জুলিয়েট বিংলে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জুলিয়েট মার্টিন বিংলে

জন্ম
জুলিয়েট মার্টিন ভিক

১৯২৫
হারলে স্ট্রিট
মৃত্যু২০০৫
জাতীয়তাব্রিটিশ
পেশাসমাজকর্মী
পরিচিতির কারণন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন ফর কোলাইটিস অ্যান্ড ক্রোন্‌স ডিজিজে
দাম্পত্য সঙ্গীআলেকজান্ডার বিংলি

জুলিয়েট মার্টিন বিংলে এমবিই (১৯২৫-২০০৫ ) ছিলেন একজন ইংরেজ সমাজকর্মী। তিনি চার বছর যাবৎ মাইন্ড-এর সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি ন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন ফর কোলাইটিস অ্যান্ড ক্রোন্‌স ডিজিজের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন এবং কিছুদিনের জন্য এর সহ-সভাপতির দায়িত্বও পালন করেছিলেন।[১][২]

জীবনী[সম্পাদনা]

জুলিয়েট মার্টিন ভিক লন্ডনের হারলে স্ট্রিটে জন্মগ্রহণ করেছিলেন; তাঁর বাবা সার্জন রেগিনাল্ড ভিক। তিনি লন্ডনের কিং আলফ্রেড স্কুলে পড়াশোনা করেছিলেন এবং লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিক্স থেকে সামাজিক প্রশাসনে ডিগ্রি অর্জন করেছিলেন।[২]

তিনি ১৯৪৮ সালে আলেক বিংলির সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন, যিনি ১৯৫৯ সালে নাইট উপাধি পেয়েছিলেন, যার জন্য তাঁকে লেডি বিংলি বলা হয়।

স্ট্রোকজনিত কারণে ২০০৫ সালের ১৬ জানুয়ারিতে তিনি একটি হাসপাতালে মারা গিয়েছিলেন।[১][২]

সামাজিক অবদান[সম্পাদনা]

বিংলে ১৯৪৫ সালে সেন্ট বার্থলোমিউ হাসপাতালে চিকিৎসামূলক সমাজকর্মী হিসাবে কাজ শুরু করেছিলেন, কিন্তু ১৯৪৮ সালে বিয়ের পরে তিনি এই কাজটি ছেড়ে দিয়েছিলেন এবং ২৪ বছর পরে বিধবা হওয়ার পর পুনরায় তা শুরু করেছিলেন।[১]

স্বামীর সাথে মাল্টায় থাকাকালীন তিনি সেখানে সমাজকল্যাণ ব্যবস্থার উন্নতি করার কাজে জড়িত হয়েছিলেন। ১৯৬১ সালে যখন তাঁর স্বামী পোর্টসমাথের কমান্ডার ইন চিফ পদে নিযুক্ত হয়েছিলেন তখন তিনি জাহাজী পরিবার কল্যাণ পরিষেবাদি উন্নত করার জন্য কাজ করেছিলেন। অবসর গ্রহণের পরে তিনি জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য সংস্থার (বর্তমানে মাইন্ড) সাথে যুক্ত হয়েছিলেন এবং ১৯৮৩ সাল পর্যন্ত এর সভাপতি ছিলেন।

১৯৭২ সালে তাঁর স্বামীর হঠাৎ মৃত্যুর পরে তিনি লন্ডনের সেন্ট মার্কস হাসপাতালে একটি খণ্ডকালীন পদে চিকিৎসামূলক সমাজকর্মী হিসাবে পুনরায় কাজ শুরু করেছিলেন।[২][৩]

প্রকাশনা[সম্পাদনা]

২০০২ সালে তিনি হোয়াট ইট ওয়াজ অ্যান্ড হোয়াট ইট ওয়াজ নট ((What it was and what it was not)[৪], রকিংহ্যাম প্রেস: আইএসবিএন ১৮৭৩৪৬৮৮২২) শিরোনামে একটি বই প্রকাশ করেছিলেন। এর পাশাপাশি তিনি চারটি শিশুতোষ বইও প্রকাশ করেছিলেন।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Lennard-Jones, John (৭ মার্চ ২০১৩)। "Bingley [née Vick], Juliet Martin, Lady Bingley (1925–2005), social worker"। Oxford Dictionary of National Biography 2005–2008। Oxford UP। পৃষ্ঠা 102–104। আইএসবিএন 9780199671540 
  2. Lennard-Jones, John (১০ ফেব্রুয়ারি ২০০৫)। "Lady Juliet Bingley (obituary)"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  3. Lennard-Jones, John (২০০৫)। "Obituaries: Lady Juliet Bingley" (PDF): 64। সংগ্রহের তারিখ ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  4. Mallia, Steve (৩০ এপ্রিল ২০০২)। "What it was and what it was not"Times of Malta। সংগ্রহের তারিখ ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯