দ্য রেড মাওলানা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দ্য রেড মাওলানা
লেখকনুরুল কবির
দেশবাংলাদেশ
ভাষাEnglish
প্রকাশকসংহতি প্রকাশন
আইএসবিএন৯৭৮-৯৮৪-৮৮৮২-২৫-২

দ্য রেড মাওলানা হচ্ছে মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী সম্পর্কে বাংলাদেশী সাংবাদিক নুরুল কবিরের লেখা ইংরেজি ভাষার একটি আলোচিত বই। । [১] এ বইতে ভারতের ব্রিটিশ রাজ্যের প্রতিপক্ষ ভাসানীর জীবন ও কর্ম নিয়ে ব্যপক আলোচনা রয়েছে। তার বিপ্লবী বাম দৃষ্টিভঙ্গি ও অবস্থানের জন্য তিনি "লাল মাওলানা" নামে পরিচিত ছিলেন। তাই বইটির নামও ‘রেড মাওলানা’ শব্দটি যুক্ত করা হয়েছে। (লাল-এর ইংরেজি প্রতিশব্দ রেড)। বইটি অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় লাইব্রেরিতে স্থান পায়। [২][৩][৪]

বিবরণ[সম্পাদনা]

বইটি দশ অধ্যায়ে অন্তর্ভুক্ত। কৃষ্ণের শোষণের বিরুদ্ধে, ব্রিটিশ ঔপনিবেশিকতার বিরুদ্ধে এবং জাতিগত বিচ্ছিন্নতার বিরুদ্ধে ভাসানির রাজনৈতিক কর্মকে বর্ণনা করে। তিনি মুসলিম লীগ ছেড়ে আওয়ামী লীগ গঠনের সময় তার ভূমিকা কি ছিলো? বৈদেশিক ভাষার ঔপনিবেশিক স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে তার লড়াই, আওয়ামী লীগের সাথে তার দুরুত্ব তৈরির কারণ, যখন একটি দল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সামরিক চুক্তিতে যোগ দিতে আইয়ুব খানের সিদ্ধান্ত সমর্থন করার সিদ্ধান্ত নেয়; ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি গঠনে তার ভূমিকা; পাকিস্তানের নব্য ঔপনিবেশিকতার বিরুদ্ধে তার ভূমিকা, এবং ভাসানী কীভাবে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেন। বইটি ঐতিহাসিক ফারাক্কা লং মার্চের সময় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বৈরাচারী শাসন এবং ভাসানী পরবর্তী গতিশীল ভূমিকার বিষয়ে আলোচনা করে। [৫]

প্রকাশনী[সম্পাদনা]

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী এই বইয়ের ভবিষ্যদ্বাণী লিখেছেন। বইটি প্রথম ২০১২ সালে একুশে বই মেলায় প্রথম প্রকাশিত হয়। বইটি ঢাকা থেকে প্রকাশ করে সংহতি প্রকাশনা। [১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "THE RED MOULANA-নুরুল কবির বিদ্যুৎ ||ROKOMARI.COM||"। rokomari.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৩-২৩ 
  2. "Remembrance | Maolana Abdul Hamid Khan Bhashani"। archive.thedailystar.net। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৩-২৩ 
  3. "New Age | Newspaper"। newagebd.com। ২০১৪-০৪-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৩-২৩ 
  4. Kabīra, Nūrula (২০১২)। The Red Moulana : an essay on Bhashani's ever-oppositional democratic spirit (English ভাষায়)। পৃষ্ঠা National Library of Australia। আইএসবিএন 9789848882252 
  5. "New Age | Newspaper"। newagebd.com। ২০১৪-০২-২৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৩-২৩