নিক জোনাস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
নিক জোনাস
Nick Jonas - Kingdom Premiere Oct 2014 (cropped) (cropped).jpg
২০১৪ সালের অক্টোবর মাসে জোনাস
জন্ম নিকোলাস জেরি জোরাস
(১৯৯২-০৯-১৬) ১৬ সেপ্টেম্বর ১৯৯২ (বয়স ২৬)
টেক্সাস, টেক্সাস, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
পেশা
  • গায়ক
  • গীতিকার
  • অভিনেতা
  • রেকর্ড প্রযোজক
কার্যকাল ২০০০–বর্তমান
আদি শহর ওয়েঅফ, নিউ জার্সি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
সঙ্গীত কর্মজীবন
ধরন
বাদ্যযন্ত্রসমূহ
  • কন্ঠ
  • গিটার
  • বাজ
  • পিয়ানো
  • কিবোর্ডস
  • পার্কুশিওন
  • ড্রামস
লেবেল
সহযোগী শিল্পী
ওয়েবসাইট nickjonas.com

নিকোলাস জেরি জোরাস (জন্ম সেপ্টেম্বর ১৬, ১৯৯২)[১] হলেন একজন মার্কিন গায়ক, গীতিকার, অভিনেতা এবং রেকর্ড প্রযোজক। জোনাস মাত্র সাত বছর বয়স থেকেই নাট্যমঞ্চে অভিনয় করা শুরু করেন, এবং ২০০২ সালে তিনি তার আত্বপ্রকাশকারী একক প্রকাশ করেন। ২০০৪ সালে তিনি তার নিজেস্ব নামের শিরোনামিক তার প্রথম আত্বপ্রকাশকারী অ্যালবাম প্রকাশ করেন, যেটি সামান্ন পরিমানে সাফল্য পেয়ে যায়, যদিও এটি জনপ্রিয় রেকর্ড লেবেল কলাম্বিয়া রেকর্ডস-এর মনোযোগ আকর্ষন করে। জোনাস তার বড় ভাইদেরকে নিয়ে একটি ব্যান্ড গঠন করেন, ব্যান্ডটির সদস্য ছিলেন জো এবং কেভিন, এবং যেটি জোনাস ব্রাদার্স নামে পরিচিত ছিল। ২০০৫ সালে, মাত্র ১৩ বছর বয়সে নিকের টাইপ ১ ডায়বেটিস ধরা পরে।[২] [৩] ২০০৬ সালে ব্যান্ডদলটি তাদের আত্বপ্রকাশকারী স্টুডিও অ্যালবাম ইট'স এবাউট টাইম রেকর্ড লেবেল কলাম্বিয়া রেকর্ডের মাধ্যমে প্রকাশ করে, যেটি বাণিজ্যিকভাবে সাফল্য অর্জন করতে ব্যর্থ হয়। জনপ্রিয় রেকর্ড রেকর্ড লেবেল হলিউড রেকর্ডস-এর সাথে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার পর, ২০০৭ সালে ব্যান্ডদলটি নিজেস্ব- শিরোনামিক দ্বিতীয় স্টুডিও অ্যালবাম প্রকাশ করে, যেটি তাদের সাফল্যমন্ডিত রেকর্ড বয়ে আনে। ঐ সময়কালে ব্যান্ডদলটি জনপ্রিয় মার্কিন শিশুতোষ টেলিভিশন চ্যানেল ডিজনি চ্যানেল-এর বিশিষ্ঠ ব্যক্তিত্বের অধিকারী হয়ে উঠে, এছাড়াও এর মাধ্যমে বিশাল পরিমানে ভক্ত এবং সমর্থক আর্জন করতে সক্ষম হয়, এর পরবর্তীতে ২০০৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত তাদের বিশ্বব্যাপী সাফল্যমন্ডিত গীতিকাব্যমূলক চলচ্চিত্র ক্যাম্প রক-এ হাজির হয়।

২০০৯ সালের জুলাই মাসে গান পরিবেশন করছেন জোনাস।

ব্যান্ডদলটি ২০০৮ সালে তাদের তৃতীয় স্টুডিও অ্যালবাম, এ্য লিটল বিট লঙ্গার প্রকাশ করে, যেটিও দলটির জন্য বানিজ্যিকভাবে সফলতা বয়ে আনে; অ্যালবামটির মূল এককটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেরা গান সমূহের তালিকা বিলবোর্ড হট ১০০-এ সেরা পাচঁ নম্বরে উঠে আসে। তাদের চতুর্থ স্টুডিও অ্যালবাম লাইনস, ভাইনস এন্ড ট্রায়িং টাইমস প্রকাশ করে, যদিও এটি এখনও সেরা ২০০ অ্যালবামের তালিকা বিলবোর্ড ২০০-এ এখন পযন্ত সাফল্যের তালিকায় রয়েছে, যেটি রেকর্ড পরিমান বিক্রয়ও হয়েছিল। ২০০৯ থেকে ২০১০ পযন্ত জোনাস এবং তার ভাইয়েরা ডিজনি চ্যানেল-এর ধারাবাহিক জোনাস-এ অভিনয় করেন। এর পরবর্তীতে জোনাস ব্রাদার্স যখন ব্যান্ডদলটি ভাঙ্গার খবর নিশ্চিত করে, তারপর নিক নতুন একটি ব্যান্ড গঠন করে, যেটি নিক জোনাস এন্ড দ্য এডমিনিস্ট্রেশন নামে পরিচিত, তারা ২০১০ সালে তাদের আত্বপ্রকাশকারী অ্যালবাম হু আই এম প্রকাশ করে, যেটি মাঝারি পরিমানে বানিজ্যিকভাবে সাফল্য অর্জন করে। এর পরবর্তীতে, জোনাস নাট্যমঞ্চের কাজে মনোনিবেশ করেন, এবং মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেল এনবিসি-এ প্রচারিত গীতিকাব্যমূলক দৃশ্যকাব্যের ধারাবাহিক স্মাশ-এ অাবর্তক ভূমিকায় অভিনয় করেন। ২০১৩ সালে জোনাস ব্রাদার্স ব্যান্ডটি আবারো পুনর্মিলিত হয়, যদিও তারা সৃজনশীল পার্থক্যের কারণে আনুষ্ঠানিকভাবে বিচ্ছিন্ন হয়।

ব্যান্ডদলটি ভেঙে যাওয়ার পর, জোনাস আবারো তার একক সঙ্গীত কর্মজীবনে ফিরে আসেন এবং মার্কিন রেকর্ড লেবেল আইল্যান্ড রেকর্ডস-এর সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়ে, তার দ্বিতীয় স্টুডিও অ্যালবামে কাজ করা শুরু করেন, এবং ২০১৪ সালে ল্যাবেলটির মাধ্যমে তার নিক জোনাস অ্যালবামটি প্রকাশ করেন। অ্যালবামটি সেরা ২০০ অ্যালবাম তালিকা বিলবোর্ড ২০০-এর সেরা ১০ নাম্বরে প্রবেশ করে, যদিও অ্যালবামটির দুটি একক সেরা ১০০ এককের তালিকা বিলবোর্ড হট ১০০-এর সেরা বিশটি গানের তালিকায় প্রবেশ করে। ২০১৫ সালে অ্যালবামটি আবারো প্রকাশ করা হয় নিক জোনাস এক্স২ হিসেবে। এই প্রকাশটি জোনাসকে সবার কাছে একটি নতুন চরিত্র পেতে সাহায্য করে, যেটি তাকে সেক্স সিম্বল-এর চারিত্র অর্জনে সহায়তা করে।জোনাস পরবর্তীতে "সেইফহাউজ রেকর্ডস" নামে একটি রেকর্ড লেবেল সহ-প্রতিষ্ঠা করেন, যেটি জনপ্রিয় মার্কিন রেকর্ড লেবেল আইল্যান্ড রেকর্ডস এবং হলিউড রেকর্ডস-এর সংযোগে তৈরী রেকর্ড লেবেল। এই রেকর্ডটির মাধ্যমে ২০১৬ সালে জোনাস, তার তৃতীয় অ্যালবাম লাস্ট ইয়্যার ওয়াজ কমপ্লিকেটেড প্রকাশ করেন। অ্যালবামটি একক সঙ্গীত হিসেবে "বিলবোর্ড" ২০০-এর অ্যালবামের তালিকায় তার সর্বোচ্চ অবস্থানে প্রবেশ, যদিও অ্যালবামটির মুখ্য এককটি "বিলবোর্ড" হট ১০০-এর তালিকায় সেরা জনপ্রিয় গানের তালিকায় বিশ নম্বরে প্রবেশ করেছে।

জীবন এবং কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৯২–২০০৬: শৈশবকাল এবং কর্মজীবনের শুরু[সম্পাদনা]

জোনাসের জন্ম, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস রাজ্যের ডেলাস শহরে,[৪] তিনি ডেনাইস (বিবাহপূর্ব নাম মিলার) এবং পল কেলিন জোনাস দম্পতির সন্তান। জোনাসের বাবা একজন গীতিকার, সঙ্গীতঙ্গ, এবং এসেব্লিস অব গড গির্জার সাবেক নির্ধারিত সচিব, যদিও তার মা একজন সাবেক সঙ্কেতিক ভাষার শিক্ষিকা এবং গায়িকা।[৫][৬][৭] নিকের একজন ছোট ভাই রয়েছে, যার নাম, ফ্রাঙ্কি, এবং দু'জন বড় ভাই রয়েছে, যারা হলেন জো এবং কেভিন[৮] জোনাস, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সি রাজ্যের ওয়েকঅফ শহরতলীতে লালিত-পালিত হন এবং তার মায়ের দ্বারা গৃহ শিক্ষা আওতাভুক্ত হন।জোনাসের অভিনয় জীবন শুরু হয়, যখন মাত্র ছয় বছর বয়স থাকাকালীন সময়ে, তার মা একদিন তাকে একটি নাপিতের দোকানে চুল কাটানোর জন্য নিয়ে গিয়েছিল, এবং তিনি সেখানেই দৃষ্টিগোচর হন এবং একজন পেশাদার অনুষ্ঠান ব্যবসার ব্যবস্থাপকের দ্বারা আরোপিত হন।[৯] তিনি বিশ্ববিখ্যাত জনপ্রিয় নাট্যমঞ্চ ব্রডওয়ে'তে মাত্র সাত বছর বয়সেই অভিনয় করা শুরু করেন, সেখানে তার অভিনয় করা চরিত্র সমূহ হল টাইনি টিম, চিপ পটস, লিটল জেইক, এছাড়াো গ্যাভরোচে ছাড়াও আরো অনেক চরিত্র সমূহে।[১০][১১][১২][১৩]

২০১০ সালে জোনাস, জোনাস ব্রাদার্সের একজন সদস্য গান পরিবেশন করছেন।

অ্যালবাম সমূহ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Nick Jonas"Allmusic.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১১-১০ 
  2. https://www.ontrackdiabetes.com/live-well/celebrities-diabetes/nick-jonas-flying-diabetes-flag-high
  3. https://www.diabeteshealth.com/type-1-pop-star-nick-jonas-tells-his-story/
  4. Vena, Jocelyn (অক্টোবর ১৩, ২০০৮)। "Jonas Brothers To Play Thanksgiving Halftime Show In Dallas – News Story | Music, Celebrity, Artist News | MTV News"। Mtv। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০২-২৪ 
  5. "The Jonas Brothers: It's full scream ahead"Los Angeles Times। ২০০৯-০২-২৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৭-২৫ 
  6. Jac Chebatoris (২০০৮-০১-২৬)। "The Boy Band Next Door"Newsweek। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৭-২৫ 
  7. Cotliar, Sharon (২০১০-০৬-২৫)। "Growing Up Jonas"। People Magazine। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৭-২৩ 
  8. Kaufman, Gil (ফেব্রুয়ারি ৭, ২০০৫)। "The New Boy Bands"। MTV। নভেম্বর ২৮, ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২২, ২০০৮ 
  9. Moss, Corey (এপ্রিল ৬, ২০০৬)। "More Blink-182 Than Hanson, It's Time for the Jonas Brothers"। MTV। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৯-০৬ 
  10. "Playbill News: Beauty and the Beast Becomes 8th Longest-Running Show Aug. 4"Playbill। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৯-০৬ 
  11. "Playbill News: Photo Call: Les Misérables: Leading Mann"Playbill। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৯-০৬ 
  12. "Playbill Biography: Nicholas Jonas"Playbill। আগস্ট ৩০, ২০১০। সেপ্টেম্বর ১৪, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ৬, ২০১০ 
  13. "Nick Jonas Goes Undercover on Reddit, YouTube, Twitter and Instagram"। YouTube। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১১-০২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:Jonas Brothers টেমপ্লেট:Nick Jonas টেমপ্লেট:Nick Jonas songs

[[Category:আইল্যান্ড রেকর্ডসের গায়ক]]