খালিদ হাবিব

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

খালিদ হাবিব (আরবি: خالد حبيب) (মৃত্যু: ১৬ অক্টোবর, ২০০৮), জন্মনাম শাওকি মারজুক আবদুল-আলিম দাব্বাস (আরবি: شوقي مرزوق عبد العليم دباس), [১] ছিলেন পাকিস্তানআফগানিস্তানের আল-কায়েদার কেন্দ্রীয় সদস্য। তার জাতীয়তা মিশরীয় (সিবিএস নিউজ অনুসারে) এবং মরক্কো (দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস অনুসারে) হিসাবে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছিল।

হাবিব ওই অঞ্চলের অপারেশন কমান্ডার ছিলেন। তিনি আল-কায়েদা সদস্যদের মধ্যে একজন ছিলেন যারা ইরাক, চেচনিয়া এবং অন্যত্র যুদ্ধের অভিজ্ঞতার কারণে আরও বেশি যুদ্ধে কঠোর হয়েছিলেন। এই অভিজ্ঞতা তাদের পূর্বসূরিদের চেয়ে বেশি সক্ষম করে তুলেছে।[২] দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসের মতে , এই ক্যাডার আল-কায়েদার নেতৃত্বের আগের প্রজন্মের চেয়ে বেশি কঠোরপ্রকৃতির ছিলেন। এফবিআই তাকে "শীর্ষ পাঁচ বা ছয় এর সবচেয়ে সক্ষম, সবচেয়ে অভিজ্ঞ জিহাদি নেতা হিসাবে বর্ণনা করেছেন।[৩]

২০০৮ সালে হাবিব মার্কিন-চালিত এমকিউ-১ প্রিডেটর বিমান থেকে শুরু করা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা এড়াতে ওয়ানা থেকে পাকিস্তানের তাপারঘাইতে স্থানান্তরিত হয়। এরপর খালিদ হাবিব ১৬ অক্টোবর, ২০০৮ তারিখে তাপরঘাইয়ের কাছে ড্রোন হামলায় নিহত হন।[৪] ২৮ অক্টোবরে বিদ্রোহী জিহাদিরা এশিয়া টাইমসকে নিশ্চিত করে যে, ড্রোন হামলায় হাবিব নিহত হয়েছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি" (PDF)। ১ অক্টোবর ২০১৯ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০২১ 
  2. Mazzetti, Mark (২০০৭-০৪-০২)। "Qaeda Is Seen as Restoring Leadership"The New York Timesআইএসএসএন 0362-4331। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৫-০৩ 
  3. McNamara, Melissa (২০০৭-০৩-১৫)। "New Al Qaeda Leaders More Radicalized"cbsnews.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৫-০৩ 
  4. Shah, Pir Zubair (২০০৮-১০-১৭)। "U.S. Strike Is Said to Kill Qaeda Figure in Pakistan"The New York Timesআইএসএসএন 0362-4331। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৫-০৩ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:Al-Qaeda