংগ্রেসের অজিত কুমার পাঁজা। ১৯৭৭ সালে কংগ্রেসের অজিত কুমার পাঁজাকে পরাজিত করেছিলেন আরএসপি-র নিখিল দাস।[৩]

১৯৫১-১৯৭২[সম্পাদনা]

১৯৭২ ও ১৯৭১ সালে এই কেন্দ্র থেকে কংগ্রেসের অজিত কুমার পাঁজা জয়লাভ করেছিলেন। ১৯৬৯ ও ১৯৬৭ সালে এখান থেকে জেতেন আরএসপি-র নিখিল দাস। ১৯৬২ সালে কংগ্রেসের অমরেন্দ্রনাথ বসু এখান থেকে জয়লাভ করেন। ১৯৫৭ সালের নির্বাচনে বড়তলা ছিল দুটি কেন্দ্র। বড়তলা উত্তর থেকে কংগ্রেসের সুধীরচন্দ্র রায়চৌধুরী ও বড়তলা দক্ষিণ থেকে কংগ্রেসের অমরেন্দ্রনাথ বসু সেবার জয়লাভ করেছিলেন। ১৯৫২ সালে স্বাধীন ভারতের প্রথম নির্বাচনে বড়তলা কেন্দ্র থেকে জয়লাভ করেছিলেন কংগ্রেসের নির্মলচন্দ্র দে।[৪]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. "Delimitation Commission Order No. 18 dated 15 February 2006" (PDF) (ইংরেজি ভাষায়)। পশ্চিমবঙ্গ সরকার। ২০১০-০৯-১৮ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১১-১৫ 
  2. "Statistical Report on General Elections, 2004 to the 14th Lok Sabha" (PDF)Volume III Details For Assembly Segments Of Parliamentary Constituencies (ইংরেজি ভাষায়)। ভারতের নির্বাচন কমিশন। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১১-১৫ 
  3. "158 - Burtola Assembly Constituency"১৯৭৭ থেকে দল অনুযায়ী তুলনা (ইংরেজি ভাষায়)। ভারতের নির্বাচন কমিশন। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১১-১৫  অজানা প্যারামিটার |1= উপেক্ষা করা হয়েছে (সাহায্য)
  4. "Statistical Reports of Assembly Elections"সাধারণ নির্বাচনের ফলাফল এবং পরিসংখ্যান (ইংরেজি ভাষায়)। ভারতের নির্বাচন কমিশন। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১১-১৫