টোটালফোরসভারেটস স্কুইডসেন্ট্রাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

স্থানাঙ্ক: ৬৩°৫০′১৪″ উত্তর ২০°১৫′১৪″ পূর্ব / ৬৩.৮৩৭২২° উত্তর ২০.২৫৩৮৯° পূর্ব / 63.83722; 20.25389

টোটালফোরসভারেটস স্কুইডসেন্ট্রাম
(স্কুইডসি)
Totalförsvarets skyddsskola vapen.svg
টোটালফোরসভারেটস স্কুইডসেন্ট্রাম ভ্যাপেন
সক্রিয়১৯৫৩–
দেশসুইডেন
আনুগত্যফোরসভার্সমাক্তেন
শাখাফোরসভার্সমাক্তসজিমেনসাম
ভূমিকাসুইডেনে টোটালফোরসভারেটস
আকারকোম্পানি (বহনকারী কর্মকর্তা: ৬৪

অ-যোদ্ধা কর্মচারী: ১৫

গ্রুপ কমান্ডার, সৈন্য ও নাবিক: ২)
গ্যারিসন/সদরদপ্তরস্টকহোম (১৯৫৩–১৯৭০)
কুংসাঙ্গেন (১৯৭০-১৯৯২)
উমিয়া (১৯৯২–)
Colorsসবুজ ও সাদা
মার্চ"নোর্ডস্যালুট" (লুন্ডকভিস্ট)[১]
কমান্ডার
বর্তমান
কমান্ডার
কর্নেল জ্যান ডেমার্কিজ
স্কুইডস চিহ্ন ১৯৫৩-১৯৮৮।

টোটালফোরসভারেটস স্কুইডসেন্ট্রাম (স্কুইডসি) (সুয়েডীয়: Totalförsvarets skyddscentrum) হল সুইডীয় সামরিক বাহিনী যাদের সিবিআরএন প্রতিরক্ষার বিশেষ প্রশিক্ষণ রয়েছে। এই প্রশিক্ষণ আর্মি, নৌবাহিনী এবং বিমানবাহিনীর থাকে। ১৯৫৩ সাল থেকে এই বাহিনী বিভিন্ন রূপে কাজ করেছে। টোটালফোরসভারেটস স্কুইডসেন্ট্রাম উমিয়া গ্যারিসন (উমিস্তান হিসেবেও পরিচিত)-এ অবস্থিত ভ্যাস্টারবটেনসগ্রুপেন (ইউজি ৬১) এর সাথে একত্রে কাজ করে যা পূর্বে ভ্যাস্টারবটেনস রেজিমেন্তে হিসেবে ব্যবহৃত হত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৩০ সালের দিকে সুইডীয় সামরিক বাহিনীতে যোগদান করা গ্যাস টেকনিশিয়ানদের থেকেই এই বাহিনীর উৎপত্তি হয়। ১৯৫৩ সালে রোজেনবার্গে ইনফ্যান্টারিয়েটস স্ট্রিডস্কোলা (পদাতিক কম্ব্যাট স্কুল) (ইনফ্যাস) এর অন্তর্গত আর্মেনস স্কুইডস্কোলা গঠিত হয়। যখন ইনফ্যাস লিঙ্কোপিং-এ সরিয়ে নেয়া হয়, তখন "স্কুইডস্কোলা" সুইডীয় লাইফ গার্ড (আই ১)-এ রূপান্তরিত হয়। এর প্রাক্তন অবস্থান ছিল উলরিক্সডালে

১৯৬৮ সালে স্কুল নতুন দায়িত্ব পায় এবং নাম পরিবর্তিত হয়ে ডিফেন্স সুরক্ষা স্কুল (রক্ষণ) হয়। ১৯৭০ সাল স্কুলসহ সুইডীয় লাইফ গার্ডকে কুংসাঙ্গেন-এ সরিয়ে নেয়া হয়।[২] ১লা জুলাই। ১৯৮৮ সালে স্কুলটি সুইডীয় লাইফ গার্ড থেকে পৃথক হয়ে যায় এবং এর সাথে সাথেই এটি টোটালফোরসভারেত-এর ওপর গুরুত্বারোপ করে। এই প্রাতিষ্ঠানিক পরিবর্তনের ফলে স্কুলের নাম পরিবর্তিত হয়ে টোটালফোরসভারেটস স্কুইডস্কোলা হয়।[৩][৪]

এরপরে পার্লামেন্ট সরকারি বিল ১৯৮৭/৮৮:১১২ এর পক্ষে ভোটদান করে এবং ঠিক করা হয় ১৯৯২ সালে একে উমিয়া গার্নিসনে পুনঃস্থানান্তর করা হবে।[৩][৪]

২৭শে জুলাই, ২০০৯ সালে কনস্ক্রিপ্টের শেষ ব্যাচ তাদের প্রশিক্ষণ শুরু করে। তাদের প্রশিক্ষণ টোটালফোরসভারেটস স্কুইডসেন্ট্রাম-এর সিয়ে কোম্পানিতে ঘটে।[৫] পরবর্তীতে এর ভারমুক্তি ঘটে ১৭ই জুন, ২০১০ সালে।[৬]

অধিকাংশ সুইডীয় সিবিআরএন-এর অভিজ্ঞতা বর্তমানে উমিয়ায় রয়েছে যেখানে ২০০৮ সালের শরৎ থেকে স্কুইডসি ইউরোপীয় সিবিআরএনই কেন্দ্রের অংশ হিসেবে গড়ে উঠেছে। এরমধ্যে সুইডীয় ডিফেন্স রিসার্চ এজেন্সি (এফওআই), উমিয়া বিশ্ববিদ্যালয়, ভ্যাস্টারবটেন কান্ট্রি কাউন্সিল এবং উমিয়া মিউনিসিপ্যালিটি রয়েছে।[৭]

২০১০ এর শেষের দিকে সুইডীয় সরকার ঠিক করে যে স্কুইডসির অভ্যন্তরীণ সুবিধা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সিবিআরএন-এর দিকে তারা ফোকাস করবে। এটি সিবিআরএন এর উপাদানগুলোর প্রশিক্ষণের নিরাপত্তা বাড়িয়ে তোলে।[৮] প্রায় ৮০ মিলিয়ন অর্থ এই কাজে ব্যবহৃত হয়েছিল।[৯]

শিরোনাম, পদ এবং অঞ্চল[সম্পাদনা]

Name
আর্মেনস স্কুইডস্কোলা ১৯৫৩ ১৯৬৮
ফোরসভারেটস স্কুইডস্কোলা ১৯৬৮ ১৯৮৮
টোটালফোরসভারেটস স্কুইডস্কোলা ১৯৮৮ ২০০০
টোটালফোরসভারেটস স্কুইডসেন্ট্রাম ২০০০
পদ
স্কুইডএস ১৯৫৩ ২০০০
স্কুইডসি ২০০০
অঞ্চল
রোজেনবার্গ (এফ) ১৯৫৩ ১৯৬১
উলরিক্সডাল (এফ) ১৯৬১ ১৯৭০
কুংসাঙ্গেন (এফ) ১৯৭০ ১৯৯২
উমিয়া (এফ) ১৯৯২

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Sandberg, Bo (২০০৭)। Försvarets marscher och signaler förr och nu (Swedish ভাষায়)। Gävle: Militärmusiksamfundet med Svenskt Marscharkiv। পৃষ্ঠা 209। আইএসবিএন 978-91-631-8699-8 
  2. Holmberg, Björn (১৯৯৩)। Arméns regementen, skolor och staber: [en uppslagsbok] : en sammanställning (Swedish ভাষায়)। Arvidsjaur: Svenskt militärhistoriskt bibliotek (SMB)। পৃষ্ঠা 64। আইএসবিএন 91-972209-0-6 
  3. "Om Totalförsvarets skyddscentrum" (Swedish ভাষায়)। mil.se। ১১ ফেব্রুয়ারি ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ মার্চ ২০১৪ 
  4. "Regeringens proposition 1987/88:112-om lokalisering av en för totalförsvaret gemensam skyddsskola" (Swedish ভাষায়)। riksdagen.se। সংগ্রহের তারিখ ৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  5. "Inryckning till Swea kompani" (Swedish ভাষায়)। forsvarsmakten.se। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জুলাই ২০০৯ 
  6. "Sista muck!" (Swedish ভাষায়)। forsvarsmakten.se। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুলাই ২০১০ 
  7. "Centrum för säkerhets- och sårbarhetsforskning invigs vid Umeå universitet" (Swedish ভাষায়)। Umeå universitet। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০১৪ 
  8. "Unik CBRN-anläggning byggs i Umeå" (Swedish ভাষায়)। Försvarsmakten। ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ডিসেম্বর ২০১০ 
  9. "Försvaret kan få unik anläggning i Umeå" (Swedish ভাষায়)। Folkbladet। ২৯ মার্চ ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  • "The National CBRN Defence Centre"। forsvarsmakten.se। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  • "European CBRNE Center"। ২ অক্টোবর ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৪