উত্তর রেল (রাশিয়া)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ভোলগা নদীর তীরে অবস্থিত উত্তর রেলের সদরদপ্তর
নোভকির কাছে উত্তর রেলের সীমা চিহ্ন

সেভেরনায়া শেলেস্নায়া রেলওয়ে বা উত্তর রেল (Северная железная дорога; উচ্চারণ - সেভেরনায়া শেলেস্নায়া দরোগা) হল রাশিয়ার রাজধানী মস্কো এবং আর্কানজেলস্কের মধ্যে সংযোগকারী রাশিয়ার পুরাতনতম রেল নেটওয়ার্কগুলির মধ্যে একটি; ১৮৭২ সালে এই রেলপথ প্রথম চালু করা হয়। এই রেল নেটওয়ার্কটি উত্তর মহাসাগরের-এর উপকূল বরাবর অবস্থিত। আর্কানজেলস্ক, কোমি, ভোলোগদা, কোস্ত্রোমা, ইয়ারোস্লাভ্‌ল, ,ল্‌ভানোভো, ও ভ্লাদিমির, প্রভৃতি রুশ ফেডারেশনভুক্ত ওবলাস্ট বা প্রশাসনিক অঞ্চল জুড়ে উক্ত রেলের বিস্তার। [১] ইউরোপীয় রাশিয়ার উত্তর প্রান্ত বরাবর বিস্তৃত এই রেলপথের মোট দৈর্ঘ্য প্রায় ৬০০০ কিলোমিটার। ইয়ারোস্লাভ্‌লে এই রেলের সদরদপ্তর অধিষ্ঠিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

উত্তর রাশিয়ায় রেলপথ স্থাপনের সূচনা বস্তুত ১৮৫৯ সালে। সে' সময়ই প্রস্তাবিত মস্কো-ইয়ারোস্লাভ্‌ল রেলপথের অংশ হিসেবে মস্কো থেকে ৭৫ কিলোমিটার উত্তরপূর্বে সেরগিয়েভ পসাদ্‌ পর্যন্ত রেলপথ স্থাপন শুরু হয়। ১৮৬২ থেকে এই পথে রেল চলাচল শুরু করে। সেই হিসেবে এই রেলপথটিই রাশিয়ার প্রাচীনতম রেলপথ। তবে বর্তমানে রেলপথের এই অংশটি আর উত্তর রেলের অংশ হিসেবে বিবেচিত হয় না। ১৯৫৯ সালে এই অংশটি মস্কো-ইয়ারোস্লাভ্‌ল রেলপথের অংশ হিসেবে রেলের মস্কো বিভাগের হাতে স্থানান্তরিত হয়। এই অংশটি বর্তমানে ট্রান্স সাইবেরিয়ান রেলওয়ের একটি অংশ। সেই হিসেবে ১৮৬৮ সালের সেপ্টেম্বরে কাজ শুরু করা ইভানোভো-শুইয়া অংশটিই বর্তমানে উত্তর রেলের প্রাচীনতম অংশ।

রাশিয়ার উত্তর রেলের মানচিত্র (রুশ ভাষায়)

ঊনবিংশ শতাব্দীর শেষের দিকে যখন জারশাসিত রাশিয়ায় নতুন নতুন রেলপথ নির্মাণের উপর যথেষ্ট গুরুত্ব আরোপিত হয়, তার ফলশ্রুতিতে উত্তর রেলের একের পর এক শাখা এই সময় বিস্তার লাভ করে। ১৮৮৭ সালে নির্মিত হয় ইয়ারোস্লাভ্‌ল থেকে নেরেখ্‌তা হয়ে কোস্ত্রোমা পর্যন্ত শাখাটি; ১৮৯৪ সালে ভোলোগদা থেকে একেবারে উত্তরে উত্তর মহাসাগর উপকূলস্থ আর্কেনজেলস্ক পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণ শুরু হয়, যা শেষপর্যন্ত ১৮৯৭ সালে সম্পন্ন হয়। ঐ ১৮৯৭ সালেই ভোলোগদা থেকে ইয়ারোস্লাভ্‌ল পর্যন্ত নির্মিত হয় আরএকটি ন্যারোগেজ লাইন (১৯১৬ সালে এই লাইনটি নর্মালগেজে রূপান্তরিত করা হয়)। ১৯০৭ সালের মধ্যেই ইউরোপীয় রাশিয়ার উত্তর অংশে বর্তমান উত্তর রেলের অন্তর্ভুক্ত অঞ্চলে প্রায় ২০০০ কিলোমিটার রেলপথ স্থাপিত হয়ে যায়।

সোভিয়েত আমলের প্রথম দিকে রুশ গৃহযুদ্ধের বছরগুলিতে মানুষ ও পণ্য পরিবহনের ক্ষেত্রে এই ইতোমধ্যেই সুবিস্তীর্ণ রেলপথটির গুরুত্ব অনুভূত হলেও সাথে সাথে এর আরও সম্প্রসারণের কাজ শুরু করা যায়নি। তবে ১৯৩৭ - ১৯৪২ সালে যুদ্ধের মধ্যেই এর আরও সম্প্রসারণ হয় এবং সুমেরু বৃত্তেরও উত্তরে প্রায় ১৫০০ কিলোমিটার বিস্তৃত পেচোরা রেল স্থাপিত হয় (শুরুতে অবশ্য এর নাম ছিল উত্তর পেচোরা রেল)। এরফলে রেলপথে খনিশহর ভরকুতার সাথে মস্কোর সরাসরি যোগাযোগ স্থাপিত হয়। লেনিনগ্রাদে অবরোধের সময় উত্তর রাশিয়ার সাথে যোগাযোগের বিকল্প পথ হিসেবে এই রেলপথের গুরুত্ব সম্যক অনুভূত হয়। ১৯৬৭ সালে এই পেচোরা রেল উত্তর রেলের অন্তর্ভুক্ত হয়।

১৯২০ সাল থেকেই এই রেলপথের আংশিক বৈদ্যুতিকরণ শুরু হয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর এই গতি ত্বরাণ্বিত হয়।[২]

বর্তমান গুরুত্ব[সম্পাদনা]

বর্তমানে এই রেল পাঁচটি আঞ্চলিক বিভাগে বিভক্ত (আর্কানজেলস্ক, ইয়ারোস্লাভ্‌ল, সোলভিচেগোদস্ক, সস্নোগোরস্ক এবং ভোলোগদা)। এই পাঁচটি আঞ্চলিক বিভাগের রেলপথের মিলিত দৈর্ঘ্য ৫৯৬০ কিলোমিটার। ২০০৮ সালে এই রেলে সর্বমোট কর্মীর সংখ্যা ছিল ৫৪,৪৫২ জন। ঐ বছরে উত্তর রেল মোট ৯৪ লক্ষ দূরগামী যাত্রী, ১ কোটি ৯২ লক্ষ লোকাল যাত্রী এবং ৬ কোটি ৯২ টন পণ্য পরিবহন করে।[৩]

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

Yaroslavl-mosk-vokzal.jpg
Yar station.jpg
Obozerskaya station.jpg
ইয়ারোসভা-মস্কোভসকয় স্টেশন (১৮৭০ সলে নির্মিত) ইয়ারোসভাল্ভ-গ্লাভনি স্টেশন (১৯৫৩ সালে নির্মিত) উত্তর রাশিয়ার গ্রামীণ স্টেশন

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Студенцова, Е. О. (২০০৯)। Уездные города России / Влияние Вологодско-Архангельской железной дороги на экономическое развитие г. Каргополя в конце ХIХ—начале ХХ в. (রুশীয় ভাষায়)। Kargopol। [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "রুশ উত্তর রেলের ইতিহাস" (রুশ)
  3. "তথ্য rzd.ru-এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে গৃহীত"। ১৫ জানুয়ারি ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ এপ্রিল ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

দপ্তরিক তথ্যক্ষেত্র