কালাও

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
কালাও
El Callao
Mozaico Callao
Mozaico Callao
কালাওয়ের পতাকা
পতাকা
কালাওয়ের প্রতীক
প্রতীক
নাম: প্রশান্ত মহাসাগরের মুক্তা,[১]
El Primer Puerto (The First Harbor).
কালাও পেরু-এ অবস্থিত
কালাও
কালাও
Location within Peru
স্থানাঙ্ক: ১২°২′ দক্ষিণ ৭৭°৮′ পশ্চিম / ১২.০৩৩° দক্ষিণ ৭৭.১৩৩° পশ্চিম / -12.033; -77.133স্থানাঙ্ক: ১২°২′ দক্ষিণ ৭৭°৮′ পশ্চিম / ১২.০৩৩° দক্ষিণ ৭৭.১৩৩° পশ্চিম / -12.033; -77.133
দেশ  পেরু
অঞ্চলসমূহ কালাও
প্রদেশসমূহ কন্সটিটিউশনাল প্রভিন্স অফ কালাও
Founded ১৫৩৭
জেলাসমূহ
সরকার
 • মেয়র ফেলিক্স মোরেনো
আয়তন
 • শহর ১৪৬.৯৮ কিমি (৫৬.৭৫ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (2011 est)[২]
 • শহর ৯,৯৯,৯৭৬
 • শহুরে ৮,৭৬,৮৭৭
 • শহুরের ঘনত্ব ৫৬৯০.৪/কিমি (১৪৭৩৮/বর্গমাইল)
 • মেট্রো ৯৩,৬৭,৫৮৭
সময় অঞ্চল PET (ইউটিসি-5)
এলাকা কোড 14
ওয়েবসাইট www.municallao.gob.pe

এল কালাও (/kɑːˈjɑː./) পেরুর প্রধান সমুদ্রবন্দর। এই শহরকে বলা হয় প্রভিন্সিয়া কন্সটিটিউশনাল (সাংবিধানিক প্রদেশ) যা কালাও অঞ্চলের একমাত্র প্রদেশ। দেশের রাজধানী থেকে কালাও শহরের ঐতিহাসক কেন্দ্র ১৫ কি.মি. (৯.৩) দূরে অবস্থিত। কালাওয়ের উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্বদিকে আছে লিমা প্রদেশ এবং পশ্চিমে প্রশান্ত মহাসাগর

ইতিহাস[সম্পাদনা]

এল কালাও গড়ে তোলে স্পেনীয় উপনিবেশকারীরা ১৫৩৭ সালে, লিমার (১৫৩৫) দুবছর পরে। কিছুকালের মধ্যে এটি প্রশান্ত মহাসাগরে স্পেনীয় বাণিজ্যের প্রধান বন্দরে পরিণত হয়। শহরটির নামকরণের উৎস অজানা, তবে ১৫৫০ সাল থেকেই এটি এই নামে পরিচিত।

১৯৪৯ সালের দিকে কালাও পরিচিত ছিল বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ কোকোজাত দ্রব্য উৎপাদন ও কোকেন মাদক ব্যবসার কেন্দ্র হিসেবে।[৩]

উল্লেখযোগ্য ঘটনাবলী[সম্পাদনা]

  • ১৭৪৬ সালের ২৮ অক্টোবর, ভূমিকম্পসৃষ্ট একটি সুনামি পুরো কালাও শহর তছনছ করে দেয়।
  • ১৮২৬ সালের ২২ জানুয়ারি, সিমন বলিভারের সাহায্যপ্রাপ্ত জাতীয়তাবাদী শক্তিদের অবরোধে জেনারেল হোসে রামন রডিল কালাও শহর সমর্পণ করেন জেনারেল বার্থলোমিউ সালোমকে।
  • ১৮৬৬ সালের ২ মে, কালাও যুদ্ধের সময় স্পেনীয় নৌবাহিনী স্বাধীন পেরু পুনর্দখল করার চেষ্টা করে।
  • নরওয়ের অভিযাত্রী কন-টিকি কালাও ত্যাগ করেন ১৯৪৭ সালের ২৮ এপ্রিল বিকেলে।

বিমানবন্দর[সম্পাদনা]

অ্যারো কনডর এবং ল্যান এয়ারলাইনসের বিমান।

সরকার[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Camara de Comercio de Lima, সম্পাদক (২০০০)। "La Perla del Pacífico"। সংগৃহীত ৯ মে ২০১২ 
  2. INEI– Censo INEI (2005) আর্কাইভ 27 April 2006 at the Wayback Machine.
  3. "The White Goddess", TIME Magazine, 11 April 1949

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]