ডেস্‌পিকেবল মি (ফ্র্যানচাইজ)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ডেসপিক্যাবল মি
Despicable Me logo.svg
স্রষ্টাসার্জিও পাবলোস[১]
চলচ্চিত্র এবং টেলিভিশন
চলচ্চিত্র
স্বল্পদৈঘ্য চলচ্চিত্র
গেম
ভিডিও গেম
  • ডেসপিক্যাবল মি: দ্য গেম
  • ডেসপিক্যাবল মি: মিনিয়ন মায়হেম
  • ডেসপিক্যাবল মি: মিনিয়ন রাশ
অডিও
সাউন্ডট্র্যাক
বিবিধ
থিম পার্ক

ডেস্‌পিকেবল মি ইংরেজি: Despicable Me, অনুবাদ 'ঘৃণ্য আমি') ইউনিভার্সাল পিকচার্স পরিবেশিত এবং ইলুমিনেশন এন্টারটেনমেন্ট প্রযোজিত কম্পিউটার অ্যানিমেটেড হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র ফ্র্যানসাইজ। এ যাবৎ তিনটি ফিচার চলচ্চিত্র, ছয়টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র, ভিডিও গেম এবং অন্যান্য ফ্র্যানসাইজ অর্ন্তভূক্তির মধ্য দিয়ে এটি গঠিত। এর কেন্দ্রীয় চরিত্রে রয়েছে গ্রু, একজন সুপার-ভিলেন; তার হলুদ-রঙের মিনিয়ন; এবং তিনটি অনাথ মেয়ে, মার্গো, এডিথ ও এ্যইগনেস। এই ফ্র্যানসাইজে ইউনিভার্সাল স্টুডিও ফ্লোরিডা এবং ইউনিভার্সাল স্টুডিও হলিউডে ডেসপিক্যাবল মি: মিনিয়ন মায়হেম নামে একটি সিমিউলেটর রাইড আকর্ষণ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

ফিচার চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

ডেসপিক্যাবল মি (২০১০)[সম্পাদনা]

ডেসপিক্যাবল মি, ইলুমিনেশন এন্টারটেনমেন্ট থেকে এই ধারাবাহিকের প্রথম চলচ্চিত্র যেটি জুলাই ৯, ২০১০ সালে মুক্তি পায়। সের্গিও পাবলোসের মূল গল্পের উপর ভিত্তি করে চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করেছেন পিয়েরে কফিন এবং ক্রিস রিনোড। চলচ্চিত্রে প্রধান চরিত্র গ্রু’র ভূমিকায় কণ্ঠ দেন স্টিভ কারেল, মার্গো চরিত্রে মিরান্ডা কসগ্রোভ, এডিথ চরিত্রে ডানা গেইয়ার, এ্যইগনেস চরিত্রে এলসি ফিসার, ভেক্টর চরিত্রে জ্যাসন সেগেল, ড. নেফারিও চরিত্রে রাসেল ব্র্যান্ড এবং গ্রুয়ের মা মার্লেনা চরিত্রে জুলি অ্যান্ড্রুস কণ্ঠ অভিনেতা হিসেবে কাজ করেন। চলচ্চিত্রটি গ্রু নামের একজন সুপার-ভিলেনের গল্প উপস্থাপন করে; যে মার্গো, এডিথ ও এ্যইগনেস এই তিনটি মেয়েকে অনাথাশ্রম থেকে দত্তক নেয় ভেক্টরের (অন্যথায় ভিক্টর বলা হয়) কাছ থেকে একটি শ্রিঙ্ক রে চুরি করে আনার জন্যে, যেটি দিয়ে সে পৃথিবীর চাঁদকে চুরি করে আনার পরিকল্পনা করে।

ডেসপিক্যাবল মি ২ (২০১৩)[সম্পাদনা]

২০১০ সালের ডেসপিক্যাবল মি চলচ্চিত্রের সিকুয়েল ‘‘ডেসপিক্যাবল মি ২’’ শিরোনামে, জুলাই ৩, ২০১৩ সালে মুক্তি পায়, যেটি রচনা করেছেন সিঙ্কো পল এবং কেন ডরিও এবং পরিচালনা করেছেন পিয়েরে কফিনক্রিস রিনোডস্টিভ কারেল, মিরান্ডা কসগ্রোভ, ডানা গেইয়ার,[২] এলসি ফিসার,[৩] রাসেল ব্র্যান্ড কণ্ঠ অভিনেতা হিসেবে গ্রু, মার্গো, এডিথ, এ্যইগনেস এবং ড. নেফারিও চরিত্রে পূনরাবৃত্তি ঘটান।[৪] সিকুয়েলটি ইতিবাচক পর্যালোচনা অর্জন করে এবং বিশ্বব্যাপী পূর্বের চলচ্চিত্ররে চেয়ে $৯৭০ মিলিনের অধিক আয় করে।[৫][৬]

ডেসপিক্যাবল মি ৩ (২০১৭)[সম্পাদনা]

স্টিভ বার্ক, এনবিসি ইউনিভার্সালের সিইও, সেপ্টেম্বর ২০১৩ সালে নিশ্চিত করেন ডেসপিক্যাবল মি ধারাবাহিকের তৃতীয় চলচ্চিত্রের কাজ চলছে।[৭] জানুয়ারি ২০১৪ সালে, চলচ্চিত্রটি জুন ৩০, ২০১৭ সালে মুক্তি দেয়ার বিষয়ে ঘোষণা দেয়া হয়।[৮]

স্পিন-অফ চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

মিনিয়ন্স (২০১৫)[সম্পাদনা]

একটি স্পিন-অফ প্রিকুয়েল চলচ্চিত্র, যেখানে প্রধান চরিত্রে রয়েছে মিনিয়ন এবং জুলাই ১০, ২০১৫ সালে চলচ্চিত্রটি মুক্তি দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।[৯] ব্রিয়ান লিঙ্খ রচিত চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করেছেন পিয়েরে কফিন ও কাইল বালডা, এবং প্রযোজনা করেছেন ক্রিস মালেডান্ড্রি ও জেনেত হালে।[১০] সান্ড্রা বুলক এই চলচ্চিত্রে ভিলেন স্কার্লেট ওভারকিল চরিত্রে[১১] এবং জন হাম তার স্বামী ও উদ্ভাবক হার্ব ওভারকিল চরিত্রে কণ্ঠ অভিনেতা হিসেবে কাজ করেবেন।[১২]

স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

ডেসপিক্যাবল মি চলচ্চিত্রের উপর ভিত্তি করে নির্মিত হোম মেকওভার (২০১০), ওরিয়েন্টেশন ডে (২০১০) এবং বানানা (২০১০) তিনটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ২০১০ সালে চলচ্চিত্রের ডিভিডি এবং ব্লু-রে সংস্করণে মুক্তি দেয়া হয়েছিল।[১৩] ২০১৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ডেসপিক্যাবল মি ২ ডিভিডি এবং ব্লু-রে সংস্করণে বাকি তিনটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র: পাপি (২০১৩), পেনিক ইন দ্যা মেইলরুম (২০১৩), এবং ট্রেইনিং হুইল্স (২০১৩) অন্তর্ভুক্ত হয়।[১৪] মিনিয়ন স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের একটি ধারাবাহিক ২০১৫ সালে মিনিয়ন্স চলচ্চিত্রের সাথে প্রদর্শিত হবে।[১৫]

হোম মেকওভার (২০১০)[সম্পাদনা]

দুইটি মিনিয়ন মার্গো, এডিথ ও এ্যইগনেসকে গ্রুর ঘরে থেকে যেতে সাহার্য করে, ফলে তত্বাবধায়ক মেয়েদের মিস হ্যাতির মেয়েদের ঘরে ফিরিয়ে আনতে ব্যার্থ হয়।

ওরিয়েন্টেশন ডে (২০১০)[সম্পাদনা]

তিনটি নতুন মিনিয়ন বোমা-আরহন কাজে যায়, যা তাদের জন্য খুব কষ্টসাধ্য ছিল, ফলে তারা একটি নতুন চিন্তা করে।

বানানা (২০১০)[সম্পাদনা]

তিনটি মিনিয়ন একটি কলার জন্য লড়াই করে।

পাপি (২০১৩)[সম্পাদনা]

পেনিক ইন দ্যা মেইলরুম (২০১৩)[সম্পাদনা]

দুইটি মিনিয়ন (কেন এবং মাইক) ল্যাবের আলাদা-আলাদা অংশে পার্সেল পেরণ করতে প্যাকেজ রুমের ভেতরে কাজ করে, যেখানে কেন ভিডিও গেইম খেলায় ব্যস্ত থাকে।

ট্রেইনিং হুইল্স (২০১৩)[সম্পাদনা]

আইসক্রিম আনতে গিয়ে এ্যইগনেসের খেলনা বাইক বন্ধ হয়ে যাওয়ার সে অসন্তুষ্ট হয়। তিনটি মিনিয়ন সেচ্ছাসেবক হয়ে বাইকটি উন্নত করে দেয় এবং এ কাজে এ্যইগনেসের দক্ষতা বাড়াতে সহায়তা করে।

চরিত্রসমূহ[সম্পাদনা]

প্রধান চরিত্র[সম্পাদনা]

  • ফেলোনিওস গ্রু
  • মেয়েরা:
    • মার্গো
    • এডিথ
    • এ্যইগনেস
  • মিনিয়ন
  • লুস ওয়াইল্ড
  • ড. নেফারিও
  • মার্লেনা গ্রু
  • সিলাস র্যাম্সবটম

ভিলেন চরিত্র[সম্পাদনা]

  • ভিক্টর "ভেক্টর" পারকিন্স
  • মি. পারকিন্স
  • মিস হ্যাতি
  • এ্যডুয়ার্ডো পারেজ/এল ম্যাখো

মুক্তি[সম্পাদনা]

বক্স অফিস[সম্পাদনা]

এই চলচ্চিত্র ধারাবাহিক সর্বমোট $১৫১৩ বিলিয়ন,[১৬] গড়ে প্রতিটি চলচ্চিত্রের জন্য $৭৫৬ মিলিয়ন আয়ের মধ্য দিয়ে ডেসপিক্যাবল মি ফ্র্যান্সাইজ পঞ্চম সর্বোচ্চ-আয়কারী অ্যানিমেটেড ফ্র্যান্সাইজ (বাকি চলচ্চিত্রগুলো হল শ্রেক, আইস এজ, টয় স্টোরি, এবং মাদাগাস্কার) হিসেবে বিবেচিত হয়।

চলচ্চিত্র মুক্তির তারিখ বক্স অফিস উপার্জন বক্স অফিস র‌্যাঙ্কিং বাজেট সূত্র
উত্তর আমেরিকা অন্যান্য অঞ্চল বিশ্বব্যাপী সব সময়
উত্তর আমেরিকা
সব সময়
বিশ্বব্যাপী
ডেসপিক্যাবল মি জুলাই ৯, ২০১০ $২৫১,৫১৩,৯৮৫ $২৯১,৬০০,০০০ $৫৪৩,১১৩,৯৮৫ #৭৮ #১০৬ $৬৯,০০০,০০০ [১৭]
ডেসপিক্যাবল মি ২ জুলাই ৩, ২০১৩ $৩৬৮,০৬১,২৬৫ $৬০২,০০০,০০০ $৯৭০,৭৬১,৮৮৫ #২৬ #২০ $৭৬,০০০,০০০ [৬]
সর্বমোট $৬১,৯৫,৭৫,২৫০ $৮৯,৩৬,০০,০০০ $১,৫১,৩১,৭৫,২৫০ $১৪৫,০০০,০০০ [১৬]

সমালোচনামূলক এবং জনসাধারণের প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্র রটেন টম্যাটোস মেটাক্রিটিক সিনমোস্কোর
ডেসপিক্যাবল মি ৮১% (১৯১ পর্যালোচনা)[১৮] ৭২% (৩৫ পর্যালোচনা)[১৯] [২০]
ডেসপিক্যাবল মি ২ ৭৫% (১৬৫ পর্যালোচনা)[৫] ৬২% (৩৯ পর্যালোচনা)[২১] [২০]

ভিডিও গেম[সম্পাদনা]

ডেসপিক্যাবল মি: দ্য গেইম[সম্পাদনা]

ডেসপিক্যাবল মি: মিনিয়ন রাশ[সম্পাদনা]

বই[সম্পাদনা]

অ্যানি আউরবেখের একটি উপন্যাস এই চলচ্চিত্রের উপর ভিত্তি করে রচিত হয়েছে।

ক্রমানুক্রম[সম্পাদনা]

‘‘ডেসপিক্যাবল মি’’ ফ্র্যানসাইজ ইতিহাসের ভিত্তিতে:

  1. হোম মেকওভার (২০১০)
  2. ওরিয়েন্টেশন ডে (২০১০)
  3. বানানা (২০১০)
  4. ডেসপিক্যাবল মি (২০১০)
  5. ডেসপিক্যাবল মি: মিনিয়ন মায়হেম (২০১২)
  6. ডেসপিক্যাবল মি ২ (২০১৩)
  7. পাপি (২০১৩)
  8. পেনিক ইন দ্যা মেইলরুম (২০১৩)
  9. ট্রেইনিং হুইল্স (২০১৩)
  10. মিনিয়ন্স (২০১৫)
  11. ডেসপিক্যাবল মি ৩ (২০১৭)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "The SPA Studios"। The SPA Studios। ২০১২-১২-০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৮-২০ 
  2. Gaier, Dana (জুন ২৬, ২০১২)। "@Emilyxoxo708 yes, i was the voice of edith in despicable me and i am working on the sequel :)"Twitter। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৮, ২০১২ 
  3. Racheal (জুলাই ২, ২০১২)। "Despicable Me Minion Mayhem is now open at Universal Studios"Behind the Thrills। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২০, ২০১২ 
  4. Kit, Borys (মে ১, ২০১২)। "Steve Coogan Joining Voice Cast for 'Despicable Me 2' (Exclusive)"The Hollywood Reporter। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৫, ২০১২ 
  5. "Despicable Me 2 (2013)"। Rotten Tomatoes। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৫, ২০১২ 
  6. "Despicable Me 2"। Box Office Mojo। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১১, ২০১৩ 
  7. "Comcast's CEO Presents at Bank of America Merrill Lynch 2013 Media, Communications & Entertainment Conference (Transcript)"Seeking Alpha। সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৩One of the real gems inside our company is Illumination the animation studio led by Chris Meledandri and Despicable Me 2, which came out this summer is the most profitable film in the 100 year history of the Universal and there will obviously be another reopening a film called Minions, which are the minions from Despicable Me next Christmas and then there will be Despicable Me 3. 
  8. "Despicable Me 3 and Dr. Seuss' How the Grinch Stole Christmas Set for 2017"ComingSoon.net। জানুয়ারি ১৫, ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১৬, ২০১৪ 
  9. "Universal Dates Minions Movie Dec. 19, 2014"Deadline। আগস্ট ২১, ২০১২। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২২, ২০১২ 
  10. Fleming, Mike (জুলাই ২৩, ২০১২)। "Illumination And Universal Hatch 'Despicable Me' Spinoff About The Minions"Deadline। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৪, ২০১২ 
  11. Fleming, Mike (ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৩)। "Sandra Bullock To Voice Super-Villain In 'Minions' Spinoff For Illumination/Universal"Deadline। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৩ 
  12. Fleming, Mike (এপ্রিল ৩০, ২০১৩)। "At Illumination, Jon Hamm Lends Voice To 'Minions' Movie; Tito Ortiz Returns As Executive"Deadline। সংগ্রহের তারিখ মে ১, ২০১৩ 
  13. Calonge, Juan (সেপ্টেম্বর ২২, ২০১০)। "Despicable Me Blu-ray and 3D BD Announced"। blu-ray.com। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ২২, ২০১০ 
  14. "Despicable Me 2 Blu-ray"। MovieMail.com। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৩ 
  15. Shaw, Lucas (জুলাই ৫, ২০১৩)। "France Can Now Offer Film Productions 150 % More Money"The Wrap। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২০, ২০১৩The animated short “Minions series,” which will screen next year with a spin-off of "Despicable Me," just qualified for a rebate, as did Eleanor Coppola's "Bonjour Anne." 
  16. "Franchises - Despicable Me"। Box Office Mojo। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৫, ২০১২ 
  17. "Despicable Me"। Box Office Mojo। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৫, ২০১২ 
  18. "Despicable Me (2010)"। Rotten Tomatoes। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৫, ২০১২ 
  19. "Despicable Me"। Metacritic। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৫, ২০১২ 
  20. "CinemaScore"cinemascore.com। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৩, ২০১৫ 
  21. "Despicable Me 2"। Metacritic। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৫, ২০১২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]