টেরিজা পামার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
টেরিজা পামার
টেরিজা পামারের ছবি
উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার চলচ্চিত্রের প্রদর্শনীতে পামার (২০১২)
জন্ম
টেরিজা ম্যারি পামার

(1986-02-26) ২৬ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৬ (বয়স ৩৩)
অ্যাডিলেড, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া, অস্ট্রেলিয়া
বাসস্থানবীচউড ক্যানিয়ন, লস অ্যাঞ্জেলেস, ক্যালিফোর্নিয়া
পেশাঅভিনেত্রী, মডেল, লেখিকা, প্রযোজক
কার্যকাল২০০৫-বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীমার্ক ওয়েবার (বি. ২০১৩)
সন্তান
ওয়েবসাইটwww.yourzenlife.com

টেরিজা ম্যারি পামার[১] (জন্ম: ২৬ ফেব্রুয়ারি, ১৯৮৬) একজন অস্ট্রেলীয় অভিনেত্রী, মডেল, লেখিকা ও প্রযোজক। তিনি ২:৩৭ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে তার চলচ্চিত্র জীবন শুরু করেন। তিনি ২০১৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ওয়ার্ম বডিস চলচ্চিত্রে একজন জম্বির প্রেমে পড়া তরুণীর চরিত্রে এবং ২০১৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত হরর চলচ্চিত্র লাইটস আউট‌-এ রেবেকা চরিত্রে অভিনয় করেন। এছাড়া তিনি দ্য সরসারার্স অ্যাপ্রেন্টিস, আই অ্যাম নাম্বার ফোর, টেক মি হোম টুনাইট, লাভ অ্যান্ড হনার, দ্য এভার আফটার (এটি তিনি তার স্বামী মার্ক ওয়েবারের সাথে সহলেখিকা ও সহপ্রযোজনা করেন), কিল মি থ্রী টাইমস, ২০১৫ এর পুনর্নির্মিত চলচ্চিত্র পয়েন্ট ব্রেক, ট্রিপল ৯ এবং মেল গিবসন পরিচালিত যুদ্ধ বিষয়ক চলচ্চিত্র হ্যাকস রিজ-এ অভিনয় করেন।

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

টেরিজা পামারের জন্ম ও বেড়ে ওঠা দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেডে। তার বাবা কেভিন পামার একজন বিনিয়োগকারী ছিলেন এবং তার মা পলা স্যান্ডার্স ছিলেন একজন হাসপাতাল সেবিকা ও মিশনারি। ১৯৮৯ সালে তিন বছর বয়সের সময় তার পিতামাতার বিবাহবিচ্ছেদ ঘটে।[২] তার সৎ মায়ের নাম ক্যারেন পামার। এছাড়া তার দুইজন সৎবোন ও দুইজন সৎভাই আছে। তারা তার বাবার সাথেই থাকেন।[৩][৪] পামারের মা মাদার টেরিজার নামে তার মেয়ের নাম রাখেন। এক সাক্ষাৎকারে পামার বলেছেন যে তার মায়ের বাইপোলার ডিজঅর্ডার থাকার কারণে তার ছোটবেলায় বেড়ে ওঠা মোটেও সুখকর ছিল না।[৫][৬]

চলচ্চিত্র তালিকা[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্র ও টেলিভিশনে অভিনয় কর্মের তালিকা
সাল চলচ্চিত্রের নাম চরিত্র টীকা
২০০৫ উল্ফ ক্রিক পুলে পার্টিরত তরুণী
২০০৬ ২:৩৭ মেলোডি
২০০৬ দ্য গ্রাজ ২ ভ্যানেসা ক্যাসেডি
২০০৭ ডিসেম্বর বয়েস লুসি
২০০৮ রেসট্রেইন্ট ডেল
২০০৮ বেডটাইম স্টোরিজ ভায়োলেট নটিংহ্যাম
২০১০ দ্য সরসারার্স অ্যাপ্রেন্টিস বেকি বার্ন্স
২০১১ আই অ্যাম নাম্বার ফোর নাম্বার সিক্স
২০১১ টেক মি হোম টুনাইট টরি ফেডেরকিং
২০১১ বিয়ার এমিলি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র
২০১১ কোয়ার্কি গার্ল ক্লেয়ার স্বল্পদৈর্ঘ্য
২০১২ উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার স্টিফ ম্যাককিনি
২০১৩ ওয়ার্ম বডিস জুলি গ্রিজিও
২০১৩ লাভ অ্যান্ড হনার ক্যান্ডেস
২০১৪ কাট ব্যাংক ক্যাসেন্ড্রা
২০১৪ পার্টস পার বিলিয়ন অ্যানা
২০১৪ দ্য এভার আফটার এভা প্রযোজক/লেখিকা
২০১৪ কিল মি থ্রী টাইমস লুসি ওয়েব
২০১৫ নাইট অব কাপস ক্যারেন
২০১৫ পয়েন্ট ব্রেক সিমসারা
২০১৬ ঠু লেজিট কিমি স্বল্পদৈর্ঘ্য
২০১৬ দ্য চয়েস গ্যাবি হল্যান্ড
২০১৬ ট্রিপল ৯ মিশেল অ্যালেন
২০১৬ লাইটস আউট রেবেকা
২০১৬ হ্যাকস রিজ ডরথি শট
২০১৬ মেসেজ ফ্রম দ্য কিং কেলি
২০১৭ বার্লিন সিনড্রোম ক্লেয়ার
২০১৭ ২:২২ সারা মুক্তি প্রত্যাশিত

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Palmer, Teresa (২৯ অক্টোবর ২০১১)। "Twitter / tez_palmer: @TPalmerASIA you're very sweet! .."Twitter। সংগ্রহের তারিখ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ 
  2. Field, Melissa (৮ ফেব্রুয়ারি ২০০৯)। "Star Bright"Sunday Herald Sun। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জুন ২০১০ 
  3. Reilly, Natalie (১৭ ফেব্রুয়ারি ২০০৮)। "The Next New Wave"। The Sun-Herald। পৃষ্ঠা 12। 
  4. Grant, Sarah (২ ফেব্রুয়ারি ২০০৯)। "Teresa Palmer: Hollywood Calling"Who। Yahoo। ১৯ মার্চ ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জুন ২০১০ 
  5. Miller, Julie (২ মার্চ ২০১১)। "Take Me Home Tonight Star Teresa Palmer on the '80s, and Emulating Angelina Jolie"Movieline। ৫ মার্চ ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ মার্চ ২০১১ 
  6. Merten, Margaret (অক্টোবর ২০০৮)। "T Is For Teresa"। Harper's Bazaar Australia। পৃষ্ঠা 202–209। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]