ফেলেকনাস উকা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ফেলেকনাস উকা

Feleknas Uca.jpg
তুরস্কের সংসদ সদস্য
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
৭ জুন ২০১৫
সংসদীয় এলাকাদিয়ারবাকর (জুন ২০১৫-নভেম্বর ২০১৫)
ব্যাটম্যান (২০১৮)
জার্মানির ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সদস্য
কাজের মেয়াদ
১৩ জুন ১৯৯৯ – ৭ জুন ২০০৯
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1976-09-17) ১৭ সেপ্টেম্বর ১৯৭৬ (বয়স ৪৪)
সেলে, নিডারজাখসেন, পশ্চিম জার্মানি
রাজনৈতিক দলপিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টি (তুর্কী)

অন্যান্য
রাজনৈতিক দল
গণতান্ত্রিক সমাজতন্ত্রের দল (জার্মানি) (১৯৯৯–২০০৭)
দ্যা লিফট (জার্মানি) (২০০৭–২০০৯)

ফেলেকনাস উকা (ইংরেজি: Feleknas Uca; জন্ম ১৯ সেপ্টেম্বর ১৯৭৬) একজন কুর্দি বংশোদ্ভূত তুর্কি রাজনীতিবিদ[১] ১৯৯৯ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত তিনি জার্মানি থেকে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সদস্য ছিলেন। ২০০৫ সালে ইরাকের আইনসভা নির্বাচিত হওয়ার আগ পর্যন্ত ফেলেকনাস উকা বিশ্বের একমাত্র ইয়াজিদি পার্লামেন্টারিয়ান ছিলেন। ২০১৫ সালের জুন মাসে তিনি তুরস্কে দিয়ারবাকরের প্রতিনিধিত্ব করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

জীবন ও কর্ম[সম্পাদনা]

ফেলেকনাস উকা পশ্চিম জার্মানির লোয়ার স্যাক্সনিতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তিনি মূলত তুরস্কের একজন অভিবাসী ইয়াজিদি পরিবারে সদস্য। ফেলেকনাস উকা সেলের কমপ্রিহেনসিভ স্কুল থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করে এবং তিনি একজন ডাক্তারের সহকারী হিসেবে শিক্ষানবিশ শুরু করে। ২০১০ সালে তিনি ফেলেকনাস উকা ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেন যা নারী ও শিশুদের অধিকারের উপর আলোকপাত করে। উকা টের ডেস ফেমসের প্রতিনিধির স্থানীয় মুখপাত্রও ছিলেন।[২] ২০১৪ সালের জুলাই পর্যন্ত তুরস্কের দিয়ারবাকিরে স্থানান্তরিত না হওয়া পর্যন্ত ফেকনাস উকা সেলিতে থাকতেন।

ইউরোপীয় পার্লামেন্ট[সম্পাদনা]

ফেলেকনাস ১৯৯৯ সালে, ২২ বছর বয়সে ইউরোপীয় পার্লামেন্টে 'গণতান্ত্রিক সমাজতন্ত্রের' জাতীয় তালিকার ছয়টি স্থানে মধ্যে পঞ্চম নির্বাচিত হন। পঞ্চম ইউরোপীয় পার্লামেন্টে (১৯৯৯-২০০৪) তিনি সংস্কৃতি, শিক্ষা, মিডিয়া এবং সমান সুযোগ সম্পর্কিত সংসদের কমিটিতে স্থান পান।[৩] তিনি তুরস্কের কুর্দিপন্থী গোষ্ঠীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বজায় রেখেছিলেন এবং ইইউ-তুরস্ক যৌথ সংসদীয় কমিটির সদস্য ছিলেন।

ষষ্ঠ ইউরোপীয় পার্লামেন্ট (২০০৪-২০০৯)-এর নির্বাচনে পিডিএস-এর প্রার্থী নির্বাচনের ক্ষেত্রে উকা পিডিএস-এর জাতীয় তালিকায় সপ্তম স্থানে নেমে গিয়েছিল, যার ফলে তার আসনটি তীব্র চাপে পড়েছিল। অবশেষে নির্বাচন শেষ তিনি সফল স্থানে ফিরে এসেছিলেন।[৪]

ইউরোপীয় পার্লামেন্টে কাজ করার সময় তিনি তুরস্কের মধ্যে কুর্দিপন্থী অবস্থানের জন্য বিতর্কের সৃষ্টি করেছিলেন। ২০০৫ সালে তুর্কি পুলিশ কুর্দি ভাষায় উকার দেওয়া ডেমোক্রেটিক পিপলস পার্টির (ডিইএইচএপি) বক্তৃতার জন্য তদন্ত করেছিল, যেখানে তিনি নির্বাচনী সীমা ১০ শতাংশ থেকে কমিয়ে আনার আহ্বান জানিয়েছিলেন, সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেছিলেন এবং সমস্ত সামরিক পদক্ষেপ স্থগিত করেছিলেন।

২০০৯ সালে উকা ইউরোপীয় পার্লামেন্ট ত্যাগ করেন। ২০১২ সালে তুরস্কের ইস্তাম্বুল বিমানবন্দরে তুর্কি কারাগারে কুর্দি বন্দীদের কাছে বিপুল সংখ্যক বি-১ ভিটামিন নেওয়ার চেষ্টার জন্য তাকে আটক করা হয়েছিল এবং জার্মানিতে নির্বাসিত করা হয়েছিল।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Halkların Bahçesi adını yakıştırdığı meclisin ilk Ezidi milletvekili FELEKNAS UCA"cumhuriyet.com.tr (তুর্কী ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  2. "Ex-Politikerin Feleknas Uca gründet eigene Stiftung"CZ – Cellesche Zeitung (জার্মান ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৫-১৭ 
  3. "5th parliamentary term | Feleknas UCA | MEPs | European Parliament"www.europarl.europa.eu (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০১-১২ 
  4. "6th parliamentary term | Feleknas UCA | MEPs | European Parliament"www.europarl.europa.eu (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০১-১২ 
  5. "World's first Yazidi MP on her way to Turkish parliament - Turkey News"Hürriyet Daily News