চিনচরোদের মমি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
স্যান মিগুয়েল ডে আজাপার জাদুঘরে রক্ষিত মমি।

চিনচরোদের মমি (স্পেনীয়: Mumioj de Chinchorro) দক্ষিণ আমেরিকার চিনচরো সংস্কৃতিতে প্রচলিত মৃত ব্যক্তিদের মমিবিশেষ। বর্তমানে চিলির উত্তরাঞ্চল ও পেরুর দক্ষিণাঞ্চলে এ জাতীয় মমির সন্ধান পাওয়া গেছে যা কৃত্রিমভাবে মমিকৃত ব্যক্তিদের অন্যতম প্রাচীন উদাহরণরূপে বিবেচিত হয়ে আসছে। প্রাচীন মমিটি প্রায় ৭,০০০ বছরের পুরনো যা প্রাচীন মিশরের মমিদের তুলনায় দুই হাজার বছরের পুরনো। মমি তৈরির প্রক্রিয়াটি খ্রিস্ট-পূর্ব ১৮০০ সাল পর্যন্ত চলমান ছিল। তবে, মিশরে প্রাপ্ত প্রথমদিকের মমিটি খ্রিস্ট-পূর্ব ৩০০০ বছর আগেকার।[১] এরফলে প্রত্নতাত্ত্বিক দিক দিয়ে চিনচরো মমি খ্রিস্ট-পূর্ব ৫০৫০ সালের। কৃত্রিমভাবে তৈরিকৃত সর্বাপেক্ষা প্রাচীন মমিটি আতাকামা মরুভূমিতে খ্রিস্ট-পূর্ব ৭০২০ বছর আগেকার।[২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯১৪ সালে বিখ্যাত আন্দীয় প্রত্নতত্ত্ববিদ ম্যাক্স আহল প্রথমবারের মতো এ মমির সন্ধান পান। অদ্যাবধি ২৮০-এর অধিক মমি পাওয়া গেছে। তন্মধ্যে, ১২০টি মমি তারাপাকা বিশ্ববিদ্যালয় জাদুঘরে সংরক্ষিত আছে। সাম্প্রতিক সময়ে বিজ্ঞানীরা লক্ষ্য করে দেখেছেন যে, কিছু মমিতে পচনের সৃষ্টি হয়েছে ও গলে যাচ্ছে। এর প্রধান কারণ আবহাওয়ার পরিবর্তনে উত্তরোত্তর আর্দ্রতা বৃদ্ধি। এরফলে অণুজীবগুলো চামড়ায় ঢুকে পড়েছে।[৩]

কোষ ও অস্থিবিষয়ক রসায়নে জানা যায়, এ সকল ব্যক্তিদের ৯০% খাবারই ছিল সামুদ্রিক খাদ্য। তবে, আন্দীয় এলাকায় প্রাপ্ত মৃতদেহগুলোকে মমিকৃত করতে বিশেষ ধরনের কৌশল অবলম্বন করা হয়েছিল।

শ্রেণীবিন্যাস[সম্পাদনা]

চিনচরো জাতীয় মমিকে আহল তিনটি শ্রেণীতে বিভাজিত করেছেন: সাধারণ, জটিল ও কাদামিশ্রিত। এরপর থেকে অন্যান্য প্রত্নতত্ত্ববিদ তাঁর শ্রেণীকরণকে পুণঃবিন্যাস ঘটিয়েছেন। তন্মধ্যে চিনচরো মমি শ্রেণীকরণে প্রাকৃতিক, কালো, লাল, কাদামিশ্রিত ও আবরণকৃত মমি ব্যবহার করা হয়।[৪] চিনচরো মমিতে অনুসরণকৃত দুইটি সর্বাধিক সাধারণ প্রক্রিয়া হচ্ছে ব্রাল্যা মমি ও লাল মমি।

২৯% চিনচরোদের মমি প্রাকৃতিকভাবে মমিকরণ প্রক্রিয়ার বাইরে ছিল। খ্রিস্ট-পূর্ব ৭০২০ সালে প্রাপ্ত প্রথমদিকের মমিটি ‘আচা ম্যান’ নামে পরিচিতি পায়।[৫]

চিনচরোদের কৃত্রিম মমিগুলো খ্রিস্ট-পূর্ব ৫০০০ থেকে খ্রিস্ট-পূর্ব ৩০০০ সাল সময়কালের। প্রায়শঃই চিনচরো মমির অভ্যন্তরীণ অঙ্গগুলোকে ফেলে দেয়া হতো ও এর পরিবর্তে শাকসব্জীর আঁশ বা প্রাণীদের চুল ঢুকানো অবস্থায় পাওয়া যায়।

বিশ্বের অনেক সভ্যতা লক্ষ্য করলে দেখা যায় যে, অভিজাত সম্প্রদায়ের মৃতব্যক্তিকে সংরক্ষণকল্পে মমি হিসেবে রাখা হতো। তবে, চিনচরো রীতিতে সমাজের সকল সদস্যকে মমি করে রাখা হয়েছিল যা প্রত্নতাত্ত্বিকভাবে বেশ তাৎপর্য বহন করে। প্রমাণিত হয়েছে যে, সমাজের বোঝাস্বরূপ সদস্য যেমন: বয়স্ক, শিশুদেরকে মমির বাইরে রাখা হয়নি। বিশেষ করে মৃত নবজাতকের জন্য সর্বাপেক্ষা বর্ণাঢ্যময় মমিকরণ পদ্ধতি প্রয়োগ করা হয়।[৪][৬]

গবেষণাকর্ম[সম্পাদনা]

চিনচরো মমির মাথা।

১৯১৪ সালে ম্যাক্স আহল আফ্রিকায় গবেষণায় নিয়োজিত থাকেন।[২] প্রত্নতত্ত্ববিদগণ ২৮২টি মমির সন্ধান পান। মরো ডে আরিকাভিত্তিক মরো-১-এ ৯৬টি মৃতদেহের সন্ধান পাওয়া যায়। অধিকাংশ মমিই পাহাড়ের নরম বালিতে ছিল। চুয়ান্নটি প্রাপ্তবয়স্ক মমির ২৭জন মহিলা, ২০জন পুরুষ ও ৭জন লিঙ্গবিহীন ছির। ৪২ শিশুর মধ্যে ৭ কন্যাশিশু, ১২ পুরুষশিশু ও ২৩জন লিঙ্গবিহীন ছিল।[৬] এ ধরনের উদাহরণে ধারনা করা হয় যে, চিনচোরোরা লিঙ্গভেদে মমিকরণে অগ্রসর হয়নি। মিটচোন্দ্রিয়াল হাপলোগ্রুপ এ২-এর মাধ্যমে চিনচরো সংস্কৃতির সন্ধান পাওয়া যায়।[৭]

কমপক্ষে একটি চিনচরো মমিতে ট্যাটু দেখতে পাওয়া যায় যা ঐ অঞ্চলে ট্যাটু করার রীতির ঐতিহ্য ধারন করে। এছাড়াও, বাদ-বাকী একজন পুরুষের গোঁফসদৃশ বিন্দু বিন্দু রেখায় ট্যাটু তার ঠোঁটের ঊর্ধ্বাশে ছিল ও ১৮৮০+/- ১০০ খ্রিস্ট-পূর্ব সময়কালের। ফলে বিশ্বাস করা হয় যে, আমেরিকা অঞ্চলে ট্যাটুকরণের সরাসরি প্রামাণ্য দলিলরূপে বিবেচিত এবং তা বিশ্বের চতুর্থ প্রাচীনতম ট্যাটু।[৮][৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Wooden coffin yields oldest Egyptian mummy"। The News In science। ২০০৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০১-১০ 
  2. Arriaza, Bernardo T. (১৯৯৫)। Beyond Death: The Chinchorro Mummies of Ancient Chile.। Washington: Smithsonian Institution। 
  3. Kraul, Chris (২০১৫)। Mystery of Melting Mummies। Chicago Tribune। পৃষ্ঠা 29। 
  4. Wise, Karen (২০০৩)। Chinchorro Mummies," Written in Bones: How Human Remains Unlock the Secrets of the Dead। Toronto: Firefly.। পৃষ্ঠা 166-70। 
  5. C. Aufderheide, Arthur (২০০৩)। The Scientific Study of Mummies। Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 142। আইএসবিএন 0521818265 
  6. Rivera, Mario A (১৯৯১)। The Preceramic Chinchorro Mummy Complex of Northern Chile: Context, Style and Purpose." Tombs for the Living: Andean Mortuary Practices.। Washington, D.C.: Dumbarton Oaks Research Library and Collection। পৃষ্ঠা 43-77। 
  7. abstract Genomic evidence for the Pleistocene and recent population history of Native s 
  8. Arriaza, Bernardo (১৯৮৮)। "Modelo bioarqueológico para la búsqueda y acercamiento al individuo social" (PDF)Chungara21। পৃষ্ঠা 9-32। 
  9. Deter-Wolf, Aaron; Robitaille, Benoît; Krutak, Lars; Galliot, Sébastien (ফেব্রুয়ারি ২০১৬)। "The World's Oldest Tattoos"। Journal of Archaeological Science:Reports5। পৃষ্ঠা 19–24। doi:10.1016/j.jasrep.2015.11.007 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

গ্রন্থপঞ্জী[সম্পাদনা]

Arthur C. Aufderheide (২০০৩)। The Scientific Study of Mummies.। Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 142। আইএসবিএন 0521818265 
Bernardo Arriaza (১৯৯৫)। Chile’s Chinchorro Mummies। nationalgeographic.com। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]