টেইলড রেড ফরেস্টার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

টেইলড রেড ফরেস্টার
Tailed Red Forester
Close wing position of Lethe sinorix Hewitson, 1863 – Tailed Red Forester WLB DSC 1041.jpg
ডানা বন্ধ অবস্থায়
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: Arthropoda
শ্রেণী: Insecta
বর্গ: Lepidoptera
পরিবার: Nymphalidae
গণ: Lethe
প্রজাতি: L. margaritae
দ্বিপদী নাম
Lethe margaritae
Elwes, 1882

টেইলড রেড ফরেস্টার (বৈজ্ঞানিক নাম: Lethe margaritae (Elwes)) 'নিমফ্যালিডি'(Nymphalidae) গোত্র ও 'স্যাটিরিনি' (Satyrinae) উপ-গোত্রের অন্তর্ভুক্ত মাঝারি আকৃতির প্রজাপতি।[১]

আকার[সম্পাদনা]

টেইলড রেড ফরেস্টার এর প্রসারিত অবস্থায় ডানার আকার ৭০-৭৮ মিলিমিটার দৈর্ঘ্যের হয়।[২]

বিস্তার[সম্পাদনা]

ভারত (সিকিম থেকে অরুণাচল প্রদেশ ও উত্তর পূর্ব ভারত) নেপাল, ভুটান, মায়ানমার, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম এর বিভিন্ন অঞ্চলে এদের পাওয়া যায়।[২]

বর্ণনা[সম্পাদনা]

প্রজাপতির দেহাংশের পরিচয় বিষদ জানার জন্য প্রজাপতির দেহ এবং ডানার অংশের নির্দেশিকা দেখুন:-

সাঁঝলা প্রজাতির (Melanities leda) শুষ্ক-ঋতুরূপের সাথে টেইলড রেড ফরেস্টারের আপাত সাদৃশ্য রয়েছে।[৩] এদের সামনের ডানা শীর্ষভাগে ব্ল্যাক ফরেস্টার (Lethe vindhya) অপেক্ষা অধিকতর অভিক্ষিপ্ত (produced) ০ তীক্ষ্ণ।

ডানার উপরিতল কলচে বাদামি ও লালচে কমলা। সামনের ডানায় সেল-প্রান্তে একটি তির্যক ডিসকাল বিভাজক রেখা কোস্টার নিচ থেকে সরলরৈখিক ভাবে প্রায় ১ নং শিরা পর্যন্ত নেমে গেছে যার গায়েই বাইরের দিকে কতকগুলি ডিসকাল দাগের (streak) সারি দেখা যায়। ৩ টি পোস্ট-ডিসকাল গোলাকৃতি ছোপ ৩,৪ ও ৬ নং শিরামধ্যে (inter -space) অবস্থিত। কোস্টা ডানার গোড়া (base) থেকে পোস্ট-ডিসকাল অংশ পর্যন্ত ঈষদ চওড়াভাবে (কোস্টাল শিরা অবধি) কমলা বা কমলা-হলুদ। কোনো কোনো নমুনায় সেল, বেসাল ও সাব-বেসাল অংশ, ডিসকাল অঞ্চল (নিচের দিকে) ও ডরসাম কমলা-হলুদ আঁশে ও রোঁয়ায় ছাওয়া এবং টার্মেনের মধ্যভাগ থেকে টরনাস পর্যন্ত বিস্তৃত কমলা-হলুদ সাব-টার্মিনাল রেখা বর্তমান। টার্মিনাল প্রান্তরেখা সরু-কালো ও সাদা সিলিয়া (cillia) যুক্ত।

পিছনের ডানা সামনের ডানার অনুরূপ বর্ণের। পোস্ট-ডিসকাল অংশে কতকগুলি কালো চক্ষুবিন্দু (eyespot / ocelli) বর্তমান, তবে ৪ নং শিরামধ্যের চক্ষুবিন্দুটি অনুপস্থিত। ২ নং শিরামধ্যের চক্ষুবিন্দুটি ক্ষুদ্রতম। পুরুষ প্রকারে চক্ষুবিন্দুগুলি ডানার লাল অংশে ও স্ত্রী প্রকারে ডানার কমলা অংশে অবস্থিত। কালো পুরু সাব-টার্মিনাল রেখাটি বিচ্ছিন্ন ও অনিয়মিত। টার্মিনাল প্রান্তরেখা সরু-কালো ও সাদা সিলিয়া (cillia) যুক্ত । টার্মেন ঢেউ খেলানো। ৪ নং শিরায় একটি লম্বা তীক্ষ্ণ লেজ দেখা যায়।

ডানার নিম্নতল বাদামি ও বেগুনি আভাযুক্ত। সামনের ডানার শীর্ষভাগ (apex) ফ্যাকাশে সাদা। উভয় ডানা জুড়ে তির্যকভাবে বিস্তৃত একটি খয়েরি বেসাল রেখা ও সমবর্ণের একটি ডিসকাল রেখা বিদ্যমান। বেসাল রেখাটি উভয় ডানাতেই ঋজু বা সরলরৈখিক, তবে ডিসকাল রেখাটি সামনের ডানায় ঋজু ও পিছনের ডানায় নিচের অংশে ভিতরদিকে বাঁকানো। সামনের ডানায় সেল-এর মধ্যভাগে একটি ছোট সরু খয়েরি দাগ দেখা যায় এবং উভয় ডানারই সেল-এর বহিঃপ্রান্ত রেখা অপেক্ষাকৃত স্পষ্ট ও খয়েরি।উভয় ডানাতেই পোস্ট-ডিসকাল অংশে একসারি করে ছোট চক্ষুবিন্দু দেখা যায়; পিছনের ডানার গুলি অধিকতর স্পষ্ট। সামনের ডানার চক্ষুবিন্দুগুলি ভিতরের দিকে ও পিছনের ডানার গুলি বাইরের দিকে বক্রভাবে সজ্জিত। উভয় ডানাতেই সরু কালো টার্মিনাল প্রান্তরেখা ও সাব-টার্মিনাল রেখাদুটি সমান্তরালভাবে বিস্তৃত ও তাদের মধ্যবর্তী অঞ্চল ফ্যাকাশে লালচে। সাব-টার্মিনাল রেখার ভিতরের কিনারা বরাবর একটি অপেক্ষাকৃত পুরু সাদা রেখা বর্তমান।

শুঙ্গ সাদায়-কালোয় ডোরাকাটা, অগ্রভাগে কালো বিন্দু যুক্ত ও শীর্ষ বিন্দু কমলা-হলুদ। মাথা, বক্ষদেশ ও উদর উপরিতলে কালচে বাদামি ও নিম্নতলে ফ্যাকাশে সাদা।[১][৪]

আচরণ[সম্পাদনা]

দুর্লভ দর্শন এই প্রজাতির উড়ান ধীর ও স্বল্পগামী। ওড়ার সময় মাঝেমধ্যে মাটিতে, পাথরে ও পাতায় অবস্থান করে। ঘন চিরহরিৎ বনাঞ্চল এদের পছন্দের বাসস্থান। ভিজে মাটি ও পাথরের ভিজে ছোপে বসে মাড-পাডলিং করতে ও পাতায় ডানা বন্ধ অবস্থায় রোদ পোহাতে এদের প্রায়শই দেখা যায়। সিকিমে ৯০০ মি, (৩০০০ ফুট) উচ্চতায় জুন-জুলাই মাসে এদের দর্শন মেলে। সাধারণত জুন থেকে ডিসেম্বর মাস এদের বিচরণকাল।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Isaac, Kehimkar (২০১৬)। BHNS Field Guides Butterflies of India। Mumbai: Bombay Natural History Society। পৃষ্ঠা 375। আইএসবিএন 9789384678012 
  2. Isaac, Kehimkar (২০০৮)। The book of Indian Butterflies (ইংরেজি ভাষায়) (1st সংস্করণ)। নতুন দিল্লি: অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস। পৃষ্ঠা ৩২৯। আইএসবিএন 978 019569620 2 
  3. Dasgupta, Yudhajit (২০০৬)। Paschimabangera prajapati (1. saṃskaraṇa. সংস্করণ)। Calcutta: Ananda। পৃষ্ঠা ১১৮। আইএসবিএন 81-7756-558-3 
  4. Wynter-Blyth, M.A. (1957) Butterflies of the Indian Region, pg ৯৭.