এ. টি. এম. ওয়ালী আশরাফ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সাবেক সাংসদ
এ টি এম ওয়ালী আশরাফ
এ. টি. এম. ওয়ালী আশরাফ.jpg
ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য
কাজের মেয়াদ
১৯৮৮ – ১৯৯১
পূর্বসূরীশহীদুর রহমান
উত্তরসূরীনিজে
কাজের মেয়াদ
১৯৯১ – ১৯৯৪
পূর্বসূরীনিজে
উত্তরসূরীশাহজাহান হাওলাদার সুজন
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মঅজানা
বাঞ্ছারামপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
মৃত্যু১৯ নভেম্বর ১৯৯৪
ঢাকা
নাগরিকত্ব ব্রিটিশ ভারত (১৯৪৭ সাল পর্যন্ত)
 পাকিস্তান (১৯৭১ সালের পূর্বে)
 বাংলাদেশ
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল

এ. টি. এম. ওয়ালী আশরাফ রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক এবং যুক্তরাজ্য থেকে প্রকাশিত প্রথম বাংলা সাপ্তাহিক জনমতের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ছিলেন। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য। তিনি ১৯৮৮ সালের চতুর্থ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এর পর ১৯৯১ সালের পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। [১][২][৩]

জন্ম ও প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

এ. টি. এম. ওয়ালী আশরাফ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুরে জন্মগ্রহণ করেন।

রাজনৈতিক ও কর্মজীবন[সম্পাদনা]

এ টি এম ওয়ালী আশরাফ যুক্তরাজ্য থেকে প্রকাশিত প্রথম বাংলা সাপ্তাহিক জনমতের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ছিলেন। তিনি ও তার পত্রিকা মুক্তিযুদ্ধের সময় প্রবাসে থেকে বিশেষ অবদান রাখেন। তিনি ১৯৮৮ সালের চতুর্থ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এর পর ১৯৯১ সালের পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।[৪]

পারিবারিক জীবন[সম্পাদনা]

এ টি এম ওয়ালী আশরাফের স্ত্রী রেবেকা ওয়ালি।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

১৯ নভেম্বর ১৯৯৪ সালে এ টি এম ওয়ালী আশরাফ মারা যান।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "৪র্থ জাতীয় সংসদে নির্বাচিত মাননীয় সংসদ-সদস্যদের নামের তালিকা"জাতীয় সংসদবাংলাদেশ সরকার। ৯ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  2. "৫ম জাতীয় সংসদে নির্বাচিত মাননীয় সংসদ-সদস্যদের নামের তালিকা" (PDF)জাতীয় সংসদবাংলাদেশ সরকার। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। 
  3. "এ টি এম ওয়ালী আশরাফ"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-২৩ 
  4. "বঙ্গবন্ধু হেসে বললেন, একদফা দাবির কথা তোরা বল! | বাংলাদেশ প্রতিদিন"Bangladesh Pratidin (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-২৩ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]