নিদুমোলু সুমথি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নিদুমোলু সুমথি
আরো যে নামে
পরিচিত
দণ্ডমুদি সুমথি রাম মোহন রাও
জন্ম (1950-10-16) ১৬ অক্টোবর ১৯৫০ (বয়স ৭১)
এলেরু, অন্ধ্র প্রদেশ, ভারত
পেশাসংগীতজ্ঞ
বাদ্যযন্ত্রসমূহমৃদঙ্গ

নিদুমোলু সুমথি (ইংরেজি: Nidumolu Sumathi, জন্ম: ১৬ অক্টোবর ১৯৫০) বা দণ্ডমুদি সুমথি রাম মোহন রাও একজন ভারতীয় ঘাতবাদ্যযন্ত্র বাদক। তিনি মৃদঙ্গবাদক হিসাবে বিশেষ পারদর্শিতা অর্জন করেছেন।[১] তিনি মৃদঙ্গগুরু শ্রী দণ্ডমুদি রাম মোহন রাওয়ের পত্নী। তিনি ভারতের প্রথম মহিলা মৃদঙ্গবাদকদের মধ্যে একজন ও প্রথম মহিলা লয় ঘরানার শিল্পী। পুরুষশাসিত মৃদঙ্গ বাদ্যের জগতে তিনি ভারতের প্রথম মহিলা মৃদঙ্গবাদক শিল্পী।[২] সুমথি ২০২১ সালে ভারতের চতুর্থ সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান পদ্মশ্রী লাভ করেছেন।[৩]

জীবনী[সম্পাদনা]

১৯৫০ সালের ১৬ অক্টোবর তারিখে অন্ধ্র প্রদেশের পশ্চিম গোদাবরী জেলার এলুরুতে দণ্ডমুদি সুমথি রাম মোহন রাওয়ের জন্ম হয়েছিল। তাঁর পিতা শ্রী নিদুমোলু রাঘবাইয়া ও মাতা শ্রীমতী নিদুমোলু ভেঙ্কটরত্নম্মালৈ। মাত্র ৬ বছর বয়স থেকে সুমথি তাঁর বাবার কাছে মৃদঙ্গ বাজানো শিখেছিলেন। তাঁর বাবা একজন মৃদঙ্গ বিদ্বান ছিলেন।[৪]

২০০৩ সালে তিনি তাঁর গুরু শ্রী দণ্ডমুদি রাম মোহনের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। সুমথি তাঁর স্বামীর মতই আকাশবাণীর "এ-টপ" গ্রেড শিল্পী হিসাবে পরিগণিত হন। তিনি এই শ্রেণীতে অন্তর্ভুক্ত হওয়া প্রথম মহিলা মৃদঙ্গবাদক। এর মধ্য দিয়ে তাঁরা ভারতের একমাত্র এ-টপ গ্রেড মৃদঙ্গবাদক দম্পতি হিসাবে খ্যাত হয়েছেন।

২০০০ সালে তিনি ঘাতবাদ্য মৃদঙ্গ প্রচারের উদ্দ্যেশ্যে "লয় বেদিকা" নামর একটি সংগঠন স্থাপন করেছিলেন। শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হত। অনেক প্রখ্যাত বিদ্বানকে তিনি "লয় প্রবীন" উপাধি প্রদান করেছিলেন।[৪]

তিনি অনেক পুরস্কার ও সম্মাননা এবং সংবর্ধনা লাভ করেছেন। তিনি ২০১০ সালে ভারতের রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে সংগীত নাটক একাডেমী পুরস্কারে সম্মানিত হয়েছিলেন। এই সম্মাননা পুরস্কার লাভ করা একমাত্র মহিলা মৃদঙ্গশিল্পী তিনি। তাঁকে ২০১৫ সালে অন্ধ্র প্রদেশ সরকার "উগাদি পুরস্কারম" এ সম্মানিত করেছিল।

সংগীতক্ষেত্রে অসামান্য অবদানের জন্য ভারত সরকার তাঁকে ২০২১ সালে ভারতের চতুর্থ সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান পদ্মশ্রী প্রদান করে।

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

  • ১৯৭৪ ও ১৯৭৬ সালে দুবার মাদ্রাজ সংগীত একাডেমী থেকে শ্রেষ্ঠ মৃদঙ্গবাদক পুরস্কার
  • ১৯৮৫ সালে সংগীত একাডেমি থেকে পালানি সুব্রহ্মণ্য পিল্লাই স্মারক পুরস্কার
  • ২০০৫ সালে চেন্নাইয়ের ভারতীয় ফাইন আর্টস সোসাইটি থেকে শ্রেষ্ঠ মৃদঙ্গ বাদক পুরস্কার
  • ২০০৮ সালে নয়াদিল্লীর আন্তর্জাতিক প্রকাশন গৃহ থেকে ভারতের শ্রেষ্ঠ নাগরিক পুরস্কার
  • ২০০৯ সালে সংগীত নাটক একাডেমী পুরস্কার
  • ২০১৩ সালে চেন্নাইয়ের গুরুভায়ুর ডোরাই ট্রাস্ট থেকে গুরুভায়ুর ডোরাই ট্রাস্ট পুরস্কার
  • ২০১৫ সালে অন্ধ্র প্রদেশ সরকার থেকে উগাদি পুরস্কার
  • ২০১৬ সালে ব্যাঙ্গালোরের পারকাসিভ আর্টস সেন্টার থেকে পালানি সুব্রহ্মণ্য পিল্লাই স্মারক পুরস্কার[৫]
  • ২০২১ সালে পদ্মশ্রী[৩]

সম্মানজনক উপাধিসমূহ[সম্পাদনা]

  • মৃদঙ্গ শিরোমণি
  • মৃদঙ্গ মহারাণী
  • নধ ভগীরথ
  • মৃদঙ্গলয় বিদ্যাসাগর
  • মৃদঙ্গ বিন্যাস কলাভারতী
  • সুনাদ সুধানিধি
  • শ্রীমুখ মৃদঙ্গ বিদ্যামণি

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Four artistes from Telugu states honoured with Padma Shri"The News Minute (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২১-০১-২৫। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-২৯ 
  2. "Into a man's world - The Hindu"। সংগ্রহের তারিখ ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  3. Rao, P. Krishna (২০২১-০১-২৭)। "Covid-19 paralysed everything but not music"www.thehansindia.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-২৯ 
  4. Kumar, Ranee (২০১১-০৬-০৯)। "Into a man's world"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0971-751X। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-২৯ 
  5. "Mridanga Vidushi honoured | Andhra Pradesh First"hyderabadfirst.in (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-২৯