পাতি কেস্ট্রেল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পাতি কেস্ট্রেল
Common kestrel falco tinnunculus.jpg
পুরুষ Falco tinnunculus tinnunculus
সংরক্ষণ অবস্থা
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: Chordata
শ্রেণী: Aves
উপশ্রেণী: Neornithes
অধঃশ্রেণী: Neognathae
মহাবর্গ: Neoaves
বর্গ: Falconiformes
পরিবার: Falconidae
গণ: Falco
প্রজাতি: F. tinnunculus
দ্বিপদী নাম
Falco tinnunculus
Linnaeus, 1758
Subspecies

About 11, see text

Falco tinnunculus ditsr.png
Western part of range of F. t. tinnunculus
(also occurs in Siberia farther east)

  Present all-year     Breeding visitor only

প্রতিশব্দ

Falco rupicolus Daudin, 1800 (but see text)
Falco tinnunculus interstictus (lapsus)

পাতি কেস্ট্রেল (বৈজ্ঞানিক নাম: Falco tinnunculus) পরিযায়ী শিকারি পাখি। ধানখেত, মাঠের কাছের কোনো গাছে কিংবা বিদ্যুতের তারে বসে থাকে শিকার ধরার জন্য। দাগি পিঠ ও হলুদ পায়ের এই শিকারি পাখি একাকী কিংবা জোড়ায় চরে বেড়ায়। তৃণভূমি, আবাদি জমি ও পাহাড়ের ঢালে বিচরণ করতে ভালোবাসে। [২][৩]

আকার[সম্পাদনা]

তুলনামূলকভাবে পুরুষ পাখি থেকে মেয়েপাখি আকারে বড়। দেহের পালক বাদামি বা পাটকেলে। মরচে রঙের ছিট আছে। লেজের আগায় কালো বলয় আছে। পা ও আঙুল হলদে রঙের। নখর কালচে রঙের।[২][৩]

প্রজননকাল[সম্পাদনা]

এই পাখির প্রজননভূমি হিমালয়ের গিরিচূড়ায় ও পাকিস্তানের পার্বত্য এলাকা। খাড়া পাহাড়ের ফাটল ও পরিত্যক্ত দালানের ফোকরে খড়কুটো, লতাপাতা দিয়ে বাসা বাঁধে। কখনো কাকের খালি বাসায়ও ডিম দেয় এরা। ডিম হলুদ, সংখ্যায় তিন থেকে ছয়টি। ২৭ থেকে ২৯ দিনে ডিম ফোটে।[২][৩]

খাদ্য[সম্পাদনা]

খাদ্যতালিকায় রয়েছে বোলতা, উইপোকা, ছোট ইঁদুর, টিকটিকি, ছোট পাখি, পাখির ছানা ইত্যাদি।[২][৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. BirdLife International (২০১২)। "Falco tinnunculus"বিপদগ্রস্ত প্রজাতির আইইউসিএন লাল তালিকা। সংস্করণ 2012.1প্রকৃতি সংরক্ষণের জন্য আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন। সংগৃহীত ১৬ জুলাই ২০১২ 
  2. ২.০ ২.১ ২.২ ২.৩ পাতি কেস্ট্রেল,সৌরভ মাহমুদ, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ০১-১১-২০১২ খ্রিস্টাব্দ।
  3. ৩.০ ৩.১ ৩.২ ৩.৩ পাতি কেস্ট্রেল,সৌরভ মাহমুদ, কিশোরগঞ্জ ডট কম। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ০১-১১-২০১২ খ্রিস্টাব্দ।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]