উজবেকিস্তানের জনপরিসংখ্যান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

উজবেকিস্তানের জনপরিসংখ্যানে উজবেকিস্তানের জনসংখ্যা, জন্ম বৃদ্ধি, ঘনত্ব, জাতিসত্ত্বা, শিক্ষার স্তর, স্বাস্থ্য, অর্থনৈতিক অবস্থান, ধর্মীয় সম্পর্ক ও জনসংখ্যার সাথে সম্পৃক্ত অন্যান্য বিষয়াদি তুলে ধরা হয়েছে। উজবেকিস্তানের নাগরিকগণ "উজবেকিস্তানী' ও উজবেক জাতিসত্ত্বার সাথে জড়িতগণ "উজবেক' নামে পরিচিত।

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

মধ্য এশিয়ার সর্বাপেক্ষা ঘনবসতিপূর্ণ দেশ হিসেবে উজবেকিস্তানের অবস্থান। জুলাই, ২০১১ সালে আদমশুমারী অণুযায়ী দেশটিতে ২৮.১ মিলিয়ন অধিবাসী বসবাস করছেন যা এতদ্বাঞ্চলের জনসংখ্যা অর্ধেক।[১] উজবেকিস্তানের জনসংখ্যার ৩৪.১%-এর বয়সই ১৪-বছরের নিচে অবস্থান করছে। সংখ্যাগরিষ্ঠ উজবেক অধিবাসী ৮০%। ১৯৯৬ সালের তথ্য অণুযায়ী অন্যান্য জাতিসত্ত্বার অধিবাসীদের মধ্যে ৫.৫% রুশ, ৫% তাজিক, ৩% কাজাখ, ২.৫% কারাকালপাক ও ১.৫% তাতার।[১] তন্মধ্যে, তাজিক অধিবাসীদের শতাংশের হার নিয়ে বিতর্ক রয়েছে।[২]

সিআইএ ওয়ার্ল্ড ফ্যাক্টবুক অণুযায়ী ২০১১ সালে মহিলাপ্রতি শিশু জন্মের হার ১.৮৯।[১][৩][৪] ২০০২ সালের তথ্য মোতাবেক বিবাহিতা ৭৩% মহিলা আইইউডি, ১৩% জন্মনিরোধক বড়ি ও ১৪% পুরুষ কনডম ব্যবহার করেন।[৫]

ধর্ম[সম্পাদনা]

২০০৯ সালের তথ্য মোতাবেক অধিবাসীদের ৯০% মুসলিম ধর্মাবলম্বী।[৬] সুন্নি মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ, ৫% শিয়া। ৯% পূর্বাঞ্চলীয় অর্থোডক্স ও ৫% কোরীয় খ্রিস্টান, বৌদ্ধ, বাহাইসহ অন্যান্য ধর্মাবলম্বী।[৭] ১৯৮৯ সালে উজবেকিস্তানে ৯৪.৯০০ ইহুদি বসবাস করতেন।[৮] কিন্তু সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পর দেশ ত্যাগ করে যুক্তরাষ্ট্র কিংবা ইসরাইলে আবাস গড়েছেন। বর্তমানে পাঁচ হাজারেরও কম ইহুদি উজবেকিস্তানে অবস্থান করছেন।[৯]

ভাষা[সম্পাদনা]

স্বাধীনতার পর উজবেক রাষ্ট্রীয় ভাষার স্বীকৃতি পায়। রাষ্ট্রপতি ইসলাম করিমভ, জাতীয়তাবাদী বিরলিক ও উজবেক পপুলার ফ্রন্ট এ পরিবর্তন ঘটায়। বর্তমান প্রচলিত ভাষার ৭২.৪% উজবক, ১৪.২% রুশ, ৪.৪% তাজিক, ২.৭% খোয়ার এবং ৬.৩% অন্যান্য ভাষায় কথা বলেন।[১]

১৯৮০-এর দশকের শেষদিকে বিরলিক ভাষার বিষয়ে প্রচারণা চালায়। ১৯৮৯ সালে উজবককে রাষ্ট্রভাষার দাবীতে তাসখন্দে প্রায় ১২,০০০ লোক জমায়েত হয়।[১০] ১৯৯৫ সালে উজবেকিস্তান প্রজাতন্ত্র আইন করে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে গ্রহণ করে। তাস্বত্ত্বেও বিজ্ঞান, আন্তঃজাতিগত যোগাযোগ, ব্যবসা, বিজ্ঞাপনে রুশ ভাষা ব্যবহৃত হচ্ছে।[১১]

শিক্ষার উচ্চ হার ও সোভিয়েত শিক্ষার প্রভাবে উজবেকিস্তানে ধর্মীয় মৌলবাদ তেমন প্রসারিত হয়নি। এক পরিসংখ্যানে দেখা যায়, জরীপে অংশগ্রহণকারীদের ৩৫% ধর্মকে অতি গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে মনে করেন।[১২] ৯৯% অধিবাসী শিক্ষিত। পুরুষ ও মহিলা - উভয়েই ১২ বছর বিদ্যালয় গমন করে থাকেন। সরকার বিনামূল্যে ও বাধ্যতামূলক শিক্ষা ব্যবস্থায় ভূমিকা রাখছেন।

কৃষি[সম্পাদনা]

অধিকাংশ অধিবাসী তুলা চাষের সাথে সম্পৃক্ত। গ্রামাঞ্চলেই অধিবাসীরা ব্যাপক সংখ্যায় বসবাস করছেন। সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের সদস্য থাকাকালে যৌথ খামার ব্যবস্থা ছিল যা ১৯৯০ সালের পর ব্যক্তিগত পর্যায়ে চলে যায়।

অভিবাসন[সম্পাদনা]

রাশিয়া, কাজাখস্তান, সংযুক্ত আরব আমিরাত, তুরস্ক, দক্ষিণ কোরিয়া ও ইউরোপের দেশসমূহে শ্রমিক অভিবাসনে দেশটি জড়িত। মোট জনসংখ্যার কমপক্ষে ১০% বিদেশে কাজ করছেন। প্রায় ৫৮% শ্রমিক রাশিয়ায় অবস্থান করছেন। অতি উচ্চ বেকারত্ব ও নিম্ন মজুরিই এর প্রধান কারণ। ইসরাইলের দূতাবাসে সপ্তাহে প্রায় ২০০ ভিসার আবেদন করা হয়।[১৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Uzbekistan in CIA World Factbook
  2. "Uzbekistan"Country Reports on Human Rights Practices - 1999। U.S. Department of State, Bureau of Democracy, Human Rights, and Labor। ২০০০-০২-২৩। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-১২-১৯ 
  3. Spoorenberg, Thomas (২০১৩)। "Fertility changes in Central Asia since 1980"Asian Population Studies9 (1): 50–77। doi:10.1080/17441730.2012.752238 
  4. Spoorenberg, Thomas (২০১৫)। "Explaining recent fertility increase in Central Asia"Asian Population Studies। Routledge। doi:10.1080/17441730.2015.1027275 
  5. Jennifer Barrett and Cynthia Buckley, “Constrained Contraceptive Choice: IUD Prevalence in Uzbekistan,” International Family Planning Perspectives (Jun. 2007), 52.
  6. [১]
  7. International Religious Freedom Report for 2004, U.S. Department of State, Bureau of Democracy, Human Rights, and Labor (released 2004-09-15)
  8. World Jewish Population 2001, American Jewish Yearbook, vol. 101 (2001), p. 561.
  9. World Jewish Population 2007, American Jewish Yearbook, vol. 107 (2007), p. 592.
  10. Nancy Lubin. “Uzbekistan: The Challenges Ahead,” Middle East Journal vol. 43, Number 4, Autumn 1989, 619-634.
  11. Radnitz 2006, p. 658
  12. Pew Global Attitudes
  13. Daria Fane, “Ethnicity and Regionalism in Uzbekistan: Maintaining Stability Through Authoritarian Control,” in Leokadia Drobizheva, Rose Gottemoeller, Catherine McArdle Kelleher, and Lee Walker, ed., in Ethnic Conflict in the Post-Soviet World: Case Studies and Analysis (New York: M.E. Sharp, Inc., 1998), 271-302.