ডেনিস হপার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

ডেনিস লি হপার (ইংরেজি: Dennis Lee Hopper; ১৭ই মে ১৯৩৬ - ২৯শে মে ২০১০)[১] ছিলেন একজন মার্কিন অভিনেতা, চলচ্চিত্র নির্মাতা, আলোকচিত্রী ও চিত্রশিল্পী। অ্যাক্টরস স্টুডিওতে পড়াশুনার পর তিনি ১৯৫৪ সালে টেলিভিশনে কাজের মাধ্যমে তার পেশাদারী কর্মজীবন শুরু করেন। পরবর্তীতে তিনি জেমস ডিনের সাথে রেবেল উইদাউট আ কজ (১৯৫৫) ও জায়ান্ট (১৯৫৬) এবং গানফাইট অ্যাট দ্য ওকে কোর‍্যাল (১৯৫৭) চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। পরবর্তী এক যুগে তিনি টেলিভিশনে খ্যাতি অর্জন করেন। ১৯৬০-এর শুরু থেকে তিনি আলোকচিত্রী হিসেবে সমাদৃত হন এবং এই দশকের শেষের দিকে তিনি কয়েকটি চলচ্চিত্রে কাজ করেন।

১৯৬৯ সালে ইজি রাইডার চলচ্চিত্র দিয়ে হপারের চলচ্চিত্র পরিচালনায় অভিষেক হয়। তিনি, তার সহশিল্পী পিটার ফন্ডা ও টেরি সাউদার্থ এই ছবির গল্প রচনা করেন। হপার শ্রেষ্ঠ প্রথম কর্ম বিভাগে একটি কান চলচ্চিত্র উৎসব পুরস্কার লাভ করেন এবং ফন্ডা ও সাউদার্নের সাথে যৌথভাবে শ্রেষ্ঠ মৌলিক চিত্রনাট্য বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। ১৯৮৬ সালে তিনি ব্লু ভেলভেটহুসিয়ার্স চলচ্চিত্রে অভিনয় করে সমাদৃত হন। দুটি চলচ্চিত্রের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার এবং হুসিয়ার্স চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

হপার ১৯৩৬ সালের ১৭ই মে কানসাসের ডজ শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা জেমস মিলার্ড হপার (১৯১৬-১৯৮২)[২] এবং মাতা মার্জারি মে (জন্ম: ডেভিস; ১৯১৭-২০০৭)।[৩] তিনি স্কটিশ বংশোদ্ভূত।[৪] হপারের দুই ভাই রয়েছে, তারা হলে মারভিন ও ডেভিড হপার।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Dennis Hopper"দ্য টেলিগ্রাফ (ইংরেজি ভাষায়)। ৩০ মে ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০১৮ 
  2. শেরওয়েল, ফিলিপ; মেন্ডিক, রবার্ট (২৯ মে ২০১০)। "Dennis Hopper: Born to be wild"দ্য টেলিগ্রাফ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০১৮ 
  3. "Republican Hopper Considers A Vote For Obama"কনট্যাক্ট মিউজিক (ইংরেজি ভাষায়)। ১১ মার্চ ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০১৮ 
  4. গ্রিনস্ট্রিট, রোজানা (২১ ফেব্রুয়ারি ২০০৯)। "Q&A: Dennis Hopper, actor"দ্য গার্ডিয়ান (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০১৮ 
  5. "Jack Nicholson pays tribute to 'soul mate' Dennis Hopper"দ্য টেলিগ্রাফ (ইংরেজি ভাষায়)। ২ জুন ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]