কারিনা পানকিয়েভিচ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কারিনা পানকিয়েভিচ
Asociación Trans de Uruguay 8M2019 (33446111948).jpg
কারিনা পানকিয়েভিচ, ট্রান্স অ্যাসোসিয়েশন অফ উরুগুয়ে (এটিআরইউ) এর ৮ ই মার্চ, ২০১৯ এর মার্চের প্রস্তুতি, মন্টেভিডিও, উরুগুয়ে।
জাতীয়তাউরুগুয়ে
অন্যান্য নামকরিনা পানকিয়েভিচ
পেশানারীর অধিকার বিষয়ক কর্মী
পরিচিতির কারণনারীবাদী এবং এলজিবিটি ইভেন্টের সদস্য

কারিনা পানকিভিচ একজন উরুগুয়ের নারীর সমতা ও নারীর অধিকার বিষয়ক ও এলবিজিটি কর্মী।। [১] [২] [৩] [৪] [৫] তিনি আসোসিয়াচিয়ান ট্রান্স ডেল উরুগুয়ের সভাপতি। [৬] [৭]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

মাত্র ১৩ বছর বয়সে কারিনা মোন্তেবিদেও চলে আসেন এবং ১৫ বছর বয়স থেকেই তিনি যৌনকর্মী হিসাবে কাজ শুরু করেছিলেন। তাঁর প্রতি সহিংসতা ও নিপীড়নের মুখোমুখি হতে হয়েছিল এবং তাঁর ফলে তাঁকে উরুগুয়ে ছাড়তে বাধ্য করে। তিনি প্রথমে ব্রাজিল তারপর আর্জেন্টিনাতে বসবাস করেছিলেন। অবশেষে তিনি ১৯৮৫ সালে উরুগুয়ে ফিরে এসে দেখেন যে এলজিবিটিআই সম্প্রদায়ের অনেক লোক তাদের মানবাধিকারের জন্য লড়াই করতে চেয়েছিল ,তবে তাঁরা ভয় পেয়েছিল। এই অবস্থা দেখে তিনি এবং অন্যান্য কর্মীরা সেই বছরেই এটিআরইউ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। এটিআরইউ, এলজিবিটিআই সম্প্রদায়ের প্রশিক্ষণ, সমর্থন এবং তাদের অধিকার প্রচারের ওপর জড়িত ভিভিন্ন কাজে জোর দিয়ে থাকে। [৮]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

এটিআরইউ, সারা দেশে ট্রান্স অধিকার দল্গুলির একটি পরস্পর-সংযুক্ত করায় একটি সংগঠন এবং দক্ষিণ আমেরিকার ছাড়া অন্যান্য দেশেও তাঁরা পারি দিয়েছে। তাঁদের বৃহত্তম সাফল্যগুলির মধ্যে একটি ছিল ডাইভারসিটি মার্চ, যা উরুগুয়ের এলজিবিটিআই সম্প্রদায়কে আরও শক্তিশালী করেছিল। আশা করা যায় ২০১৯ সালে, ডাইভারসিটি মার্চে, ১৩০,০০০ এরও বেশি লোককে জড়িত করতে পারবে। কারিনা, ট্রান্স ন্যাশনাল বেস অর্গানাইজেশন (ওটিবিএন) এর "এইচআইভি - এইডস বিরুদ্ধে ট্রান্সফোবিয়া ছাড়া ট্রান্স উইমেন" শীর্ষক একটি তথ্যচিত্রের প্রকল্পে অংশ নিয়েছিলেন। এই তথ্যচিত্রটি উরুগুয়ের ২০১৭ সালে ট্রান্স নারীদের মানবাধিকার লঙ্ঘনের মামলাগুলি অন্তর্ভুক্ত করেছিল। [৯] [১০] [১১] [১২] ২০১৮ সালে, উরুগুয়ের ট্রান্স সম্প্রদায় একটি আইন পাশ করা হয় যা তাদের অধিকারের নিশ্চয়তা দিয়েছিল। যদিও ২০১৯ সালে উরুগুয়ের রক্ষণশীল সংসদ, তাঁদের গণভোটে তা বাতিল করতে চেয়েছিল। [১৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. diaria, la (২০১৯-১২-১১)। "Elvira Lutz, Cristina Grela y Karina Pankievich fueron declaradas Ciudadanas Ilustres por la Intendencia de Montevideo"la diaria (স্পেনীয় ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১০ 
  2. "Los 90 en clave trans"la diaria (স্পেনীয় ভাষায়)। ২০২০-০১-০৪। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১০ 
  3. "Ley Trans vuelve al tapete entre denuncias penales, firmas y festejos"ecos.la (স্পেনীয় ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১০ 
  4. "Dirigente trans aseguró que solo se busca salud integral para el colectivo"Diario La República (স্পেনীয় ভাষায়)। ২০১৮-০৮-১২। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১০ 
  5. "Ley trans: Senador del FA propone sacar la posibilidad de que menores accedan a cirugías de cambio de sexo"la diaria (স্পেনীয় ভাষায়)। ২০১৮-০৮-২০। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১০ 
  6. ElPais। "Creando un nuevo futuro trans"Diario EL PAIS Uruguay (spanish ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১০ 
  7. ElPais। "Ley "trans" se votó bajo acusaciones de "presión""Diario EL PAIS Uruguay (spanish ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১০ 
  8. "OHCHR | Karina Pankievich"www.ohchr.org (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১২ 
  9. "Ser trans en los '90: postales e historias desde Uruguay"Agencia Presentes (স্পেনীয় ভাষায়)। ২০২০-০২-২৭। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৭ 
  10. "Karina Pankievich archivos"Indymedia Argentina Centro de Medios Independientes (( i )) (স্পেনীয় ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৭ 
  11. Nations, United। "Los derechos de las personas trans | Naciones Unidas"United Nations (স্পেনীয় ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৭ 
  12. "Reconocimiento a mujeres que luchan en nombre de todas"Intendencia de Montevideo. (স্পেনীয় ভাষায়)। ২০১৯-১২-০২। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৭ 
  13. "Los derechos de las personas trans no se plebiscitan – ACNUDH" (স্পেনীয় ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৭