কোনি ব্রিটন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কোনি ব্রিটন
Connie Britton 2013.jpg
২০১৩ গোল্ডেন গ্লোব এ্যাওয়ার্ডসে ব্রিটন
জন্ম
কন্সটেন্স এলাইন ওম্যাক

(1967-03-06) মার্চ ৬, ১৯৬৭ (বয়স ৫২)[১]
বস্টন, ম্যাসাচুসেটস, যুক্তরাষ্ট্র
বাসস্থানলস অ্যাঞ্জেলস, ক্যালিফোর্নিয়া, যুক্তরাষ্ট্র
যেখানের শিক্ষার্থীডার্ট মাউথ কলেজ
পেশাঅভিনেত্রী, গায়িকা, প্রযোজক
কার্যকাল১৯৮০–১৯৮৪
১৯৯৫–বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীজন ব্রিটন (বি. ১৯৯১; বিবাহবিচ্ছেদ ১৯৯৫)
সন্তান

কন্সটেন্স এলাইন ব্রিটন (née ওম্যাক; জন্ম মার্চ ৬, ১৯৬৭)[২] একজন মার্কিন অভিনেত্রী, গায়িকা এবং প্রযোজক। স্বাধীন হাস্যরসাত্মক-নাটকীয় চলচ্চিত্র দ্য ব্রাদার্স ম্যাকমুলেন-এর (১৯৯৫) মাধ্যম চলচ্চিত্রে তার অভিষেক ঘটে এবং পরের বছর তিনি এবিসির সিটকম স্পিন সিটিতে নিকি ফেবার চরিত্রে অভিনয় করেন। পরে তিনি ফাইটিং ফিৎজেরাল্টস (২০০১) এবং লস্ট এট হোম-এ (২০০৩) অভিনয় করেন৷ এছাড়াও তাকে বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রে দেখা যায়, যেগুলোর মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হল ফ্রাইডে নাইটস লাইটস (২০০৪) এবং দ্য লাস্ট উইন্টার (২০০৬)।[৩]

ব্রিটন টেমি টেইলর চরিত্রে এনবিসি/ডিরেকটিভির ধারাবাহিক নাটক ফ্রাইডে নাইট লাইটসে ২০০৬ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত অভিনয় করেন। এই চরিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি সমালোচকদের কাছ থেকে ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া এবং ধারাবহিক নাটকে অসাধারণ কেন্দ্রীয় অভিনেত্রী বিভাগে দুইটি প্রাইমটাইম এমি এ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনয়ন পান।[৪] ২০১১ সালে তিনি ভিভিয়ান হারমন চরিত্রে এফএক্স চ্যানেলের ভৌতিক ধারাবাহিক নাটক আমেরিকান হরর স্টোরিতে অভিনয় করেন, যার জন্য তিনি মিনি-সিরিজ ও চলচ্চিত্রে অসাধারণ কেন্দ্রীয় অভিনেত্রী বিভাগে প্রাইমটাইম এমি এ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনয়ন পান।[৫] বিরতির পর এর অষ্টম সিজনে আমেরিকান হরর স্টোরি: অ্যাপোক্যালিপ্সে পুনরায় অভিনয় করেন৷ ব্রিটন রায়না জেমস চরিত্রে ২০১২ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত এবিসি/সিএমটি চ্যানেলে প্রচারিত সঙ্গীতধর্মী ধারাবাহিক নাটক ন্যাশভিলে অভিনয় করেন,[৬] যার জন্য তিনি ধারাবাহিক নাটকে অসাধারণ অভিনেত্রী বিভাগে প্রাইমটাইম এমি এ্যাওয়ার্ড ও ধারাবাহিক নাটকে সেরা অভিনেত্রী বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের জন্য মনোনিত হন।[৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Person Details for C Britton, "United States Public Records, 1970–2009" — FamilySearch.org"familysearch.org 
  2. "Monitor"। Entertainment Weekly (1249)। মার্চ ৮, ২০১৩। পৃষ্ঠা 20। 
  3. "Connie Britton"Rotten Tomatoes। সংগ্রহের তারিখ ৭ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  4. "Connie Britton Biography"Yahoo! Movies। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-১০-২২ 
  5. Prudom, Laura (জুলাই ১৯, ২০১২)। "'American Horror Story' Earns 17 Emmy Nominations"The Huffington Post। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৯, ২০১২ 
  6. Ausiello, Michael (ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১৭)। "Connie Britton Talks 'Devastating' Nashville Twist ('There Wasn't Any Alternative'), Teases Rayna's 'Return'"TVLine 
  7. THR Staff (ডিসেম্বর ১৩, ২০১২)। "Golden Globe Nominations: 'Lincoln' Leads With 7, 'Game Change' Tops TV"The Hollywood Reporter। সংগ্রহের তারিখ ২৩ মার্চ ২০১৫