জালাটান ইভ্রাহিমোভিচ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জালাটান ইভ্রাহিমোভিচ
Zlatan Ibrahimović Euro 2012 vs Ukraine.JPG
জালাটান ইভ্রাহিমোভিচ ২০১২ এর ইউরোতে ইউক্রেনের বিরুদ্ধে
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম জালাটান ইভ্রাহিমোভিচ[১]
জন্ম (১৯৮১-১০-০৩) ৩ অক্টোবর ১৯৮১ (বয়স ৩৩)
জন্ম স্থান মালমো, সুইডেন
উচ্চতা ১.৯৫ মিটার[২]
মাঠে অবস্থান স্ট্রাইকার
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব পারি সাঁ-জের্‌মাঁ
জার্সি নম্বর ১০
তারূণ্যের কর্মজীবন
এফ সি রোসেনগার্ড
এফ বি কে বাল্কান
মালমো এফ এফ
বলিষ্ঠ কর্মজীবন*
বছর দল উপস্থিতি (গোল)
১৯৯৯-২০০১ মালমো এফ এফ ৪০ (১৬)
২০০১-২০০৪ আয়াক্স ৭৪ (৩৫)
২০০৪-২০০৬ জুভেন্টাস ৭০ (২৩)
২০০৬-২০০৯ ইন্টার মিলান ৮৮ (৫৭)
২০০৯-২০১০ বার্সেলোনা ২৯ (১৬)
২০১০-২০১১ মিলান (পণ) ২৯ (১৪)
২০১১-২০১২ মিলান ৩২ (২৮)
২০১২- পারি সাঁ-জের্‌মাঁ ৬২ (৫৫)
জাতীয় দল
২০০১ সুইডেন আন্ডার-২১ (৬)
২০০১- সুইডেন ৯৭ (৪৮)
* পেশাদারী ক্লাবের উপস্থিতি ও গোলসংখ্যা শুধুমাত্র ঘরোয়া লিগের জন্য গণনা করা হয়েছে এবং ১৬ ই মার্চ ২০১৪ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

† উপস্থিতি(গোল সংখ্যা)।

‡ জাতীয় দলের হয়ে খেলার সংখ্যা এবং গোল ৫ ই মার্চ ২০১৪ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

জালাটান ইভ্রাহিমোভিচ হলেন একজন সুইডিশ পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড় যিনি স্ট্রাইকার হিসেবে খেলেন লীগ ১ ক্লাব পারি সাঁ-জের্‌মাঁর হয়ে এবং সুইডেনের হয়ে যেই দলের তিনি হলেন দলনেতা। ইভ্রাহিমোভিচ তাঁর ক্যারিয়ার শুরু করেন ১৯৯০ সালের পরবর্তী সময়ে মালমো এফ এফ ক্লাবের হয়ে রোনাল্ড অ্যান্ডারসনের তত্ত্বাবধানে। আয়াক্স তাঁকে সই করায় এবং রোনাল্ড কোইম্যানের তত্ত্বাবধানে তাঁর অনেক খ্যাতি হয়। পরে তিনি জুভেন্টাসে সই করেন ১৬ মিলিয়ন ইউরোর বদলে। ইভ্রাহিমোভিচ খ্যাতি অর্জন করেন সিরি এ তে খেলে, দাভিদ ত্রেজেগের সাথে তাঁর স্ট্রাইক পার্টনারশিপের মাধ্যমে।

২০০৬ সালে তিনি ইন্টার মিলানে সই করেন খেলবার জন্য এবং সেখানে থাকতে থাকতেই তিনি অর্জন করেছেন অনেক খেতাব। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য খেতাবগুলো হল ইতালিয়ান "অস্কার দেল ক্যালসিও" এবং সুইডিশ "গাল্ডবোলেন" এবং সুইডেন উয়েফা ২০০৮ এবং ২০০৯ এ বছরের শ্রেষ্ঠ দল হিসেবে ভূষিত হয়েছিল। এর সাথেও ২০০৮ এবং ২০০৯ সালে লীগের সবচেয়ে বেশি গোলদাতা হিসেবে ভূষিত হয়েছিলেন। এরপর ২০০৯ এর গ্রীষ্মকালে তিনি বার্সেলোনাতে পরিবর্তিত হন এবং সেখানে খেলা শুরু করেন। তাঁর সময় বার্সেলোনাতে খুবই কম ছিল। এরপরেই ওই মরসুমের শেষে তিনি এ সি মিলানে চলে আসেন। তাঁকে এ সি মিলান বার্সেলোনা থেকে সবচেয়ে বেশি দাম দিয়ে নিয়ে আসে। ওই মরসুমে তিনি ছিলেন সবথেকে বেশি দামি খেলোয়াড়।[৩] তিনি ২৪ মিলিয়ন ডলার দিয়ে এ সি মিলানে আসেন। জুলাই ২০১২ তে তিনি পারি সাঁ-জের্‌মাঁ ফুটবল ক্লাবের সাথে তিন বছরের চুক্তি করেন।

তাঁর খেলার ধরণকে বিখ্যাত ডাচ প্লেয়ার মার্কো ফন বাস্তেনের সাথে তুলনা করা হয়। এবং ইভ্রাহিমোভিচকে তাঁর সময়ের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় হিসেবে গণ্য করা হয়।[৪][৫][৬][৭] ২০১৩ তে সুইডেনের হয়ে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে তাঁর দর্শনীয় বাইসাইকেল কিক তাঁকে বিখ্যাত ফিফা পুস্কাস খেতাব এনে দেয় এবং তাঁর এই গোল বছরের সেরা গোলের শিরোপা পায়।[৮] ২০১৩ তে দ্য গার্ডিয়ান পত্রিকার মাধ্যমে তিনি পৃথিবীর তৃতীয় শ্রেষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে পরিচিত হন।[৯]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

ইভ্রাহিমোভিচ সুইডেনে এক বোষনিয়াক বাবা শেফিক ইভ্রাহিমোভিচ এবং এক ক্রোটস মা জুর্কা গ্রাভিকের কাছে জন্মগ্রহণ করেন।[১০] তাঁর বাবা জন্মগ্রহণ করেন বিজেলজিনাতে এবং তাঁর মা জন্মগ্রহণ করেন পর্কস নামে এক গ্রামে জেডার কান্ট্রিতে[১১] তাঁদের ছয়জন বাচ্ছার মধ্যে ইভ্রাহিমোভিচ বড় হন সুইডেনের রোসেনগার্ড নামক এক শহরে।

একজোড়া ফুটবল বুট পাওয়ার পরে ইভ্রাহিমোভিচ ফুটবল খেলা শুরু করেন মাত্র ৬ বছর বয়সে। তিনি প্রথম জীবনে খেলেছেন দুটো স্থানীয় ক্লাব এফ সি রোসেনগার্ড এবং এফ বি কে বালকান এর হয়ে।[১২][১৩] তিনি এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন যে যখন তাঁর দল বালকান হাফ টাইমের পরে ৪-০ গোলে হারছিল তখন তিনি নামেন বিকল্প হিসেবে মাঠে নামেন হাফ টাইমের পরে এবং তিনি ৮ গোল করে বালকানকে জেতান। তাঁর যৌবনে তিনি তাঁর নিজের শহরের ক্লাব মালমো এফ এফের জন্য নিয়মিত খেলতেন।[১৩] ১৫ বছর বয়স নাগাদ ইভ্রাহিমোভিচ ফুটবল খেলা ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন মালমোতে ডকে চাকরি পাওয়ার পরে, কিন্তু তাঁর ম্যানেজার তাঁকে ফুটবল ছাড়তে বাধা দেন এবং তাঁকে তাঁর খেলা আরও এগিয়ে নিয়ে জেতে বলেন।[১৪] ইভ্রাহিমোভিচ সফল ভাবে নবম শ্রেণীতে সম্পন্ন করেন স্কুলজীবন। যদিও তিনি মালমো বোর্গারস্কোলা স্কুলে ভর্তি হন উচ্চতর শিক্ষার জন্য কিন্তু তিনি কিছুদিন পরেই স্কুলজীবন থেকে বেরিয়ে আসেন ফুটবলে পুরোপুরি মনোযোগ দেবার জন্য।

ক্লাব ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

মালমো এফ এফ[সম্পাদনা]

ইভ্রাহিমোভিচ ১৯৯৬ সালে তাঁর প্রথম চুক্তি করেন মালমোর সাথে এবং রাতারাতিই তিনি ১৯৯৯ সালে আলসভেন্সকান এ সিনিয়রে যোগ দেন, যা হল সুইডেনের সবচেয়ে বড় লীগ। ওই মরসুমে মালমো লীগ টেবিলে ১৩ নম্বর স্থান ধারণ করে এবং দ্বিতীয় বিভাগ থেকে বেরিয়ে যায়। আর্সেন ওয়েঙ্গার তাঁকে আর্সেনালে যোগ দিতে বলেন কিন্তু তিনি নাকোচ করেন এবং ওই সময়েই লিও বেনহ্যাকারও তাঁর ওপর উৎসাহ দেখান নরওয়ের মস এফ কে এর বিরুদ্ধে ম্যাচ খেলবার জন্য।[১৫] ২২ শে মার্চ ২০০১ সালে অবশেষে মালমো এবং আয়াক্সের মধ্যে চুক্তি হয় এবং ৮.৭ ইউরোতে ইভ্রাহিমোভিচ আয়াক্স দলে চলে আসেন।

আয়াক্স[সম্পাদনা]

ইভ্রাহিমোভিচ কোচকো আদ্রিয়ান্সের অধীনে কিছুদিন খেলার সময় পান কিন্তু যখন আদ্রিয়ান্সের পদচ্যুতি ঘটল ২৯ শে নভেম্বর ২০০১ এ তখন তিনি তাঁর নতূন কোচ রোনাল্ড কোয়েম্যান তাঁকে আয়াক্সের প্রথম একাদশে মাঠে নামান এবং সেই বছর আয়াক্স খেতাব জেতে। পরের মরসুমে ইভ্রাহিমোভিচ অলিম্পিক লিওনের বিরুদ্ধে মাঠে নামেন তাঁর প্রথম উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগে এবং সেই খেলাতে তিনি ২ টো গোল করেন এবং দলকে ২-১ গোলে জেতান, ১৭ ই সেপ্টেম্বর ২০০২ সালে। তিনি সেই লীগে ৪ টি গোল করেন কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনালে এ সি মিলানের কাছে আয়াক্স হার মানে এবং লীগ থেকে ছিটকে যায়। আয়াক্সের হয়ে শেষ মরসুমে খেলবার সময় ইভ্রাহিমোভিচ এন এ সি ব্রেদার বিরুদ্ধে একটি অসাধারণ গোল করেন ২২শে আগষ্ট ২০০৪ সালে, যেই গোলকে ইউরোস্পোর্টসের দর্শকরা "বছরের সেরা গোল" আখ্যায় ভূষিত করেন।[১৬] ২০০৩-২০০৪ মরসুমে তিনি একটিই মাত্র গোল করেছিলেন সেল্টা দ্য ভিগোর বিরুদ্ধে এবং সেই মরসুমে আয়াক্স গ্রুপ পর্যায়েই লীগ থেকে বাদ হয়ে যায়।

২০০৪ সালের ১৮ ই আগষ্ট মাসে নেদারল্যান্ডসের বিরুদ্ধে একটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে গিয়ে তিনি আয়াক্সে তাঁর টিমমেট রাফায়েল ভ্যান ডার ভার্ট কে আহত করে ফেলেন, যেটা নিয়ে পরে জল্পনা ওঠে যে তিনি নাকি ইচ্ছে করেই তাঁর টিম সতীর্থকে আহত করেন এবং যার ফলেই আয়াক্স তাঁকে জুভেন্টাসের কাছে তাঁকে বিক্রি করে দেয় ৩১ শে আগষ্টে।[১৭] মে ২০১২ তে রাফায়েল ভ্যান ডার ভার্ট এই ঘটনার তিক্ত শত্রুতা মেটায় যখন তিনি একটি ফোটো শুট করেন যে তিনি ইভ্রাহিমোভিচের মুখে গলফের বল মারছেন।[১৮]

জুভেন্টাস[সম্পাদনা]

ইন্টার মিলান[সম্পাদনা]

বার্সেলোনা[সম্পাদনা]

মিলান[সম্পাদনা]

পারি সাঁ-জের্‌মাঁ[সম্পাদনা]

২০১২-১৩ মরসুম[সম্পাদনা]

২০১৩-১৪ মরসুম[সম্পাদনা]

জাতীয় ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

রিসেপশন[সম্পাদনা]

বিতর্ক[সম্পাদনা]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

কর্মজীবনের পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

জাতীয় গোল[সম্পাদনা]

আন্ডার ২১[সম্পাদনা]

জাতীয় দল[সম্পাদনা]

সম্মান[সম্পাদনা]

ক্লাব[সম্পাদনা]

ব্যাক্তিগত[সম্পাদনা]

ডিস্ক[সম্পাদনা]

সিঙ্গেলস[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "FIFA Club World Cup UAE 2009 presented by Toyota: List of Players" (PDF)। FIFA। ১ ডিসেম্বর ২০০৯। পৃ: ১। সংগৃহীত ২৮ মার্চ ২০১৪ 
  2. "Ibrahimovic Zlatan"। Paris Saint-Germain। সংগৃহীত ১৮ জুলাই ২০১২ 
  3. "World's Highest Paid Footballer's Revealed"। talksport.co.uk। সংগৃহীত ৬ নভেম্বর ২০১১ 
  4. "Zlatan Ibrahimovic Biography". ESPN. Retrieved 15 November 2013
  5. BBC Sport - Zlatan Ibrahimovic: From teenage outcast to world great
  6. "Papin: Ibrahimovic is like Van Basten". FIFA.com. Retrieved 15 November 2013
  7. English Premier League - ESPN FC
  8. "Zlatan wins FIFA's goal of the year award for unbelievable bicycle kick against England". Daily Mail. Retrieved 14 January 2014
  9. "The 100 best footballers in the world 2013 – interactive"। The Guardian। ২০ ডিসেম্বর ২০১৩। সংগৃহীত ১ জানুয়ারি ২০১৪ 
  10. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Hawkey নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  11. "Uzbudljiva autobiografije svjetske zvijezde od subote u prodaji! 'Bio sam problematičan tinejdžer iz kvarta, krao bicikle i uživao u tome'"Dražen Krušelj (Croatian ভাষায়) (Jutarnji list)। 
  12. "Zlatan Ibrahimović" (Swedish ভাষায়)। Evolvia। সংগৃহীত ২৮ মে ২০০৯ 
  13. ১৩.০ ১৩.১ "Rosenberg – för mig är han högerback"Sydsvenskan (Swedish ভাষায়)। সংগৃহীত ২৮ মে ২০০৯ 
  14. Jönsson, Jan (২৩ জুন ২০০১)। "Så blev Zlatan stor"Sydsvenskan (Swedish ভাষায়)। সংগৃহীত ২৮ মে ২০০৯ 
  15. "How Zlatan Ibrahimovic nearly joined Arsenal"। thespoiler.co.uk। সংগৃহীত ২৪ এপ্রিল ২০০৯ 
  16. Career – Zlatanibrahimovic.net. Retrieved 7 December 2008
  17. Player Profile: Rafael van der Vaart – realmadridzone.blogspot.com. Retrieved 7 December 2008
  18. "Zlatan Ibrahimović 'helps' Rafael van der Vaart practices golf swing"। inside World Soccer। ২৮ মে ২০১২।