জার্ডনের দুমুখো সাপ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

জার্ডনের দুমুখো সাপ
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: Chordata
শ্রেণী: Reptilia
বর্গ: Squamata
উপবর্গ: Serpentes
পরিবার: Typhlopidae
গণ: Indotyphlops
প্রজাতি: I. jerdoni
দ্বিপদী নাম
Indotyphlops jerdoni
Boulenger, 1890
প্রতিশব্দ
  • Typhlops jerdoni
    Boulenger, 1890
  • Typhlops jerdoni
    Boulenger, 1893
  • Typhlops diversiceps
    Annandale, 1912
  • Typhlops jerdonii
    Bourret, 1936
  • Typhlops jerdoni
    Hahn, 1980[১]
  • Indotyphlops jerdoni
    Hedges et al., 2014[২]

জার্ডনের দুমুখো সাপ (ইংরেজি: Jerdon's worm snake, বৈজ্ঞানিক নাম: Indotyphlops jerdoni) নিরীহ অন্ধ সাপের একটি প্রজাতি। এটি ভারতের একটি স্থানীয় (এন্ডেমিক) প্রজাতি। এর কোনো স্বীকৃত উপপ্রজাতি নেই।[৩]

নামকরণ[সম্পাদনা]

ব্রিটিশ জীববিজ্ঞানী থমাস সি. জার্ডনের সম্মানে প্রজাতিটির নামকরণ করা হয়েছে।[৪]

ভৌগোলিক বিস্তৃতি[সম্পাদনা]

জার্ডনের দুমুখো সাপ পূর্ব ও উত্তর ভারতের সিকিম, পশ্চিমবঙ্গ, আসাম ও মেঘালয় রাজ্যে পাওয়া যায়। এছাড়া, এটি বাংলাদেশ ও মিয়ানমারেও (পেগু) পাওয়া যেতে পারে।

এই প্রজাতির জন্য প্রদত্ত টাইপ লোকালিটি হল খাসি পাহাড়[১]

প্রজনন[সম্পাদনা]

জার্ডনের দুমুখো সাপ ওভিপারাস প্রাণি। অর্থাৎ, এরা ডিম দেয় এবং ডিম ফুটে বাচ্চা হয়। মাতৃদেহে ভ্রূণের বিকাশ হয় না।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. McDiarmid RW, Campbell JA, Touré TA (১৯৯৯)। Snake Species of the World: A Taxonomic and Geographic Reference, খণ্ড ১। ওয়াশিংটন, ডি.সি.: Herpetologists' League ৫১১ পৃষ্ঠা আইএসবিএন ১-৮৯৩৭৭৭-০০-৬ (সিরিজ)। আইএসবিএন ১-৮৯৩৭৭৭-০১-৪ (খণ্ড)।
  2. "Indotyphlops jerdoni ". The Reptile Database. www.reptile-database.org.
  3. "Typhlops jerdoni "ইন্টিগ্রেটেড ট্যাক্সোনোমিক ইনফরমেশন সিস্টেম। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০০৭ 
  4. Beolens, Bo; Watkins, Michael; Grayson, Michael (২০১১)। The Eponym Dictionary of Reptiles (ইংরেজি ভাষায়)। বালটিমোর: জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটি প্রেস। xiii + ২৯৬ পৃ.। আইএসবিএন ৯৭৮-১-৪২১৪-০১৩৫-৫। (Typhlops jerdoni, পৃ. ১৩৪)।

গ্রন্থপঞ্জী[সম্পাদনা]

  • নেলসন অ্যানানডেল (১৯১২) "Zoological results of the Abor Expedition, 1911-1912" (ইংরেজি ভাষায়) রেকর্ডস অব দ্য ইন্ডিয়ান মিউজিয়াম, কলকাতা (১): ৭-৫৯ [রেপটিলিয়া, পৃষ্ঠা ৩৭–৫৯]। (একই সাময়িকীর সাপ্লিমেন্ট, (৪): ৩৫৭-৩৫৮, ১৯১৪)।
  • জর্জ আলবার্ট বাউলেঞ্জার (১৮৯০) The Fauna of British India, Including Ceylon and Burma. Reptilia and Batrachia। লন্ডন: সেক্রেটারি অব স্টেট ফর ইন্ডিয়া ইন কাউন্সিল। (টেইলর অ্যান্ড ফ্রান্সিস, প্রিন্টার্স)। xviii + ৫৪১ পৃ. (Typhlops jerdoni, নতুন প্রজাতি, পৃ. ২৩৮)।
  • ইন্দ্রনীল দাস (২০০২)। A Photographic Guide to Snakes and other Reptiles of India (ইংরেজি ভাষায়)। স্যানিবেল আইল্যান্ড, ফ্লোরিডা: রালফ কার্টিস বুকস। পৃষ্ঠা ১৪৪। আইএসবিএন 0-88359-056-5  (Typhlops jerdoni, পৃষ্ঠা ৫৮)
  • Hedges SB; Marion AB; Lipp KM; Marin J; Vidal N (২০১৪)। "A taxonomic framework for typhlopid snakes from the Caribbean and other regions (Reptilia, Squamata)"। Caribbean Herpetology। (৪৯):১-৬১ (Indotyphlops jerdoni, new combination) (ইংরেজি ভাষায়)। 
  • স্মিথ এমএ (১৯৪৩)। "The Fauna of British India, Ceylon and Burma, Including the Whole of the Indo-Chinese Sub-region"। Reptilia and Amphibia (ইংরেজি ভাষায়)। খণ্ড III.—Serpentes। লন্ডন: সেক্রেটারি অব স্টেট ফর ইন্ডিয়া (টেইলর অ্যান্ড ফ্রান্সিস, প্রিন্টার্স)। পৃষ্ঠা xii + ৫৮৩ (Typhlops jerdoni, পৃ. ৫০)। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]