দ্য ভবানীপুর গুজরাটী এডুকেশন সোসাইটি স্কুল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

দ্য ভবানীপুর গুজরাটি এডুকেশন সোসাইটি স্কুল (বি.ই.এস. স্কুল), এটির পুরাতন নাম জে জে আজমেরা উচ্চ বিদ্যালয় হিসাবেও পরিচিত, হল কলকাতার একটি বেসরকারী, সহশিক্ষামূলক, কে-১২ বিদ্যালয়। স্কুলটি কলকাতার ভবানীপুর এলাকায় অবস্থিত।[১][২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

জে জে আজমেরা উচ্চ বিদ্যালয় বা দ্য ভবানীপুর গুজরাটী এডুকেশন সোসাইটি স্কুল ১৯২৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।[১][২] মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি ১৯৫৮ সালে এবং উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি ১৯৬০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। পরবর্তীতে, বিইএস কলেজ ১৯৬৬ সালে গুজরাটি সোসাইটি, কলকাতা দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, যা এই স্কুল থেকে বেড়ে ওঠে।[১][২][৩][৪]

স্কুল-কলেজ দুটিই ব্যক্তিগত মালিকানাধীন ট্রাস্ট দ্বারা শুরু হয়েছিল কলকাতায় বসবাসরত একজন গুজরাটি ব্যবসায়ী। এমনকি, স্কুল ও কলেজের জমি যে জায়গায় দান করেছিলেন তারা কয়েকজন উদার গুজরাটি ব্যবসায়ী। স্কুল ভবন নির্মাণের জন্য তহবিল দান করেছিলেন এক ভদ্রলোক যার নামে এই স্কুলটির নামকরণ করা হয়েছিল জে জে আজমেরা উচ্চ বিদ্যালয়। প্রতিষ্ঠাতাদের মূল উদ্দেশ্য ছিল তাদের ওয়ার্ডগুলিকে গুজরাটি ভাষাতে শিক্ষা দেওয়া, যাতে তারা তাদের মাতৃভাষায় লেখা এবং কথা বলা শিখতে পারে এবং প্রায় এক দশক আগে পর্যন্ত স্কুলে ভর্তি কেবলমাত্র গুজরাটিভাষী লোকের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল, মূল নিয়ম অনুসারে। ১৯২৮ সালে বিদ্যালয়ের শুরু থেকে ২০০১ সাল অবধি পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনার মাধ্যমটি পুরোপুরি গুজরাটি এবং ষষ্ঠ থেকে ইংরেজিতে এবং দ্বিতীয় ভাষা গুজরাটি ছিল। বাংলা কেবলমাত্র পঞ্চম এবং ষষ্ঠ শ্রেণির জন্য একটি বিষয় হিসাবে পড়ানো হত৷ বিদ্যালয়টি ২০০১ সাল পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গ মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সাথে অনুমোদিত ছিল এবং ছাত্রদের মাধ্যমিক পরীক্ষায় পাস করার জন্য উত্তীর্ণ হতে হয়েছিল।

বর্তমান দিন[সম্পাদনা]

তবে, ২০০২ সাল থেকে স্কুলটি এখন সব সম্প্রদায়ের জন্য উন্মুক্ত এবং শিক্ষার মাধ্যমটি ইংরেজি; প্রদত্ত দ্বিতীয় ভাষাটি হিন্দি বা বাংলাতে পরিবর্তন করা হয়েছে। গুজরাটি ভাষার শিক্ষা সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে গেছে। স্কুলটি ভবানীপুর গুজরাটি শিক্ষা সমিতির একটি অংশ, যা কলকাতার অন্যতম জনপ্রিয় কলেজ পরিচালনা করে। স্কুলটি এখন নয়াদিল্লি আইসিএসই বোর্ড দ্বারা অনুমোদিত এবং প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক পর্যন্ত পড়াশোনা হয়, যার পরে তাদের ছাত্ররা কলা, বিজ্ঞান, বাণিজ্য বা ফ্যাশন বিষয়ে আরও পড়াশোনার জন্য শাখাটি বেছে নিতে পারে, যা একই ট্রাস্ট দ্বারা পরিচালিত ভবানীপুর এডুকেশন সোসাইটি কলেজ প্রদান করে।[১][২][৫] বিদ্যালয়ের একটি কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রও রয়েছে, এটি অ্যাপটেকের সাথে একটি যৌথ উদ্যোগ।[১]

উল্লেখযোগ্য প্রাক্তন ছাত্রছাত্রী[সম্পাদনা]

  • দিলীপ দোশি — প্রখ্যাত স্পিন বোলার[৬]
  • দিলীপ সংঘভী — সান ফার্মার প্রতিষ্ঠাতা, ভারতের অন্যতম ধনী ব্যক্তি।[৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "J J Ajmera High School , Kolkata, West Bengal, India"। ২৫ মার্চ ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৯ 
  2. "The Bhawanipur Gujarati Education Society College, Kolkata."। ২০১১-১০-০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-১৮ 
  3. "The Bhawanipur Gujarati Education Society School"। ২০১১-০৮-২৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-১৮ 
  4. "Indias Schools"। ২০১২-০৩-২৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-১৮ 
  5. "The Bhawanipur Gujrati Education Society is among the few institutes that look into education in totality."। ২০১১-০৯-০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-১৮ 
  6. Dilip Doshi (১৯৯১)। Spin Punch। Rupa & Company। পৃষ্ঠা 2। আইএসবিএন 978-81-7167-071-0 
  7. "The Rise of a Common Man: Dilip Shanghavi - KnowStartup"KnowStartup। ৪ আগস্ট ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৯ এপ্রিল ২০১৮