নিকোলাস হল্ট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
নিকোলাস হল্ট
Hoult.jpg
২০০৯ সালের সেপ্টেম্বরে ৬৬তম ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে হল্ট
জন্ম নিকোলাস কারাডক হল্ট
পেশা অভিনেতা
কার্যকাল ১৯৯৬-বর্তমান

নিকোলাস কারাডক হল্ট (ইংরেজি: Nicholas Caradoc Hoult)[১] (জন্ম ৭ ডিসেম্বর, ১৯৮৯)[২][৩][৪] হলেন একজন ইংরেজ অভিনেতা। তিনি ২০০২ সালে অ্যাবাউট আ বয় চলচ্চিত্রে মার্কাস ব্রিউয়ার এবং স্কিনস নামক ই৪ টিভি সিরিজে টনি স্টোনেম চরিত্রে অভিনয়ের জন্য খ্যাতি অর্জন করেছেন।

প্রথম জীবন[সম্পাদনা]

হল্ট বার্কশায়ারের ওয়ার্কিংহ্যামে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তিনি পিয়ানো শিক্ষক গ্লেনিস হল্ট (ব্রাউন) ও ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের পাইলট রজার হল্টের চার সন্তানের মধ্যে তৃতীয়।[১][৫][৬] তাঁর ভাইবোনেদের নাম জেমস, রোজি ও ক্ল্যারিস্টা। অভিনেত্রী ডেম অ্যানা নিজেল তাঁর আত্মীয়া।[৬] তিনি বার্কশায়ারের ব্র্যাকনেলের রেনলাফ চার্চ অফ ইংল্যান্ড স্কুলে পড়াশোনা করেছিলেন। দ্বাদশ বর্ষে তিনি স্কুল ছেড়ে অভিনয় কর্মজীবনে মনোনিবেশ করেন।[৭]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

তিন বছর বয়সে হল্ট মায়ের সঙ্গে একটি নাটক দেখতে গিয়েছিলেন। সেই সময় নাট্যপরিচালক তাঁকে দেখতে পান এবং নাটকে অভিনয় করার পরামর্শ দেন।[৮] তিনি সিলভিয়া ইয়ং স্টেজ স্কুলে অভিনয় শেখেন। ১৯৯৬ সালে ইন্টিমেট রিলেশনস ছবিতে প্রথম বাণিজ্যিকভাবে অভিনয় করেন। এরপর তিনি মূলত টেলিভিশনে অভিনয় করতেন। পরে অ্যাবাউট আ বয় চলচ্চিত্রে বারো বছর বয়সী মার্কাসের ভূমিকায় অভিনয় করেন।

সিক্সথ ফর্মে থাকাকালীন তিনি ই৪ ড্রামা স্কিনস-এর প্রথম দুটি সিরিজে টনি স্টোমেনের ভূমিকায় অভিনয় করেন। এই চরিত্রে অভিনয় করে হল্ট ওয়াকারস হোম গ্রোন ট্যালেন্ট অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনীত হয়েছিলেন।[৯]

২০০৯ সালের অগস্ট মাসে হল্ট "হেল্প গিভ দেম আ ভয়েস" প্রচার কর্মসূচিতে অংশ নেন। এই প্রচার কর্মসূচিকে সাহায্য করার জন্য মুক্তিপ্রাপ্ত একটি শর্ট ফিল্মে তিনি এক কিশোরীর ভূমিকায় অভিনয়ও করেছিলেন। ২০০৯ সালেই তিনি টম ফোর্ডের চলচ্চিত্র আ সিঙ্গল ম্যান-এ অভিনয় করেন। এই ছবিটি ক্রিস্টোফার ইশারউড রচিত একই নামের একটি উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত হয়।

২০১০ সালের মার্চ মাসে তিনি দ্য মিডনাইট ব্লাস্টের একটি ভিডিওতে অভিনয় করেন।[১০] ২০১০ সালের ৮ জুলাই, ঘোষণা করা হয় ম্যাথিউ ভন পরিচালিত এক্স-মেন স্পিন-অফ চলচ্চিত্র এক্স-মেন: ফার্স্ট ক্লাস-এ তিনি বিস্ট চরিত্রে অভিনয় করবেন।[১১] এমটিভি নেটওয়ার্কের নেক্সটমুভি ডট কম 'ব্রেকআউট স্টারস টু ওয়াচ ফর ইন ২০১১' তালিকায় তাঁর নাম অন্তর্ভুক্ত করে।[১২]

২০১১ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে জানা গিয়েছে যে হল্টকে জ্যাক দ্য জায়েন্ট কিলার ছবির প্রধান চরিত্রটিতে অভিনয়ের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।[১৩]

ফিল্মোগ্রাফি[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

বছর নাম ভূমিকা দ্রষ্টব্য
১৯৯৬ ইন্টিমেট রিলেশনস ববি
২০০২ অ্যাবাউট আ বয় মার্কাস ব্রিউয়ার ফিনিক্স ফিল্ম ক্রিটিকস সোসাইটি অ্যাওয়ার্ড ফর বেস্ট ইউথ অ্যাকটর
মনোনীত — ব্রডকাস্ট ফিল্ম ক্রিটিকস অ্যাসোসিয়েশন অ্যাওয়ার্ড ফর বেস্ট ইয়াং পারফরমার
২০০৫ ওয়াহ-ওয়াহ রালফ কম্পটন
২০০৬ দি ওয়েদার ম্যান মাইক স্প্রিটজেল
২০০৬ কিডাল্টহুড ব্লেক
২০০৯ আ সিঙ্গল ম্যান কেনি পটার
২০১০ ক্ল্যাশ অফ দ্য টাইটানস ইউসেবায়োস
২০১১ এক্স-মেন: ফার্স্ট ক্লাস হ্যাঙ্ক ম্যাককয় / বিস্ট
২০১১ স্কিনস[১৪] টনি স্টোমেন
২০১২ জ্যাক দ্য জায়েন্ট কিলার জ্যাক

টেলিভিশন অভিনয়[সম্পাদনা]

বছর নাম ভূমিকা দ্রষ্টব্য
১৯৯৭ মি. হোয়াইট গোজ টু ওয়েস্টমিনস্টার জন টেলিভিশন চলচ্চিত্র
২০০১ ওয়াকিং দ্য ডেড ম্যাক্স ব্রাইসন সিরিজ ১ এপিসোড ৭-৮ "আ সিম্পল স্যাক্রিফাইস"
২০০৩ কিন এডি এডওয়ার্ড মিলস "হু ওয়ান্টস টু বি ইন আ ক্লাব দ্যাট উড হ্যাভ মে অ্যাজ আ মেম্বার?" এপিসোড
২০০৭ কামিং ডাউন টু মাউন্টেন ডেভিড ফিলিপস টেলিভিশন চলচ্চিত্র
২০০৭-০৮ স্কিনস টনি স্টোমেন প্রধান চরিত্র (১৯ এপিসোড)
২০০৮ ওয়ালান্ডার স্টিফ্যান ফ্রেডম্যান "সাইডট্র্যাকড" এপিসোড

মঞ্চ[সম্পাদনা]

বছর নাম ভূমিকা দ্রষ্টব্য
২০০৯ নিউ বয় ব্যারি ট্র্যাফালগার স্টুডিওজ

পুরস্কার[সম্পাদনা]

বছর পুরস্কার বিভাগ ভূমিকা ফলাফল
২০০৩ ইয়াং আর্টিস্ট অ্যাওয়ার্ড বেস্ট পারফরম্যান্স ইন আ ফিচার ফিল্ম
লিডিং ইয়াং অ্যাকটর[১৫]
মার্কাস ব্রিউয়ার, অ্যাবাউট আ বয় চলচ্চিত্রে মনোনীত
ফিনিক্স ফিল্ম ক্রিটিকস সোসাইটি অ্যাওয়ার্ড বেস্ট পারফরম্যান্স বাই আ ইউথ ইন আ
লিডিং অর সাপোর্টিং রোল - মেল[১৬]
বিজয়ী
ব্রডকাস্ট ফিল্ম ক্রিটিকস অ্যাসোসিয়েশন অ্যাওয়ার্ড বেস্ট ইয়াং পারফরমার[১৭] মনোনীত
২০১০ ব্রিটিশ অ্যাকাডেমি ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডস রাইজিং স্টার[১৮] মনোনীত

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. Births, Marriages & Deaths Index of England & Wales, 1984-2004. Gives name at birth as "Nicholas Caradoc Hoult".
  2. Hoult, Nicholas। "The Nicholas Hoult Blog, 3rd July 2006"। ২০০৭-০৯-২৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৫-১৪  . Hoult writes, "I'm still only 16!"
  3. Thomas, David (২০০২-০৫-০১)। "About the Boy"Telegraph। London। পৃষ্ঠা 2। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৫-২০  . Author refers to Hoult as a 12-year-old boy in 2002.
  4. Pool, Hannah (১৮ জানুয়ারি ২০০৭)। "Question Time"Guardian Unlimited। London। 
  5. Telegraph (২০০২-০৭-২৬)। "Looks like child's play"। The Age। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৪-১৪ 
  6. Shoard, Catherine (২০০৭-০১-১৪)। "Teen player"। London: Telegraph। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৪-১৪  [অকার্যকর সংযোগ]
  7. The Daily Telegraph (২০০৫-০৯-২৪)। "A smooth crossin-g"। Weekend Standard। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৪-১৪ 
  8. Fisher, Alice (২০১০-০১-৩১)। "Hoult… who goes there?"The Guardian। London। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৫-২০ 
  9. http://www.thesun.co.uk/sol/homepage/showbiz/tv/article1160389.ece
  10. ইউটিউবে Lez Be Friends official YouTube video
  11. "Beast and Banshee Cast for X-Men: First Class"Superhero Hype!। ২০১০-০৭-০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৭-০৮ 
  12. Evry, Max (৫ জানুয়ারি ২০১১)। "25 Breakout Stars to Watch for in 2011"। Next Movie। সংগ্রহের তারিখ ১১ এপ্রিল ২০১১ 
  13. Flemming, Kit (২০১১-০২-১১)। "Nicholas Hoult To Star In 'Jack The Giant Killer'"Deadline.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৩-০২ 
  14. skins cast stars Dev Patel and Nicholas Hoult sign up for Skins movie", nowmagazine, May 27, 2010. Retrieved on 2011-01-03.
  15. "24th Annual Young Artist Awards"। সংগ্রহের তারিখ ৩ জুন ২০১০ 
  16. "Phoenix Film Critics Society Awards - Awards for 2003"IMDb। সংগ্রহের তারিখ ৩ জুন ২০১০ 
  17. "The 8th Critics' Choise Awards Winners and Nominees"Broadcast Film Critics Association। সংগ্রহের তারিখ ৩ জুন ২০১০ 
  18. "The official winners and nominees of the Orange British Academy Film Awards in 2010"BAFTA। সংগ্রহের তারিখ ৩ জুন ২০১০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]