দীপালী পন্ত জোশী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দীপালী পন্ত
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1957-12-12) ১২ ডিসেম্বর ১৯৫৭ (বয়স ৬৩)
জাতীয়তাভারতীয়
দাম্পত্য সঙ্গীরাজীব জোশী
প্রাক্তন শিক্ষার্থীএলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাব্যাঙ্কের মালিক

ড. দীপালী পন্ত জোশী ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংকের একজন প্রাক্তন নির্বাহী পরিচালক (তিনি ২০১৭ সালে অবসর গ্রহণ করেছেন)। তিনি একজন অর্থনীতিবিদ, যিনি অর্থনৈতিক বিষয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় কলাম লিখে থাকেন।[১] তিনি তাঁর কর্মজীবনে মুদ্রা পরিচালনা বিভাগ, আইন বিভাগ এবং পূর্বানুমান বিভাগে পেশাগত দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি তথ্য অধিকার আইনের আওতায় প্রথম উত্তরবিচারকারী কর্তৃপক্ষ ছিলেন, পাশাপাশি তিনি ইনস্টিটিউট অফ ব্যাংকিং পার্সোনাল সিলেকশন (আইবিপিএস)-এর পরিচালনা পরিষদের একজন সদস্য ছিলেন। এছাড়াও তিনি ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংক নোট মুদ্রণ প্রাইভেট লিমিটেডের (বিআরবিএনএমপিএল)-এর পরিচালক ছিলেন। তিনি রাজস্থানের আরবিআই-এর আঞ্চলিক পরিচালক হিসাবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। কার্যনির্বাহী পরিচালক পদে নিযুক্ত হওয়ার পূর্বে তিনি গ্রাহক সেবা বিভাগ এবং পল্লী পরিকল্পনা ও ঋণ বিভাগের দায়িত্বে কর্মরত ছিলেন।[২]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

দীপালী পন্ত জোশী এলাহাবাদের সেন্ট মেরি কনভেন্টে এবং এলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন। তাঁর বাবা মি. জগদীশ মোহন পন্ত এলাহাবাদ হাইকোর্টের একজন উকিল ছিলেন এবং পরবর্তীকালে উত্তর প্রদেশ রাজ্যের মহাপরিপালক এবং সরকারি অছি হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তাঁর মা অধ্যাপক চন্দ্র পান্ত এলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাস বিভাগে পাঠদান করেছেন।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

দীপালী পন্ত জোশী তাঁর বাবা মায়ের একমাত্র সন্তান। তিনি রাজীব জোশী নামে এক ব্যক্তির সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন। তাঁদের দুটি ছেলে রয়েছে; যাদের নাম পরিতোষ এবং কুনাল।

পেশা[সম্পাদনা]

দীপালী পন্ত জোশী হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের এশিয়া সেন্টারের একজন সহযোগী ছিলেন; যেখানে তিনি অর্থসংস্থান এবং অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে ডক্টরাল গবেষণা করেছেন। তিনি এলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন ও পরিচালনা বিভাগ থেকে ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জন করেছেন। তিনি ১৯৮১ সালে সরাসরি ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংক-এ যোগ দিয়েছেন এবং তখন থেকেই রিজার্ভ ব্যাংকের সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। নাগরিক ব্যাংক ও মুদ্রা পরিচালনার দায়িত্বে থাকা প্রধান জেনারেল এবং আরবিআই হায়দ্রাবাদের প্রশাসনিক দায়িত্বে কর্মরত অবস্থায় তিনি বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পেশাদার দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি অন্ধ্র প্রদেশ রাজ্যের ব্যাংকিং খাতের ন্যায়পাল, ব্যাংকার্স প্রশিক্ষণ কলেজের অধ্যক্ষ এবং অন্ধ্র ব্যাংকের বোর্ড পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন। তিনি পূর্বে পল্লী পরিকল্পনা ও ঋণ বিভাগের প্রধান মহাব্যবস্থাপক হিসেবে কাজ করেছেন। তিনি ব্যাংকে কাজ করার পাশাপাশি একজন লেখকও; তিনি এপর্যন্ত চারটি উল্লেখযোগ্য বই রচনা করেছেন। তিনি কলেজ অফ অ্যাগ্রিকালচারাল ব্যাংকিং, মুসৌরীর আইএএস একাডেমি, হায়দ্রাবাদের প্রশাসনিক স্টাফ কলেজ এবং বিভিন্ন ভারতীয় ও বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বক্তৃতা প্রদান করেন। তিনি বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক সম্মেলনে আরবিআই-এর প্রতিনিধিত্ব করেছেন।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Bloomberg - Are you a robot?"www.bloomberg.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০১-০৩ 
  2. Press Releases by Reserve Bank of India,Date : 1 Jan 2013
  3. "Deepali Pant Joshi: Indian rural banking sector – big challenges and the road ahead"। ১ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০১৩