কিরীটী রায়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কিরীটী রায়
কিরীটী রায় চরিত্র
প্রথম উপস্থিতিকালোভ্রমর
শেষ উপস্থিতিঅবগুণ্ঠিতা
স্রষ্টানীহাররঞ্জন গুপ্ত
চরিত্রায়ণইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত
চিরঞ্জিত চক্রবর্তী
বাড়িটালিগঞ্জ, কলকাতা
উচ্চতাসাড়ে ৬ ফুট
সহকারীসুব্রত
লিঙ্গপুরুষ
পদবিরায়
পেশাগোয়েন্দাগিরি
দাম্পত্য সঙ্গীকৃষ্ণা
ধর্মহিন্দু ধর্ম
জাতীয়তাভারতীয়


কিরীটী রায় ভারতীয় বাংলা ঔপন্যাসিক নীহাররঞ্জন গুপ্ত সৃষ্ট একটি বিখ্যাত গোয়েন্দা-চরিত্র।[১] কালোভ্রমর উপন্যাসের মধ্য দিয়ে এই গোয়েন্দা চরিত্রের আবির্ভাব ঘটে। তার সহকারী সুব্রত, যিনি অধিকাংশ কাহিনীতে তার সাথে থাকেন। পরবর্তীতে কিরীটী চরিত্রের উপর ভিত্তি করে বেশকিছু চলচ্চিত্র নির্মিত হয়েছে।[২] মিত্র ও ঘোষ পাবলিশার্স থেকে কিরীটী সিরিজের বইগুলো ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হয়।[৩]

চরিত্র[সম্পাদনা]

কিরীটী রহস্যভেদী হিসেবেই নিজের পরিচয় দিয়ে থাকেন। তার সহকারী সুব্রত, স্ত্রী কৃষ্ণা। টালিগঞ্জে তার বাড়ি রয়েছে, এছাড়াও রয়েছে নিজস্ব গাড়ি, ড্রাইভারের নাম হীরা সিং। তার ভৃত্যের নাম জংলী।[১]

তাঁর উচ্চতা সাড়ে ছয় ফুট, গায়ের রং ফরসা। চুল ব্যাকব্রাশ করা, কোঁকড়ানো। পুরু লেন্সের কালো সেলুলয়েড চশমা পড়েন তিনি। দাঁড়িগোফ নিখুঁতভাবে কামানো।[১][৩]

চরিত্র নির্মাণ-ইতিহাস[সম্পাদনা]

যুক্তরাজ্যে নীহাররঞ্জন গুপ্তের সাথে বিখ্যাত গোয়েন্দাকাহিনি লেখক আগাথা ক্রিস্টির পরিচয় ঘটে। এরপরেই তিনি দেশে ফিরে এসে কিরীটী চরিত্র নির্মাণ করেন।[৩] তাঁর ছোটবেলায় প্রত্যক্ষ করা একটি আত্মহত্যা এবং অন্তঃস্বত্ত্বা বিধবা বৌদিকে গুলি করে খুন করেন যক্ষারোগ-আক্রান্ত তাঁর রুগ্ণ দেবর — এ দুটি ঘটনাই পরবর্তীতে কিরীটীর মত একটি গোয়েন্দা চরিত্র নির্মাণ করতে প্ররোচিত করে তাকে।[১]

চলচ্চিত্রে কিরীটী[সম্পাদনা]

এযাবত চারটি চলচ্চিত্র নির্মিত হয়েছে কিরীটী রায়ের কাহিনী অবলম্বনেঃ

রচনাবলী[সম্পাদনা]

কিরীটিকে নিয়ে লেখা কাহিনীগুলোকে নিয়ে মোট ১৫টি অমনিবাস প্রকাশিত হয়েছে (সবকটিই মিত্র ও ঘোষ প্রকাশনী থেকে)। সেগুলি হল যথাক্রমে -

কিরীটি অমনিবাস ১

১. কিরীটির আবির্ভাব

২. রহস্যভেদী

৩. চক্রী

৪. বৌরাণীর বিল

৫. হাড়ের পাশা

কিরীটি অমনিবাস ২

১. হলুদ শয়তান

২. ডাইনীর বাঁশী

৩. ড্রাগন

৪. মোমের আলো

৫. বসন্ত রজনী

৬. কালো পাখি

কিরীটি অমনিবাস ৩

১. বিষকুম্ভ

২. মৃত্যুবাণ

৩. রাত্রি যখন গভীর হয়

৪. অলোকলতা

কিরীটি অমনিবাস ৪

১. অতল সৈকত

২. বনমরালী

৩. সুভদ্রা হরণ

৪. বিদ্যুৎ-বহ্নি

কিরীটি অমনিবাস ৫

১. মন পবন

২. অদৃশ্য শত্রু

৩. প্রজাপতী রঙ

৪. চারের অঙ্ক

৫. আদিম রিপু

কিরীটি অমনিবাস ৬

১. মৃগতৃষ্ণা

২. মিথুন লগ্ন

৩. মণিকুণ্ডল

কিরীটি অমনিবাস ৭

১. কৃষ্ণা কাবেরী

২. রতিবিলাপ

৩. মদন ভস্ম

কিরীটি অমনিবাস ৮

১. রিপু সংহার

২. নাগপাশ

৩. সেতারের সুর

৪. ওরা তিনজন

৫. ছোরা

কিরীটি অমনিবাস ৯

১. কালোহাত

২. ছায়া কুহেলি

৩. মৃত্যুবিষ

৪. পদ্মিনী

কিরীটি অমনিবাস ১০

১. ঘুম নেই

২. কলঙ্ক কথা

৩. হীরা চুনি পান্না

কিরীটি অমনিবাস ১১

১. অহল্যা ঘুম

২. হীরকাঙ্গুরীয়

৩. ঘুম ভাঙার রাত

৪. নীল কুঠি

কিরীটি অমনিবাস ১২

১. সর্পিল

২. রক্তলোভী নিশাচর

৩. বত্রিশ সিংহাসন

৪. নিরালা প্রহর

৫. রত্ন মঞ্জিল

কিরীটি অমনিবাস ১৩

১. আলোকে আঁধারে

২. নগরনটী

৩. রক্তের দাগ

৪. ব্লু-প্রিন্ট

৫. রেশমী ফাঁস

৬. পদ্মদহের পিশাচ

৭. পঞ্চমুখী হীরা

কিরীটি অমনিবাস ১৪

১. উর্বশী সন্ধ্যা

২. বসন্তের দিন শীতের রাত্রি

৩. মারীচ সংহার

কিরীটি অমনিবাস ১৫

১. যুগল বন্দী

২. সামনে সমুদ্র নীল

৩. মানসী তুমি

৪. অবগুন্ঠিতা

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "কিরীটী রায়"আনন্দবাজার পত্রিকা। ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২২ জানুয়ারি ২০১৭ 
  2. "Popular sleuth Kiriti Roy to debut on silver screen"টাইমস অব ইন্ডিয়া। ১২ জানুয়ারি ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২২ জানুয়ারি ২০১৭ 
  3. নীহাররঞ্জন গুপ্ত। কিরীটী অমনিবাস প্রথম খণ্ড। মিত্র ও ঘোষ পাবলিশার্স। 
  4. "ভ্রমরের তালে কিরীটী"আনন্দবাজার পত্রিকা। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২২ জানুয়ারি ২০১৭ 
  5. "চিরঞ্জিতও পারলেন না কিরীটীকে উদ্ধার করতে"আনন্দবাজার পত্রিকা। ১৪ জানুয়ারি ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২২ জানুয়ারি ২০১৭ 

[১]

  1. "Kiriti Roy - Wikipedia"Kiriti Roy - Wikipedia। 06/10/2016। সংগ্রহের তারিখ 14/10/2020  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ=, |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)