ঔষধালয়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ভারতের গ্যাংটকে অবস্থিত একটি ঔষধালয়, যার রাস্তার উপরে একটি উন্মুক্ত কাউন্টার আছে, যেখান থেকে সহজেই হেঁটে গিয়ে ওষুধ কেনা যায়।

ঔষধালয় বলতে এমন এক ধরনের খুচরা বিক্রয়ের দোকানকে বোঝায় যেখানে অন্যান্য পণ্যের পাশাপাশি মূলত ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী ওষুধ বিক্রি করা হয়। সাধারণত একটি ঔষধালয়ে একজন ঔষধবিদ বা কম্পাউন্ডার চিকিৎসা ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী ওষুধ দেয়া হচ্ছে কি না তা দেখেন এবং কাউন্টার থেকে ক্রয়যোগ্য ওষুধের সমাহারের উপর ক্রেতাকে উপদেশ দিয়ে থাকেন। ঔষধালয় সাধারণত কোন লোকালয়ের বাণিজ্যিক এলাকাতে থাকে।

ঔষধালয় শৃঙ্খল[সম্পাদনা]

ঔষধালয় শৃঙ্খল বা ইংরেজিতে "চেইন ফার্মেসি" হলো একক ও কেন্দ্রীয় তত্ত্বাবধানে অনেকগুলো ঔষধালয়ের ব্যবস্থাপনা যা একক নামে বিভিন্ন স্থানে পরিচালিত হয়ে থাকে। বর্তমানে বাংলাদেশে "চেইন ফার্মেসি"-র প্রবর্তন হচ্ছে। ঔষধালয় শৃঙ্খল খুচরা ঔষধালয়ের মত ঔষধ ও ঔষধীয় সেবাপ্রদানের বড় মাধ্যম।

বাংলাদেশে এরকম ঔষধালয় শৃঙ্খলের উদাহরণ হলো লাজ ফার্মা, কিউ.পি.এস (Quick Prescription Service) ইত্যাদি।

কমিউনিটি ফার্মেসী[সম্পাদনা]

সমাজের সকলের স্বাস্থ্য সুরক্ষার নিমিত্তে সমন্বিত ফার্মসী ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে প্রয়োজনে যে ঔষুধীয় সেবা (Pharmaceutical Service) পরিবেশন করে থাকে তাকে কমিউনিটি ফার্মসী বলে। সহজভাবে বলা যেতে পারে, একটি নির্দিষ্ট এলাকায় যেখান থেকে ঔষুধ ও ঔষুধ সম্পর্কিত তথ্য অতি সহজেই পাওয়া যায় তাকে কমিউনিটি ফার্মেসী বলে।

পৃথিবীর অধিকাংশ কমিউনিটি ফার্মেসী ব্যক্তি মালিকানায় প্রতিষ্ঠিত ও পরিচালিত। এধরণের প্রতিষ্ঠানগুলো কোন নির্দিষ্ট সমাজের প্রয়োজনীয় সকল ঔষুধের চাহিদা পূরণ করে থাকে। সেই অর্থে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোন কমিউনিটি ফার্মেসী নেই। কমিউনিটি ফার্মেসী প্রতিষ্ঠা ও সেবা দানের যেসকল শর্ত আছে বাংলাদেশে তার বেশির ভাগই পূরণ করা হয় না। তাই রিটেইল বা খুচরা ফার্মেসীই এখানে কমিউনিটি ফার্মেসী হিসেবে গণ্য করা হয়। দেশে ঔষধ প্রশাসন যেভাবে আপগ্রেড হচ্ছে, তাতে খুব শীঘ্রই বাংলাদেশেও সঠিকভাবে কমিউনিটি ফার্মেসী সেবা চালু হবে তা নিশচিতভাবে আশা করা যায়। তবে বর্তমানে বাংলাদেশে "চেইন ফার্মেসী" এর প্রবর্তন হচ্ছে। চেইন ফার্মেসীও রিটেইল ফার্মেসীর ন্যায় ঔষুধ ও ঔষুধীয় সেবা প্রদানের বড় মাধ্যম।

চেইন ফার্মেসী হলো একক ও কেন্দ্রীয় তত্ত্বাবধানে অনেকগুলো ফার্মেসীর ব্যবস্থাপনা যা একক নামে বিভিন্ন স্থানে পরিচালিত হয়ে থাকে। বাংলাদেশে এরকম ফার্মেসীর উদাহরণ হলো লাজ ফার্মা, কিউ.পি.এস (Quick Prescription Service) ইত্যাদি। সাম্প্রতিক সময়ে সম্পূর্ণ নতুন ধরণের সেবা ও আইডিয়া নিয়ে এ্যাপভিত্তিক একটি নতুন চেইন ফার্মা দেশের বাজারে আসছে বলে জানা যাচ্ছে। যেখানে জনগণ ঘরে বসেই প্রেসক্রিপশন আপলোড করে, অনলাইনে পেমেন্ট করে ঔষুধ হোম ডেলিভারীসহ যাবতীয় স্বাস্থ্য সেবা, টিপস পেতে পারেন একদম ফ্রিেতে! বিষয়টি আশ্চর্য ও ব্যয়সাপেক্ষ মনে হলেও তথ্য-প্রযুক্তির এ যুগে এমন সেবা জনগণের অনেক কাঙ্খিত।